নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
jugantor
নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

  মো. মুজাম্মেল হক  

২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

সিনিয়র শিক্ষক

মিরপুর বাংলা উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

ইবাদত

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

১৬। হজকে ইসলামি মহাসম্মেলন বলা হয় কেন?

উত্তর : প্রতি বছর হজের সময় বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে লাখ লাখ মুসলিম একই স্থানে মিলিত হয় বলে হজকে ইসলামি মহাসম্মেলন বলা হয়।

হজ ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ। প্রতি বছর জিলহজ মাসের নির্ধারিত সময়ে পবিত্র মক্কায় পৃথিবীর সব প্রান্ত থেকে লাখ লাখ মুসলিম এসে হাজির হয়। হজের মাধ্যমে বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব তৈরি হয়। হজে এসে ধন-সম্পদ, বর্ণ-গোত্র, জাতীয়তাসহ সব পার্থক্য ভুলে সবাই একই রকম পোশাক পরিধান করে আল্লাহর দরবারে নিজেকে সমর্পণ করে। আর এভাবে হজ বিশ্ব মুসলিমের মহাসম্মেলনে পরিণত হয়।

১৭। হজ কার ওপর ফরজ?

উত্তর : হজ ধনী মুসলমানের ওপর ফরজ।

প্রত্যেক প্রাপ্ত বয়স্ক, সুস্থ, বুদ্ধিসম্পন্ন, সামর্থ্যবান মুসলিম নর-নারীর ওপর হজ ফরজ। এ সম্পর্কে মহান আল্লাহ বলেন- ‘মানুষের মধ্যে যার আল্লাহর ঘর পর্যন্ত পৌঁছার সামর্থ্য আছে তার ওপর আল্লাহর উদ্দেশ্যে ওই ঘরের হজ করা অবশ্য কর্তব্য।’ সামর্থ্যবানদের জন্য হজ জীবনে একবার পালন করা ফরজ।

১৮। শ্রমের মর্যাদা বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : শ্রমের মর্যাদা বলতে শ্রমিকের শ্রমের যথাযথ মূল্যায়ন করাকেই বোঝায়। ইসলাম শ্রমিকদের প্রতি যথাযথ আচরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। খাওয়া, পরা থেকে আরম্ভ করে সব কাজে মালিক শ্রমিকের মাঝে কোনো বৈষম্য ইসলাম অনুমোদন করে না। শ্রমিকের সঙ্গে সদ্ব্যবহার করা, তার প্রাপ্য যথাযথভাবে এবং যথাসময়ে আদায় করাই শ্রমের মর্যাদা হিসাবে পরিগণিত।

১৯। ‘শ্রমিকের গায়ের ঘাম শুকানোর আগেই তার পারিশ্রমিক দিয়ে দাও’। হাদিসটি বুঝিয়ে দাও।

উত্তর : উল্লিখিত হাদিস দ্বারা মহানবী (সা.) দ্রুত শ্রমিকের পারিশ্রমিক পরিশোধ করার প্রতি জোর তাগিদ দিয়েছেন। উল্লিখিত হাদিসটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে, শ্রমিক যখন কাজ করবে তখন কাজ শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে তাকে তার পারিশ্রমিক দিয়ে দিতে হবে। পারিশ্রমিক দিতে অকারণে বিলম্ব করা যাবে না, শ্রমিকদের সঙ্গে উত্তম ব্যবহার করতে হবে। অবশ্যই তাদের ন্যায্যমূল্য দিতে হবে। রাসূল (সা.) উল্লিখিত হাদিস দ্বারা শ্রমিককে উপযুক্ত এবং যথাসময়ে পারিশ্রমিক দেওয়ার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেছেন।

২০। ইলম বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইলম অর্থ জ্ঞান, জানা, অবগত হওয়া, বিদ্যা ইত্যাদি। ইসলামি পরিভাষায় ইলম হলো কোনো বস্তুর প্রকৃত অবস্থা উপলব্ধি করা অর্থাৎ কোনো বিষয়ের যথাযথ ও যাবতীয় তত্ত্ব ও তথ্যানুসারে সম্যক জ্ঞান অর্জন করাকে বলা হয় ইলম। অন্যর কথায় ইলম হলো নবীর মাধ্যমে লব্ধ জ্ঞান যা মানুষ বুদ্ধির দ্বারা আবিষ্কার করতে পারে না অর্থাৎ যে ইলম মানব হৃদয়ে তাওহিদের প্রেরণা জাগায় এবং নিজের মধ্যে আল্লাহ প্রেম ও আল্লাহ ভীতি সঞ্চার করে তাই ইলম বা জ্ঞান।

২১। ইসলামে ইলম গুরুত্বপূর্ণ কেন?

উত্তর : ইলম বা জ্ঞান অর্জন করা ফরজ। ইলম হলো কোনো বস্তুর প্রকৃত অবস্থা উপলব্ধি করা। ইসলামে ইলমের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রতিটি মুসলিম কার আনুগত্য করবে এবং কীভাবে করবে, কার নিকট আÍসমর্পণ করবে এবং কীভাবে করবে, তা অবশ্যই জানতে হবে। ইলম ব্যতীত তা জানা যাবে না। এজন্য ইসলামে ইলম গুরুত্বপূর্ণ।

২২। শিক্ষককে শ্রদ্ধা করতে হবে কেন?

উত্তর : যিনি আমাদের শিক্ষা দেন তিনি শিক্ষক। পিতা-মাতার পরেই শিক্ষকের অবস্থান, তাই তাদের শ্রদ্ধা করতে হবে।

শিক্ষক হলেন আদর্শ জাতি গঠনের কারিগর। শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় নিয়ম-কানুন, আদব-কায়দা, শিষ্টাচার, বিনয়, নম্রতা, নিয়মানুবর্তিতা ইত্যাদি শিক্ষা দেন। ফলে শিক্ষার্থী আদর্শ মানুষ হিসাবে গড়ে ওঠে। তা ছাড়া পুত্র ও পিতার মাঝে যেমন উত্তরাধিকারের সম্পর্ক আছে, ছাত্র-শিক্ষকের মাঝেও তেমন সম্পর্ক বিদ্যমান। তাই শিক্ষককে শ্রদ্ধা করা উচিত।

২৩। একজন ভালো শিক্ষক ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হবেন কীভাবে?

উত্তর : পৃথিবীর সবচেয়ে সম্মান ও মর্যাদার পেশা হলো শিক্ষকতা। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ পেশার লোকের বৈশিষ্ট্যগুলো শ্রেষ্ঠ হওয়া প্রয়োজন। একজন ভালো শিক্ষক ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হবেন নিুোক্তভাবে-

১. পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবেন, ২. শালীন, মার্জিত ও ব্যক্তিত্বরক্ষাকারী পোশাক পরিধান করবেন, ৩. বিশুদ্ধ উচ্চারণ ও প্রকাশ ভঙ্গির অধিকারী হবেন, ৪. মানসিক ভারসাম্য বজায় রাখবেন, ৫. নিয়মনীতির ক্ষেত্রে কঠোর হবেন, ৬. সুস্থ মন ও দেহের অধিকারী হবেন।

২৪. শিক্ষা বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষাহীন জাতি মেরুদণ্ডহীন প্রাণীর মতো। সঞ্চিত জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতাকে নিজের জীবনে সফলভাবে প্রয়োগ করাকে শিক্ষা বলে। শিক্ষা মানুষকে প্রকৃত মানুষ হতে সাহায্য করে এবং মানবহƒদয়কে অজ্ঞতা ও অন্ধকার থেকে মুক্ত করে জ্ঞানের আলোয় উদ্ভাসিত করে। শিক্ষা বলতে আমরা বুঝি মানুষের শরীর, মন ও আত্মার সমন্বিত বিকাশ সাধন।

নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা

 মো. মুজাম্মেল হক 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নবম-দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা : ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা
ছবি: সংগৃহীত

সিনিয়র শিক্ষক

মিরপুর বাংলা উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঢাকা

ইবাদত

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

১৬। হজকে ইসলামি মহাসম্মেলন বলা হয় কেন?

উত্তর : প্রতি বছর হজের সময় বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে লাখ লাখ মুসলিম একই স্থানে মিলিত হয় বলে হজকে ইসলামি মহাসম্মেলন বলা হয়।

হজ ইসলামের পঞ্চম স্তম্ভ। প্রতি বছর জিলহজ মাসের নির্ধারিত সময়ে পবিত্র মক্কায় পৃথিবীর সব প্রান্ত থেকে লাখ লাখ মুসলিম এসে হাজির হয়। হজের মাধ্যমে বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব তৈরি হয়। হজে এসে ধন-সম্পদ, বর্ণ-গোত্র, জাতীয়তাসহ সব পার্থক্য ভুলে সবাই একই রকম পোশাক পরিধান করে আল্লাহর দরবারে নিজেকে সমর্পণ করে। আর এভাবে হজ বিশ্ব মুসলিমের মহাসম্মেলনে পরিণত হয়।

১৭। হজ কার ওপর ফরজ?

উত্তর : হজ ধনী মুসলমানের ওপর ফরজ।

প্রত্যেক প্রাপ্ত বয়স্ক, সুস্থ, বুদ্ধিসম্পন্ন, সামর্থ্যবান মুসলিম নর-নারীর ওপর হজ ফরজ। এ সম্পর্কে মহান আল্লাহ বলেন- ‘মানুষের মধ্যে যার আল্লাহর ঘর পর্যন্ত পৌঁছার সামর্থ্য আছে তার ওপর আল্লাহর উদ্দেশ্যে ওই ঘরের হজ করা অবশ্য কর্তব্য।’ সামর্থ্যবানদের জন্য হজ জীবনে একবার পালন করা ফরজ।

১৮। শ্রমের মর্যাদা বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : শ্রমের মর্যাদা বলতে শ্রমিকের শ্রমের যথাযথ মূল্যায়ন করাকেই বোঝায়। ইসলাম শ্রমিকদের প্রতি যথাযথ আচরণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। খাওয়া, পরা থেকে আরম্ভ করে সব কাজে মালিক শ্রমিকের মাঝে কোনো বৈষম্য ইসলাম অনুমোদন করে না। শ্রমিকের সঙ্গে সদ্ব্যবহার করা, তার প্রাপ্য যথাযথভাবে এবং যথাসময়ে আদায় করাই শ্রমের মর্যাদা হিসাবে পরিগণিত।

১৯। ‘শ্রমিকের গায়ের ঘাম শুকানোর আগেই তার পারিশ্রমিক দিয়ে দাও’। হাদিসটি বুঝিয়ে দাও।

উত্তর : উল্লিখিত হাদিস দ্বারা মহানবী (সা.) দ্রুত শ্রমিকের পারিশ্রমিক পরিশোধ করার প্রতি জোর তাগিদ দিয়েছেন। উল্লিখিত হাদিসটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে, শ্রমিক যখন কাজ করবে তখন কাজ শেষ করার সঙ্গে সঙ্গে তাকে তার পারিশ্রমিক দিয়ে দিতে হবে। পারিশ্রমিক দিতে অকারণে বিলম্ব করা যাবে না, শ্রমিকদের সঙ্গে উত্তম ব্যবহার করতে হবে। অবশ্যই তাদের ন্যায্যমূল্য দিতে হবে। রাসূল (সা.) উল্লিখিত হাদিস দ্বারা শ্রমিককে উপযুক্ত এবং যথাসময়ে পারিশ্রমিক দেওয়ার ব্যাপারে গুরুত্বারোপ করেছেন।

২০। ইলম বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : ইলম অর্থ জ্ঞান, জানা, অবগত হওয়া, বিদ্যা ইত্যাদি। ইসলামি পরিভাষায় ইলম হলো কোনো বস্তুর প্রকৃত অবস্থা উপলব্ধি করা অর্থাৎ কোনো বিষয়ের যথাযথ ও যাবতীয় তত্ত্ব ও তথ্যানুসারে সম্যক জ্ঞান অর্জন করাকে বলা হয় ইলম। অন্যর কথায় ইলম হলো নবীর মাধ্যমে লব্ধ জ্ঞান যা মানুষ বুদ্ধির দ্বারা আবিষ্কার করতে পারে না অর্থাৎ যে ইলম মানব হৃদয়ে তাওহিদের প্রেরণা জাগায় এবং নিজের মধ্যে আল্লাহ প্রেম ও আল্লাহ ভীতি সঞ্চার করে তাই ইলম বা জ্ঞান।

২১। ইসলামে ইলম গুরুত্বপূর্ণ কেন?

উত্তর : ইলম বা জ্ঞান অর্জন করা ফরজ। ইলম হলো কোনো বস্তুর প্রকৃত অবস্থা উপলব্ধি করা। ইসলামে ইলমের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রতিটি মুসলিম কার আনুগত্য করবে এবং কীভাবে করবে, কার নিকট আÍসমর্পণ করবে এবং কীভাবে করবে, তা অবশ্যই জানতে হবে। ইলম ব্যতীত তা জানা যাবে না। এজন্য ইসলামে ইলম গুরুত্বপূর্ণ।

২২। শিক্ষককে শ্রদ্ধা করতে হবে কেন?

উত্তর : যিনি আমাদের শিক্ষা দেন তিনি শিক্ষক। পিতা-মাতার পরেই শিক্ষকের অবস্থান, তাই তাদের শ্রদ্ধা করতে হবে।

শিক্ষক হলেন আদর্শ জাতি গঠনের কারিগর। শিক্ষকরা শিক্ষার্থীদের ধর্মীয় নিয়ম-কানুন, আদব-কায়দা, শিষ্টাচার, বিনয়, নম্রতা, নিয়মানুবর্তিতা ইত্যাদি শিক্ষা দেন। ফলে শিক্ষার্থী আদর্শ মানুষ হিসাবে গড়ে ওঠে। তা ছাড়া পুত্র ও পিতার মাঝে যেমন উত্তরাধিকারের সম্পর্ক আছে, ছাত্র-শিক্ষকের মাঝেও তেমন সম্পর্ক বিদ্যমান। তাই শিক্ষককে শ্রদ্ধা করা উচিত।

২৩। একজন ভালো শিক্ষক ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হবেন কীভাবে?

উত্তর : পৃথিবীর সবচেয়ে সম্মান ও মর্যাদার পেশা হলো শিক্ষকতা। পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ পেশার লোকের বৈশিষ্ট্যগুলো শ্রেষ্ঠ হওয়া প্রয়োজন। একজন ভালো শিক্ষক ব্যক্তিত্বসম্পন্ন হবেন নিুোক্তভাবে-

১. পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবেন, ২. শালীন, মার্জিত ও ব্যক্তিত্বরক্ষাকারী পোশাক পরিধান করবেন, ৩. বিশুদ্ধ উচ্চারণ ও প্রকাশ ভঙ্গির অধিকারী হবেন, ৪. মানসিক ভারসাম্য বজায় রাখবেন, ৫. নিয়মনীতির ক্ষেত্রে কঠোর হবেন, ৬. সুস্থ মন ও দেহের অধিকারী হবেন।

২৪. শিক্ষা বলতে কী বোঝায়?

উত্তর : শিক্ষা জাতির মেরুদণ্ড। শিক্ষাহীন জাতি মেরুদণ্ডহীন প্রাণীর মতো। সঞ্চিত জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতাকে নিজের জীবনে সফলভাবে প্রয়োগ করাকে শিক্ষা বলে। শিক্ষা মানুষকে প্রকৃত মানুষ হতে সাহায্য করে এবং মানবহƒদয়কে অজ্ঞতা ও অন্ধকার থেকে মুক্ত করে জ্ঞানের আলোয় উদ্ভাসিত করে। শিক্ষা বলতে আমরা বুঝি মানুষের শরীর, মন ও আত্মার সমন্বিত বিকাশ সাধন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন