পঞ্চম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়
jugantor
পঞ্চম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

  আফরোজা বেগম  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরা, ঢাকা

আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

প্রশ্ন : বাড়িতে কীভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে তোমার বন্ধুকে কী বলবে?

উত্তর : বাড়ি যে নিরাপদ স্থান তা ভাবার কোনো কারণ নেই। বাড়িকে নিরাপদ করতে হলে কিছু নিরাপদ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

বাড়িতে যেভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে আমি আমার বন্ধুকে নিচের পরামর্শগুলো দেব।

* ছুরি, কাঁচিজাতীয় ধারালো জিনিস সাবধানে ব্যবহার করতে হবে।

* খালি পায়ে বা ভেজা হাতে বৈদ্যুতিক তার ধরা যাবে না।

* ওষুধ ও কীটনাশকের গায়ে স্পষ্ট করে লিখে রাখতে হবে যেন ভুলবশত কেউ খেয়ে না ফেলে

* গ্যাসের চুলা ও বিদ্যুৎ ব্যবহারের পর বন্ধ রাখতে হবে।

* আগুন ব্যবহারে সতর্ক থাকা।

* অপরিচিতদের পরিচয় জেনে ঘরের দরজা খুলতে হবে।

* বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা বক্স রাখতে হবে।

সুতরাং, বাড়ি দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষার জন্য তথা নিরাপদ থাকার জন্য আমি ওপরের নিয়মগুলো মেনে চলব ও আমার বন্ধুকেও এগুলো মেনে চলার পরামর্শ দেব।

প্রশ্ন : রাস্তায় কীভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে তোমার বন্ধুকে কী বলবে?

উত্তর : আমরা কখনো কখনো রাস্তায় দুর্ঘটনায় পড়ি। অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের তুলনায় বাংলাদেশের সড়ক দুর্ঘটনার পরিমাণ অনেক বেশি। রাস্তার বিভিন্ন দুর্ঘটনায় প্রতি বছর অকালে অনেক মূল্যবান প্রাণ ঝরে যায় তাই রাস্তায় নিরপদ থাকার জন্য আমি আমার বন্ধুকে নিচের পরামর্শগুলো দেব।

* আমরা রাস্তার মাঝখান দিয়ে না হেঁটে ফুটপাত দিয়ে হাঁটব।

* রাস্তা পারাপারে ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করব।

* যেখানে ওভারব্রিজ নেই সেখানে রাস্তার দু’পাশে ভালো করে দেখে জেব্রাক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হব।

* অনেক সময় গাড়ি, বাস ও ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন অদক্ষ চালক দিয়ে ট্রাফিক আইন না মেনে ওভারটেকিংসহ নানা বিপজ্জনকভাবে গাড়ি চালানো হয়। তাই আমাদের পথ চলার সময় অসতর্ক বা বেখেয়ালি থাকলে চলবে না। বিভিন্ন যানবাহনের ক্ষেত্রে আমাদের বিশেষ সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন।

* দৌড়ে রাস্তা পার হওয়া যাবে না।

* হেড ফোন ব্যবহার করে পথ চলা যাবে না।

* মোবাইলে কথা বলতে বলতে পথ চলা বা ফেসবুক চালাতে চালাতে পথ চলা যাবে না।

* পথ চলার তিনটি সাধারণ নিয়ম মেনে চলতে হবে।

* প্রয়োজনে ট্রাফিক পুলিশের সাহায্য নিতে হবে।

সুতরাং, রাস্তায় পথ চলার সময় আমাদের নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

গণতান্ত্রিক মনোভাব

প্রশ্ন : বিদ্যালয়ে এমন দুটি কাজের কথা উল্লেখ কর যেখানে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

উত্তর : আমরা প্রতিদিন বিভিন্ন রকম কাজ করি। এসব কাজ করতে আমাদের অনেক সময় নানা রকম সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় গণতান্ত্রিক মনোভাব দেখানো উচিত। গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিতে হয় বিদ্যালয়ের এমন দুটি কাজ নিুরূপ-

* দলনেতা বা শ্রেণিনেতা বা ক্যাপ্টেন নির্বাচনের ক্ষেত্রে

* শ্রেণিকক্ষ সাজানোর ব্যাপারে

প্রশ্ন : বাড়িতে এমন দুটি কাজের কথা উল্লেখ কর যেখানে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

উত্তর : বাড়িতে আমাদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে একে অপরের মতামত শোনা প্রয়োজন। বাড়িতে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় এমন দুটি কাজের কথা নিচে উল্লেখ করা হলো-

* আমরা বাড়িতে যে খাবারটি খেতে চাই।

* উৎসব অনুষ্ঠানে যা করব বা যেভাবে আমরা ঘর সাজাব

প্রশ্ন : বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ উল্লেখ কর।

উত্তর : বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক বিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ নিচে দেওয়া হলো-

* প্রথমে শিক্ষার্থীদের মতামত নেওয়া

* তারপর অভিভাবকদের মতামত নেওয়া

* তৃতীয় ধাপে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মতামত নেওয়া

* চতুর্থ ধাপে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি সবগুলো মতামত মূল্যায়ন করে সঠিক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে।

সুতরাং, বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ হলো

শিক্ষার্থী š অভিভাবক š শিক্ষক ম্যানেজিং কমিটি

পঞ্চম শ্রেণির বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

 আফরোজা বেগম 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক, উত্তরা হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, উত্তরা, ঢাকা

আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

প্রশ্ন : বাড়িতে কীভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে তোমার বন্ধুকে কী বলবে?

উত্তর : বাড়ি যে নিরাপদ স্থান তা ভাবার কোনো কারণ নেই। বাড়িকে নিরাপদ করতে হলে কিছু নিরাপদ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

বাড়িতে যেভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে আমি আমার বন্ধুকে নিচের পরামর্শগুলো দেব।

* ছুরি, কাঁচিজাতীয় ধারালো জিনিস সাবধানে ব্যবহার করতে হবে।

* খালি পায়ে বা ভেজা হাতে বৈদ্যুতিক তার ধরা যাবে না।

* ওষুধ ও কীটনাশকের গায়ে স্পষ্ট করে লিখে রাখতে হবে যেন ভুলবশত কেউ খেয়ে না ফেলে

* গ্যাসের চুলা ও বিদ্যুৎ ব্যবহারের পর বন্ধ রাখতে হবে।

* আগুন ব্যবহারে সতর্ক থাকা।

* অপরিচিতদের পরিচয় জেনে ঘরের দরজা খুলতে হবে।

* বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা বক্স রাখতে হবে।

সুতরাং, বাড়ি দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষার জন্য তথা নিরাপদ থাকার জন্য আমি ওপরের নিয়মগুলো মেনে চলব ও আমার বন্ধুকেও এগুলো মেনে চলার পরামর্শ দেব।

প্রশ্ন : রাস্তায় কীভাবে নিরাপদ থাকা যায় সে সম্পর্কে তোমার বন্ধুকে কী বলবে?

উত্তর : আমরা কখনো কখনো রাস্তায় দুর্ঘটনায় পড়ি। অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশের তুলনায় বাংলাদেশের সড়ক দুর্ঘটনার পরিমাণ অনেক বেশি। রাস্তার বিভিন্ন দুর্ঘটনায় প্রতি বছর অকালে অনেক মূল্যবান প্রাণ ঝরে যায় তাই রাস্তায় নিরপদ থাকার জন্য আমি আমার বন্ধুকে নিচের পরামর্শগুলো দেব।

* আমরা রাস্তার মাঝখান দিয়ে না হেঁটে ফুটপাত দিয়ে হাঁটব।

* রাস্তা পারাপারে ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করব।

* যেখানে ওভারব্রিজ নেই সেখানে রাস্তার দু’পাশে ভালো করে দেখে জেব্রাক্রসিং দিয়ে রাস্তা পার হব।

* অনেক সময় গাড়ি, বাস ও ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন অদক্ষ চালক দিয়ে ট্রাফিক আইন না মেনে ওভারটেকিংসহ নানা বিপজ্জনকভাবে গাড়ি চালানো হয়। তাই আমাদের পথ চলার সময় অসতর্ক বা বেখেয়ালি থাকলে চলবে না। বিভিন্ন যানবাহনের ক্ষেত্রে আমাদের বিশেষ সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন।

* দৌড়ে রাস্তা পার হওয়া যাবে না।

* হেড ফোন ব্যবহার করে পথ চলা যাবে না।

* মোবাইলে কথা বলতে বলতে পথ চলা বা ফেসবুক চালাতে চালাতে পথ চলা যাবে না।

* পথ চলার তিনটি সাধারণ নিয়ম মেনে চলতে হবে।

* প্রয়োজনে ট্রাফিক পুলিশের সাহায্য নিতে হবে।

সুতরাং, রাস্তায় পথ চলার সময় আমাদের নিরাপত্তা সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

গণতান্ত্রিক মনোভাব

প্রশ্ন : বিদ্যালয়ে এমন দুটি কাজের কথা উল্লেখ কর যেখানে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

উত্তর : আমরা প্রতিদিন বিভিন্ন রকম কাজ করি। এসব কাজ করতে আমাদের অনেক সময় নানা রকম সিদ্ধান্ত নিতে হয়। এসব সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় গণতান্ত্রিক মনোভাব দেখানো উচিত। গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নিতে হয় বিদ্যালয়ের এমন দুটি কাজ নিুরূপ-

* দলনেতা বা শ্রেণিনেতা বা ক্যাপ্টেন নির্বাচনের ক্ষেত্রে

* শ্রেণিকক্ষ সাজানোর ব্যাপারে

প্রশ্ন : বাড়িতে এমন দুটি কাজের কথা উল্লেখ কর যেখানে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

উত্তর : বাড়িতে আমাদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে একে অপরের মতামত শোনা প্রয়োজন। বাড়িতে গণতান্ত্রিক চর্চার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় এমন দুটি কাজের কথা নিচে উল্লেখ করা হলো-

* আমরা বাড়িতে যে খাবারটি খেতে চাই।

* উৎসব অনুষ্ঠানে যা করব বা যেভাবে আমরা ঘর সাজাব

প্রশ্ন : বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ উল্লেখ কর।

উত্তর : বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক বিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ নিচে দেওয়া হলো-

* প্রথমে শিক্ষার্থীদের মতামত নেওয়া

* তারপর অভিভাবকদের মতামত নেওয়া

* তৃতীয় ধাপে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মতামত নেওয়া

* চতুর্থ ধাপে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি সবগুলো মতামত মূল্যায়ন করে সঠিক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করবে।

সুতরাং, বিদ্যালয়ে গণতান্ত্রিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের চারটি ধাপ হলো

শিক্ষার্থী š অভিভাবক š শিক্ষক ম্যানেজিং কমিটি

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন