নবম ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা

বাংলা প্রথমপত্র * ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং

বাংলা প্রথমপত্র

  মুহম্মদ আল মাসুদ ২৩ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সিনিয়র শিক্ষক

মনিপুর উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ, মিরপুর, ঢাকা

মানুষ

-কাজী নজরুল ইসলাম

নিচের অনুচ্ছেদটি পড় এবং প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :

ঘূর্ণিঝড় আইলায় লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় শরণখোলা গ্রাম। এত গ্রামের মানুষ সবকিছু হারিয়ে পথে এসে দাঁড়ায়। চারদিকে সবাই একটু খাবারের জন্য হাহাকার করে। পাগলের মতো একে অন্যের কাছে মিনতি করে খাদ্যের জন্য। কিন্তু কোথাও কোনো খাবার নেই। এ সময় একটি এনজিওর প্রতিনিধি হয়ে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে এগিয়ে আসে অন্তর। সবাই ত্রাণ পেয়ে আবার নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখে। এই সহানুভূতির জন্য গ্রামের সবাই অন্তরের কাজের প্রশংসা করে।

ক. মোল্লা মুসাফিরকে কী বলে গালি দিয়েছিল?

খ. মোল্লা মসজিদে তালা দিয়েছিল কেন?

গ. উদ্দীপকের অসহায় মানুষগুলোর সঙ্গে ‘মানুষ’ কবিতার যে চরিত্রের সাদৃশ্য রয়েছে তা তুলে ধর।

ঘ. অন্তর চরিত্রের মানসিকতায়, মোল্লা ও পুরোহিত প্রশংসিত হতে পারত- মন্তব্যটি বিশ্লেষণ কর।

উত্তর- ক : মোল্লা মুসাফিরকে শালা বলে গালি দিয়েছিল।

উত্তর- খ : নিজের স্বার্থের জন্য মোল্লা গোস্ত-রুটি নিয়ে মসজিদে তালা দিয়েছিল। ক্ষুধার্ত মুসাফির মসজিদে অঢেল খাদ্য দেখে মোল্লার কাছে ক্ষুধা নিবৃত্তির জন্য মিনতি জানায়। কিন্তু মোল্লা মুসাফিরকে অবজ্ঞা করে নামাজ পড়ে কিনা তা জানতে চায়। একজন মানুষকে ক্ষুধার হাত থেকে না বাঁচিয়ে মোল্লা হৃদয়হীনতার পরিচয় দিয়েছে। আর অঢেল খাদ্য নিয়ে স্বার্থরক্ষায় সচেষ্ট হয়েছে। মোল্লা খাদ্য নিয়ে মসজিদে তালা দিয়েছিল।

উত্তর- গ : উদ্দীপকের অসহায় ক্ষুধার্ত মানুষগুলোর সঙ্গে ‘মানুষ’ কবিতায় মুসাফিরের সাদৃশ্য রয়েছে। ‘মানুষ’ কবিতায় সাম্যের কবি কাজী নজরুল ইসলাম দেখিয়েছেন ধর্মের দোহাই দিয়ে কীভাবে মানুষ মানুষকে অবজ্ঞা করে। কবিতায় নিরন্ন অসহায় এক ব্যক্তি সাতদিন খেতে না পেয়ে হাত পাতে পুরোহিতের কাছে। কিন্তু পুরোহিত তার কোনো কথা না শুনে দরজা বন্ধ করে দেয়। আবার ক্ষুধার্ত মুসাফিরকে মসজিদের মোল্লা নামাজ না পড়ার অপরাধে তাড়িয়ে দেয়। একজন ক্ষুধার্ত অসহায় মানুষের আর্তনাদ তাদের মন গলাতে পারেনি। পুরোহিত ও মোল্লা দু’জনই ভুলে যায় জগতের সর্বশ্রেষ্ঠ মানবধর্মের কথা।

উদ্দীপকে প্রাকৃতিক দুর্যোগে শরণখোলা গ্রামবাসী সবকিছু হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে যায়। তারা মানুষের কাছে উম্মাদের মতো ক্ষুধা নিবারণের জন্য খাদ্য চাইতে থাকে। তাদের কাছে তখন ক্ষুধা নিবারণের চেষ্টা সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায়। মুসাফিরের মতো শরণখোলা গ্রামের মানুষগুলোও মিনতি করে কোথাও খাবার পায়নি। তাই বলা যায়, উদ্দীপকের অসহায় মানুষের সঙ্গে কবিতায় বর্ণিত ক্ষুধার্ত মুসাফিরের সাদৃশ্য রয়েছে।

উত্তর- ঘ : উদ্দীপকের অন্তরের মতো যাদি ‘মানুষ’ কবিতার পুরোহিত ও মোল্লা মানবিকতা সম্পন্ন হতো তবে তারাও সবার প্রশংসার পাত্র হতে পারতো। ‘মানুষ’ কবিতায় কবি মানুষের প্রতি সহানুভূতিশীল আচরণের মধ্যেই পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ধর্ম মানবধর্ম রয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।

উপবাসী মানুষটি ক্ষুধায় কাতর হয়ে ক্ষুধা নিবৃত্তির জন্য বহু আশা করে মন্দির ও মসজিদের অভিমুখে গেলেও তার ক্ষুধা নিবৃত্তি ব্যবস্থা হয়নি।

সে প্রথমে মন্দিরের পুরোহিতের নিকট ক্ষুধার কথা জানায় কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

এরপর সে যায় মসজিদের মোল্লার কাছে। কিন্তু মোল্লাও তাকে ফিরিয়ে দেয়। মূলত তাদের দু’জনই ধর্মের মূল বিষয় যে মানবতা ও মানবকল্যাণ তা ভুলে গিয়েছে। উদ্দীপকের অন্তর মানবতাবোধে তাড়িত হয়ে মানুষের সেবা করেছে।

প্রকৃতিক দুর্যোগের আঘাতে অসহায় হয়ে পড়ে শরণখোলাবাসী। তাদের বাঁচাতে দেবদূতের মতো এ গিয়ে আসে এনজিও কর্মী অন্তর। এ মহৎ কাজের জন্য সে সবার নিকট প্রশংসিত হয়।

কবিতায় মোল্লা ও পুরোহিত উদ্দীপকের অন্তরের বিপরীত চরিত্রের অধিকারী। তারা যদি অন্তরের মতো সবার ঊর্ধ্বে মানবতাকে স্থান দিতো তবে তারাও অন্তরের মতো প্রশংসিত হতো।

ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং

মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান সরকার

সিনিয়র শিক্ষক, মনিপুর উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ, মিরপুর, ঢাকা

ঝুঁকি ও অনিশ্চয়তা

[পূর্বে প্রকাশিত অংশের পর]

৩৬. প্রত্যাশিত আয় থেকে প্রকৃত আয়ের কোন উপাদানটি বেশি হলে ঝুঁকি বাড়ে?-বিচ্যুতি।

৩৭. নিট মুনাফা কী?

-(বিক্রয় - করসহ সব খরচ)।

৩৮. সুদ হারের ঝুঁকি কাকে বলে?

-যেসব বিনিয়োগকারী বন্ড ডিবেঞ্চার ইত্যাদি ক্রয় করে তাদেরকে যে ঝুঁকি মোকাবেলা করতে হয় তাকে সুদ হারের ঝুঁকি বলে।

৩৯. তারল্য ঝুঁকি কীসের উপর নির্ভর করে?

-যে বাজারে শেয়ার, বন্ড, ডিবেঞ্চার ইত্যাদি ক্রয়-বিক্রয় হয়, সে বাজারের আকার ও কাঠামোর ওপর।

৪০. কোনটি পরিমাপ করা যায়? -ঝুঁকি।

৪১. কোম্পানির অথায়নের উৎস কয়টি? -২টি

৪২. বিনিয়োগকারীর ঝুঁকি কত প্রকার?

-২ প্রকার।

৪৩. কখন বিনিয়োগের বাজার মূল্য বাড়ে?

-সুদের হার কমে গেলে।

৪৪. ব্যবসায় চালানোর জন্য কোন ব্যয়ের সৃষ্টি হয়? -পরিচালনা ব্যয়ের।

৪৫. অফিস ভাড়া ব্যয়কে কী বলা হয়?

-পরিচালনা ব্যয়।

মূলধনি আয়-ব্যয় প্রাক্কলন

অধ্যায়-৫

১. ব্যবসায়ের পণ্য যদি বৈচিত্র্যপূর্ণ হয় তাহলে কী হবে? -ঝুঁকি বণ্টিত হয়ে যাবে।

২. বাট্টার হার কমলে কী হয়?

-বর্তমান মূল্য বেশি হবে।

৩. স্থায়ী সম্পত্তি সম্পর্কিত সকল মূলধন বাজেটিং সিদ্ধান্তের জন্য কোনটি প্রয়োজন?

-বড় অংকের তহবিল।

৪. মূলধন খরচ প্রয়োগের পরিধি কত?

-প্রকল্প মূল্যায়ন পর্যন্ত।

৫. ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কোন ধরনের তহবিল উৎস দরকার?

-দীর্ঘমেয়াদি।

৬. কর্মচারীর বেতন কী ধরনের খরচ?

-চলতি খরচ।

৭. দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের বাজেটিং প্রক্রিয়া প্রয়োগ জড়িত ধাপ কয়টি? -৪টি।

৮. পে-ব্যাক পদ্ধতিতে কোন প্রকল্পটি গ্রহণযোগ্য।

-যে প্রকল্পে পে-ব্যাক সময় কম।

৯. পে-ব্যাক পদ্ধতির অসুবিধা কোনটি?

-এটি মুনাফা অর্জন ক্ষমতা নির্দেশ করে না।

১০. সাধারণত ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ঋণ মূলধন বাবদ সুদ কর পূর্ব মুনাফা থেকে বাদ দিয়ে করযোগ্য মুনাফা নির্ধারণ করে থাকে। এর ফলে কী হয়?

-কর কম দিতে হয়।

১১. ব্যবসায়ের জন্য পর্যাপ্ত আয় নিশ্চিত করতে পারে কোনটি? -ভালো বিনিয়োগ।

১২. গড় মুনাফা পদ্ধতিকে নির্ভরযোগ্য মনে না করার কারণ কী?

-নগদ প্রবাহকে সমতুল্য বিবেচনা করায়।

১৩. কোনটি নগদ প্রবাহ বৃদ্ধির সঙ্গে জড়িত?

-ব্যবসায় সম্প্রসারণ।

১৪. পে-ব্যাক সময় পদ্ধতিতে কোনটি গুরুত্ব সহকারে দেখা হয়? -পে-ব্যাক সময় যত কম।

১৫. বিনিয়োগ-সিদ্ধান্তের সঠিক মূল্যায়নে কী প্রয়োজন? -নীতিমালা।

১৬. গড় মুনাফার হার পদ্ধতিতে নগদ প্রবাহের পরিবর্তে কোনটি ব্যবহার করা হয়?

-গড় মোট মুনাফা।

১৭. মূলধন বাজেটিং পদ্ধতিসমূহের কাজ কী?

-লাভজনক বিনিয়োগ প্রয়োজন।

১৮. আয় থেকে ব্যয় বাদ দিলে কী পাওয়া যায়?

-মোট মুনাফা।

১৯. নগদ প্রবাহ যত দেরীতে পাওয়া যায় তার বর্তমান মূল্য তত কম হয় কেন? -অর্থের সময়ের মূল্যের কারণে।

২০. গড় মুনাফার হার পদ্ধতিতে নগদ প্রবাহের পরির্বতে বিবেচনা করা হয় কোনটি?

-প্রত্যাশিত নিট মুনাফা।

২১. ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের সাফল্যের সঙ্গে বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের সম্পর্ক কী?

-যে কোনো বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের ওপর ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের সাফল্য নির্ভর করে।

২২. কোনটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের পরিচালনার জন্য স্থায়ী সম্পত্তি হিসেবে গণ্য হয়? -যন্ত্রপাতি ক্রয়।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter