সুষ্ঠুভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগের ব্যবস্থা থাকতে হবে

  মো. জামাল নাসের ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ইউরোপের আর্থিক অবস্থা কিছুটা মন্দা হলেও এশিয়ার বিভিন্ন রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক উন্নয়নের পথে ছুটে চলা অব্যাহত রয়েছে। সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া উন্নতির প্রায় শীর্ষে পৌঁছে গেছে।

চীন এখন সারা বিশ্বের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উন্নয়নের শীর্ষস্থান ছুঁই ছুঁই করছে। ১৯৭৮ সালে চীনের জিডিপি ছিল মাত্র ১৫ হাজার কোটি ডলার। এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ কোটি ডলার।

আশির দশকের আগে চীনে কোনো বিলিয়নিয়ার ছিল না। এখন সেখানে ৬০০ বিলিয়নিয়ার, যা বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। শুধু তা-ই নয়, চীনে বর্তমানে মিলিয়নিয়ারের সংখ্যা ২০ লাখ।

এশিয়ার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির এ সময়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি অগ্রগামী হবে, দেশ পর্যায়ক্রমে উন্নত হবে- এটা অস্বাভাবিক নয়। বর্তমানে উন্নয়নের যে অবস্থানে আছে বাংলাদেশ, সে অবস্থানে আরও আগে আসা অসম্ভব ছিল না।

কিন্তু রাজনৈতিক ক্ষেত্রে যদি বিরোধী দলের মনোভাব এমন হয়- ‘একদিনও শান্তিতে থাকতে দেব না,’ বছরের এক-চতুর্থাংশ বা তারও বেশি কর্মদিবস যদি হরতালের কারণে স্থবির থাকে; তবে অর্থনৈতিক উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে- এটাই স্বাভাবিক। বর্তমানে হরতাল-অবরোধ না থাকায় অর্থনৈতিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হচ্ছে। যদিও অবকাঠামো উন্নয়ন সব সরকারের আমলে হচ্ছে। কারও আমলে বেশি, কারও আমলে কম।

কারও আমলে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর হয়েছে, কারও আমলে সারা দেশে ৪৬৪টি থানা একসঙ্গে উপজেলায় পরিণত হয়েছে, কারও আমলে মেঘনা-গোমতি সেতু, কারও আমলে যমুনা সেতু, আবার কারও আমলে পদ্মা সেতু হচ্ছে।

তবে এর পাশাপাশি মাথাপিছু ঋণের বোঝাও বেড়েছে। ২০০৬ সালে আমাদের মাথাপিছু ঋণের পরিমাণ ছিল ৬ হাজার টাকা; বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০ হাজার টাকা।

অর্থাৎ ঋণের বোঝা বেড়েছে ১০ গুণ। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে গণতান্ত্রিক অধিকার তথা ভোটাধিকার প্রয়োগের যথাযথ ব্যবস্থার গুরুত্ব কম নয়।

সঠিকভাবে সরকার পরিচালনা না করলে জনগণ ভোটের মাধ্যমে তাদের বর্জন করার সুযোগ পায়। তাই মানুষের ভোটাধিকার থাকলে যারাই ক্ষমতায় আসুক, মানুষের জীবনমান উন্নয়নে সচেষ্ট হবে।

ভোটাধিকার না থাকলে জনগণের মূল্যায়নও হবে না, তা বলাই বাহুল্য। তাই নির্বাচনে জনগণ যাতে সুষ্ঠুভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, সে ব্যবস্থা করা উচিত।

বাঘমারা, লালমাই, কুমিল্লা

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত