পুলিশ সপ্তাহে আমাদের প্রত্যাশা

  মুনযির আকলাম ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পুলিশ সপ্তাহে আমাদের প্রত্যাশা

আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশগুলোয় পুলিশ বাহিনীর দক্ষতা ও দায়িত্ববোধের প্রশংসা করতে হয়। সেসব দেশে নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্য দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করছেন তারা। আমাদের দেশের অধিবাসীদেরও পুলিশ বাহিনীর ছত্রতলে নিরাপদে থাকার কথা।

অথচ দুঃখজনক হলেও সত্য, দেশের সাধারণ মানুষের বিরাট অংশের মধ্যে পুলিশ বাহিনী সম্পর্কে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে। এখন শাসক মহলের লোকজন নিরাপত্তা নামের চাদরটি নিজের গায়ে জড়িয়েছেন পুলিশ বাহিনী কর্তৃক। এ প্রেক্ষাপটে প্রশ্ন উঠতে পারে- পুলিশ বাহিনী কতটুকু নিরাপত্তা দিচ্ছে সাধারণ মানুষকে?

রাষ্ট্র যাদের, সেই জনগণের আপনজন হওয়ার কথা পুলিশ বাহিনীর। বাস্তবে তারা জনগণের বন্ধু হতে পারেননি আজও। কতিপয় পুলিশ সদস্যের কর্মকাণ্ডের কারণে জনগণের কাছে অনেক ক্ষেত্রে আতঙ্কের কারণ হয়ে উঠেছে পুলিশ বাহিনী।

অবাক হতে হয়, যখন পুলিশ বাহিনীর গ্রেফতার ও হয়রানি সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে পরিচালিত হয় এবং ক্ষেত্রবিশেষ স্বনামধন্য ব্যক্তির ওপরও। এ ছাড়া আছে পাইকারি গ্রেফতার। এই পাইকারি গ্রেফতার ও হয়রানি কোনোভাবেই কাম্য নয়, যৌক্তিকও নয়।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) কর্তৃক পরিচালিত জরিপ অনুযায়ী দেশে বিদ্যমান সেবা খাতের মধ্যে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত পুলিশ বাহিনী। সাইবার অপরাধের শিকার হয়ে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে যাওয়াদের ৫৪ শতাংশই পুলিশ বাহিনীর ভূমিকায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বলে আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক গবেষণায় উঠে এসেছে।

কখনও কখনও পুলিশ বাহিনীর কতিপয় সদস্য সীমা লঙ্ঘন করে থাকেন, যা হতে পারে না এবং হওয়া উচিত নয়। তাদের কাছ থেকে সেবা-সহযোগিতা পাওয়া জনগণের নাগরিক অধিকার।

সেই অধিকার সংবিধান নিশ্চিত করেছে। পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে আমাদের প্রত্যাশা থাকবে, এ অধিকার খর্ব করতে অযাচিত ও অসামঞ্জস্যপূর্ণ কোনো কাজ করবে না পুলিশ বাহিনী। এত সব অত্যাধুনিক আয়োজন, এত বড় বাজেট দিয়ে যে পুলিশ বাহিনী গড়ে তোলা হচ্ছে, তা সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা ও শান্তি নিশ্চিত করবে, এটাই প্রত্যাশা।

কোরপাই, কুমিল্লা

[email protected]

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×