চিকিৎসা ব্যয় আকাশছোঁয়া

  মতিউর মহসিন ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চিকিৎসা ব্যয় আকাশছোঁয়া

দুধ ও দইয়ে মারাত্মক ভেজাল মিশ্রিত করে বিক্রি করা হচ্ছে বলে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সরকারের ন্যাশনাল ফুড সেফটি ল্যাবরেটরি গাভির দুধের ৯৬ শতাংশ নমুনায় পেয়েছে অণুজীব!

নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের বেশিরভাগই যখন ভেজালে ভরা, তখন সুস্থ থাকা কি সম্ভব? কিন্তু অসুস্থ হওয়াটাই যেন আরও বড় বিপত্তি। ডাক্তার দেখানো থেকে শুরু করে ওষুধ কেনা পর্যন্ত ব্যয়ভার বহন করতে না পেরে কত শত রোগ ও যন্ত্রণা শরীরে বয়ে বেড়াচ্ছে মানুষ, তার কোনো হিসাব নেই। দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থাটাই যেন শুধু উচ্চবিত্তদের জন্য।

একজন দিনমজুরের ৫০০ টাকা উপার্জন করতে দিন পার হয়ে যায়। অথচ সাধারণ একজন ডাক্তারের ভিজিট ৫০০ টাকার নিচে নেই। অনেকের ফি আবার ২০০০ টাকাও। তাছাড়া রয়েছে নানারকম অপ্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও ওষুধের বাহার। এজন্য গ্রামের হাতুড়ে ডাক্তার ও অল্পশিক্ষিত ফার্মাসিস্টরা হয়ে উঠছেন নিুআয়ের মানুষের চিকিৎসার শেষ ভরসা।

হাতুড়ে ডাক্তাররা রোগ না জেনে আনুমানিক ওষুধ দিয়ে রোগ আরও বাড়িয়ে দিচ্ছে প্রতিনিয়ত। অন্যদিকে সাধারণ মানুষের অন্যতম ভরসা সরকারি হাসপাতালগুলোর বেহাল দশা।

নানা অনিয়ম ও তদারকির অভাবে সুফল পাচ্ছে না নিুআয়ের মানুষ। সরকারি হাসপাতালগুলোর অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে সুস্থ মানুষও অসুস্থ হয়ে পড়ে। সে সুবাদে নগরগুলোতে গড়ে উঠছে অসংখ্য বেসরকারি হাসপাতাল।

এসব হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যয় দেখলে চোখ কপালে ওঠে যায়। নিুআয়ের অনেক মানুষ চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে গিয়ে সর্বস্ব হারাচ্ছে। এমনকি চিকিৎসা ব্যয়ের জন্য রাস্তায় মানুষের কাছে হাত পাতা লোকের সংখ্যাও কম নয়। ফলে চিকিৎসা পেশাকে আজকাল কসাইয়ের সঙ্গে তুলনা করছে কেউ কেউ।

অথচ চিকিৎসা একটি মহান পেশা। চিকিৎসা মানুষের মৌলিক চাহিদাগুলোর অন্যতম। চিকিৎসার মতো মানবিক স্পর্শকাতর বিষয়টি নিয়েও রীতিমতো ব্যবসা করা হচ্ছে।

কিছু অসাধু ডাক্তার আর হাসপাতালগুলোর খামখেয়ালিপনায় পুরো চিকিৎসা ব্যবস্থায় বিরাজ করছে নানা বিশৃঙ্খলা। চেষ্টা করলে চিকিৎসা ব্যয় সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসা সম্ভব। সাধারণ মানুষের চিকিৎসা ব্যয়ের বোঝা ও দুর্ভোগ লাঘবে সরকার দ্রুত পদক্ষেপ নেবে, এটাই কাম্য।

শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×