সরকারি চিকিৎসাসেবার মান বাড়াতে হবে

  কল্পনা আক্তার ২০ মার্চ ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সরকারি চিকিৎসাসেবার মান বাড়াতে হবে

বাংলাদেশের মানুষের অন্যতম মৌলিক অধিকার হল চিকিৎসা; অথচ আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষ এ মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত। তারা সঠিক সময়ে পাচ্ছে না তাদের প্রাপ্ত অধিকার। আমাদের দেশের গ্রামাঞ্চলের চিকিৎসা ব্যবস্থার কথা বাদই দিলাম।

বাংলাদেশের প্রাণকেন্দ্রে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কথাই বলি- জনসাধারণ অনেক আশা ও ভরসা নিয়ে সেখানে যায় সুস্থতার আশায়। কিন্তু দেখা যায়, মানুষ সেখানে গিয়ে আরও বেশি অসুস্থ হয়। গরম-শীত বলে কোনো কথা নেই, লম্বা লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকতে হয় ঘণ্টার পর ঘণ্টা। আর ডাক্তাররা চেম্বারে বসে গল্প করে চা-নাশতা করে সময় নষ্ট করে।

বাংলাদেশের প্রতিটি সরকারি চাকরির কর্মঘণ্টা সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। অথচ ডাক্তাররা সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত রোগী দেখেন। আর বাকি সময় নিজস্ব চেম্বার বা প্রাইভেট ক্লিনিকে রোগী দেখে থাকেন।

চিকিৎসা ক্ষেত্রেও বৈষম্যের শিকার হতে হয় জনসাধারণকে। ডাক্তাররা উচ্চবিত্ত ও নিম্নবিত্ত দেখে চিকিৎসা করেন। একজন রোগীর প্রকৃত বন্ধু হল ডাক্তার। বন্ধুসুলভ আচরণ করে তারা রোগীর সব সমস্যার কথা শুনবেন; কিন্তু আমাদের দেশের ডাক্তারদের যেন এমন ধৈর্য বা সময় কোনোটাই নেই। তারা হাসপাতালে রোগী দেখার সময় কখনই রোগীর সঙ্গে ভালো আচরণ করেন না।

বিশেষ করে নিম্নশ্রেণীর রোগীদের সঙ্গে। নিম্নশ্রেণীর রোগীরা কিছু বললে তাদেরকে ধমক দিয়ে চুপ করে রাখে ডাক্তাররা। নিম্নবিত্তরা কোথাও সুচিকিৎসা পায় না, তারা সর্বক্ষেত্রে লাঞ্ছিত ও বঞ্চিত হয়। আমাদের দেশের হাসপাতালে নাপা আর আয়োডিন ট্যাবলেট ও ডায়রিয়ার স্যালাইন ছাড়া কোনো ওষুধ পাওয়া যায় না। সরকার থেকে যেসব ওষুধ আসে, সেগুলো তাহলে যায় কোথায়?

দেশের অধিকাংশ গ্রামে কমিউনিটি ক্লিনিক আছে। ইউনিয়ন সাব-সেন্টার আছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স আছে। তারপর জেলা সদর হাসপাতাল আছে, বিভাগীয় হাসপাতাল আছে। মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল আছে।

তবুও রোগীরা বিদেশে যাচ্ছে চিকিৎসার জন্য। কারণ আমাদের দেশে বেসরকারি ও সরকারি চিকিৎসার মান এক নয়। যেখানে বেসরকারি থেকে সরকারি চিকিৎসার মান ভালো হওয়ার কথা; সেখানে পুরোটাই উল্টো। এজন্য বিএমডিসি ও সরকারকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে।

শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ, গ্রিন ইউনিভার্সিটি, ঢাকা

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×