মানুষ তুমি বৃক্ষমুখী হও...

  এমদাদুল হক সরকার ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

১৪ ফেব্রুয়ারি পালিত হল সুন্দরবন দিবস। পৃথিবীর বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন এটি। বাংলাদেশের ফুসফুসখ্যাত এই বন বিশ্ব ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক। সে শুধু অক্সিজেন দিয়েই ক্ষান্ত হয় না; সুন্দরবনের কাঠ, মধুসহ অন্যান্য সম্পদ আহরণ করে হাজারও মানুষ জীবিকা নির্বাহ করছে। প্রতিবছর হাজার হাজার মানুষ বেড়াতে যায় এ বনে। তাছাড়া খুলনা পেপার মিলের প্রধান কাঁচামালও আসে সুন্দরবন থেকে। তাই পরিবেশ, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, ঐতিহ্য, পর্যটন ও অর্থনীতিতে বিশ্বখ্যাত রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আবাসস্থল এ বনের অবদান অনস্বীকার্য।

কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, সুন্দরবন এখন ভালো নেই। প্রাকৃতিক বিপর্যয়, জলবায়ুর পরিবর্তন ও লবণাক্ততা বৃদ্ধিসহ আরও কিছু কারণে দিন দিন আশঙ্কাজনক হারে কমছে এ বনভূমি বৃক্ষরাজি, বিশেষ করে সুন্দরী গাছের সংখ্যা। এরই মধ্যে হারিয়ে গেছে অন্তত ৫৩ হাজার হেক্টর বনভূমির সুন্দরী গাছ। প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও মানুষের আগ্রাসনে বিপর্যয়ের মুখে রয়েছে বিশ্বের একক বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন সুন্দরবন। ক্রমান্বয়ে সুন্দরী গাছ উজাড় হওয়ায় গত ২৫ বছরে ঘন বনের পরিমাণ কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। ফলে একদিকে কমছে বনভূমি, অন্যদিকে বাড়ছে জলাভূমি ও খালি জায়গার পরিমাণ।

১৯৮৯ সালে সুন্দরবনে ঘন বনের পরিমাণ ছিল ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৭৫১ হেক্টর, যা বাংলাদেশের পুরো বনের ৬৩ শতাংশ। ২০১৪ সালে তা কমে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৩০ হাজার ২৩৭ হেক্টরে, যা পুরো বনের ৩৮ শতাংশ। ঘন বনের পরিমাণ কমেছে প্রায় ২৫ শতাংশ। এর মূলে রয়েছে মনুষ্যসৃষ্ট ও জলবায়ুর আগ্রাসন। মনুষ্যসৃষ্ট এ আগ্রাসন কেবল সুন্দরী গাছ ধ্বংসেই সীমাবদ্ধ নেই, বিপর্যয়ের মুখে পড়ছে গোটা সুন্দরবন। বিষ দিয়ে মাছ শিকার, অবাধে গাছ কাটা, বন্যপ্রাণী শিকার, বনের ভেতরের নদীতে নৌযান চালানো ইত্যাদি হচ্ছে মনুষ্যসৃষ্ট আগ্রাসনগুলোর মধ্যে অন্যতম। বনসংলগ্ন এলাকায় প্রকাশ্যেই সুন্দরবনের গাছ বেচাকেনা চলছে। এদিকে সুন্দরবনে বাঘ ও হরিণ শিকারিরা কিছুদিন পরপরই বেপরোয়া হয়ে ওঠে। ফলে বাঘের সংখ্যাও কমছে। অন্যদিকে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সিডর-আইলার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগের কবলে পড়ে গাছপালা ও বন্যপ্রাণী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। একদিকে বেড়েছে নদীভাঙন, অন্যদিকে পলি পড়ে ভরাট হচ্ছে অনেক এলাকা। ফলে ক্রমাগতভাবে কমছে সুন্দরবনের বনভূমির আয়তন, আর বাড়ছে জলাভূমির পরিমাণ। উদ্বেগের বিষয় হল, এত কিছুর পরও প্রসাশন কিংবা বন অধিদফতরের টনক নড়ছে না। সুন্দরবন ভালো থাকলে ভালো থাকবে বাংলাদেশ। দিন দিন যেভাবে বনভূমি ধ্বংস হচ্ছে, সুন্দরবনের দিকে নজর দেয়া অতি জরুরি। কবির ভাষায় বলছি-

মানুষ তুমি গাছের পক্ষে দাঁড়াও

মানুষ তুমি বৃক্ষমুখী হও,

গভীর নিসর্গ তোমাকে অভিবাদন জানাবে।

শিক্ষার্থী, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter