আমি আবরার, আমাকে হত্যা কর!

  খালিদ ফেরদৌস ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নিহত আবরার ফাহাদ। ছবি-ফেসবুক

ছাত্রলীগের সাবেক এক প্রতাপশালী নেতা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন- I am Abrar, kill me. তার রাজনৈতিক অবস্থান থেকে নিঃসন্দেহে এটা সাহসী শুধু নয়, দুঃসাহসী উচ্চারণ।

বর্তমানে তার মতো অসংখ্য মানুষের মুখের দীপ্ত উচ্চারণ এটি বা কোনো কোনো ক্ষেত্রে আকুতি। এমন আওয়াজ সর্বমহল থেকে আসতে হবে। কারণ একজন আবরার তৈরি করতে রাষ্ট্রের প্রায় ৫০ লাখের অধিক টাকা ব্যয় (ব্যয় না বলে এটাকে বিনিয়োগ বলা ভালো) হয়।

সে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেধাবী (এখানে মেধাবী কথাটি মোটেও কথার কথা নয়; যেটা ছাত্রনেতাদের ক্ষেত্রে যত্রতত্র ব্যবহার হয়) ছাত্র। দেশের ছাত্রছাত্রী ও অভিভাবকরা ভালোভাবেই জানেন, বুয়েটে ভর্তি হওয়া কত কঠিন। তারা সেরাদের সেরা। মা-বাবা ভালো করেই জানেন- ছেলেমেয়েদের বুয়েটে ভর্তির জন্য কতটা স্বপ্নবাজ, কতটা শিক্ষানুরাগী, কতটা সঞ্চয় করে কত পয়সা খরচ করতে হয়। আবরারের বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন চোখের জলে বুক ভাসাতে ভাসাতে দেখছে- সাজানো স্বপ্নগুলো কীভাবে চোখের নিমেষে বিলীন হয়ে যায়।

আমার একান্ত নিজস্ব মতামত- বর্তমানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এসব ক্ষেত্রে সঠিকভাবে অবহিত হচ্ছেন না বা তিনি অনুধাবন করতে পারছেন না, মনের অজান্তেই তার দল জনগণ সর্বোপরি দেশের বিরুদ্ধে কিছু কাজ করে ফেলছে; যা ভবিষ্যতে তার এবং তার দলের জন্য বুমেরাং হতে পারে।

খালিদ ফেরদৌস : এমফিল গবেষক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ঘটনাপ্রবাহ : বুয়েট ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত