পিডিবির বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ হবে কবে?
jugantor
পিডিবির বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ হবে কবে?

  জহুরুল ইসলাম ঠান্ডু  

০৭ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অনিয়ম, ঘুষ, দুর্নীতিসহ বিদ্যুৎ চুরির বিষয়টি যেন ওপেন সিক্রেটে পরিণত করেছে জামালপুরের সরিষাবাড়ী পিডিবি অফিস। এখানকার দুর্নীতিবাজ কর্তাব্যক্তিরা তাদের ভালোমানুষির অন্তরালে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

তাদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে কিছু অসৎ কর্মচারী। এ দুর্নীতিবাজরা বিদ্যুৎ চুরির হিসাব মিলাতে গিয়ে সাধারণ গ্রাহকদের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল, যা নিয়ে বিপাকে পড়ছেন গ্রাহকরা। জানা গেছে, বাড়তি ভুতুড়ে বিল পরিশোধের জন্য গ্রাহকদের প্রতি চাপ প্রয়োগসহ মামলার হুমকি দিয়ে নানাভাবে হয়রানি করে আসছে পিডিবি অফিস। পিডিবির এসব দুর্নীতিবাজের মুখোশ উন্মোচন হবে কবে-এটাই হচ্ছে প্রশ্ন।

উল্লেখ্য, আবাসিক-বাণিজ্যিকে নতুন সংযোগ নিতে সরকারি ফি হিসেবে জমা দিতে হয় ১ হাজার ৫০০ টাকা। অথচ এ ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ৫-৭ হাজার টাকা না দিলে মিলে না বিদ্যুতের নতুন সংযোগ। এ ছাড়া এখানকার পিডিবির বিদ্যুৎ সরবরাহের কমান্ড এরিয়ায় ১৪টি স্পটে অসাধু বিদ্যুৎ গ্রাহকরা অটোরিকশা চার্জ করার নামে গ্যারেজ খুলে বসেছে।

এসব গ্যারেজ মালিক প্রথমে দুই তারের বিদ্যুৎ সংযোগের অনুমোদন নেন; পরে পিডিবি অফিসের কর্তাব্যক্তি ও কর্মচারীদের যোগসাজশে মিটার বাইপাস করে ডি-২ তারে (তিন তারের লাইন) লাইনের অবৈধ সংযোগ নেয়।

এ অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে প্রতি রাতে ১৪টি স্পটে একযোগে ৪ শতাধিক অটোরিকশা চার্জ করে আসছে গ্যারেজ মালিকরা। এর পাশাপাশি অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে বেশ কিছু মুরগি খামারেও। এসব অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে নিয়মিত মোটা অঙ্কের মাসোহারা নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। দুঃখজনক হল, তদন্তে এসব অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার পরও বহাল তবিয়তে রয়েছেন অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তা ও এক কর্মচারী, যা অনভিপ্রেত।

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি, দৈনিক যুগান্তর

পিডিবির বিদ্যুৎ চুরি বন্ধ হবে কবে?

 জহুরুল ইসলাম ঠান্ডু 
০৭ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অনিয়ম, ঘুষ, দুর্নীতিসহ বিদ্যুৎ চুরির বিষয়টি যেন ওপেন সিক্রেটে পরিণত করেছে জামালপুরের সরিষাবাড়ী পিডিবি অফিস। এখানকার দুর্নীতিবাজ কর্তাব্যক্তিরা তাদের ভালোমানুষির অন্তরালে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

তাদের সঙ্গে যুক্ত রয়েছে কিছু অসৎ কর্মচারী। এ দুর্নীতিবাজরা বিদ্যুৎ চুরির হিসাব মিলাতে গিয়ে সাধারণ গ্রাহকদের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল, যা নিয়ে বিপাকে পড়ছেন গ্রাহকরা। জানা গেছে, বাড়তি ভুতুড়ে বিল পরিশোধের জন্য গ্রাহকদের প্রতি চাপ প্রয়োগসহ মামলার হুমকি দিয়ে নানাভাবে হয়রানি করে আসছে পিডিবি অফিস। পিডিবির এসব দুর্নীতিবাজের মুখোশ উন্মোচন হবে কবে-এটাই হচ্ছে প্রশ্ন।

উল্লেখ্য, আবাসিক-বাণিজ্যিকে নতুন সংযোগ নিতে সরকারি ফি হিসেবে জমা দিতে হয় ১ হাজার ৫০০ টাকা। অথচ এ ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ৫-৭ হাজার টাকা না দিলে মিলে না বিদ্যুতের নতুন সংযোগ। এ ছাড়া এখানকার পিডিবির বিদ্যুৎ সরবরাহের কমান্ড এরিয়ায় ১৪টি স্পটে অসাধু বিদ্যুৎ গ্রাহকরা অটোরিকশা চার্জ করার নামে গ্যারেজ খুলে বসেছে।

এসব গ্যারেজ মালিক প্রথমে দুই তারের বিদ্যুৎ সংযোগের অনুমোদন নেন; পরে পিডিবি অফিসের কর্তাব্যক্তি ও কর্মচারীদের যোগসাজশে মিটার বাইপাস করে ডি-২ তারে (তিন তারের লাইন) লাইনের অবৈধ সংযোগ নেয়।

এ অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের মাধ্যমে প্রতি রাতে ১৪টি স্পটে একযোগে ৪ শতাধিক অটোরিকশা চার্জ করে আসছে গ্যারেজ মালিকরা। এর পাশাপাশি অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে বেশ কিছু মুরগি খামারেও। এসব অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে নিয়মিত মোটা অঙ্কের মাসোহারা নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। দুঃখজনক হল, তদন্তে এসব অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার পরও বহাল তবিয়তে রয়েছেন অভিযুক্ত দুই কর্মকর্তা ও এক কর্মচারী, যা অনভিপ্রেত।

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি, দৈনিক যুগান্তর