উদ্ভট ধারার জন্মদিন পালন বন্ধ হোক
jugantor
উদ্ভট ধারার জন্মদিন পালন বন্ধ হোক

  মনিরুল হক রনি  

১৩ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও জন্মদিন পালনের রীতি প্রচলিত রয়েছে। তবে ইদানীংকালে উঠতি বয়সের যুবক-যবুতীদের মধ্যে ভিন্ন ধারার জন্মদিন পালন প্রচলিত এ নিয়মনীতিতে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে। জন্মদিন পালনের নামে তারা ‘বার্থডে বয় বা গার্ল’কে রশি দিয়ে গাছে বা খুঁটিতে বেঁধে দূর থেকে পচা ডিম ছুড়তে থাকে। তারপর ডিমসিক্ত গায়ে আটা, ময়দা কিংবা আবির মাখিয়ে ভীষণ তৃপ্তিবোধ করে। যার জন্মদিন সেও এটিকে ঠাট্টাচ্ছলে জন্মোৎসব পালনের উপযুক্ত উপায় হিসেবে মনে করে। কিন্তু এ ধরনের উচ্ছৃঙ্খল, উদ্ভট ও উন্মাদসুলভ উৎসব কখনো জন্মোৎসব হতে পারে না; বরং পচা ডিমের বিকট দুর্গন্ধ এবং এলোপাতাড়ি ডিম নিক্ষেপ বিশেষ করে তা যদি কারও চোখ বা শরীরের বিশেষ স্পর্শকাতর জায়গায় লাগে, তবে তা মারাত্মক হতে পারে।

ভিন্ন ধারার বিকৃত জন্মদিন পালন বাঙালি সংস্কৃতিতে তো নয়ই; বিশ্বের অন্য কোনো জায়গায় আছে কিনা সন্দেহ। উচ্ছৃঙ্খলভাবে জন্মদিন পালন করে সাময়িক আনন্দ পাওয়া গেলেও এটা যে কারও জন্য জীবন সংশয়ের কারণ হতে পারে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কোনো আনন্দ যদি কারও ক্ষতির কারণ হয়, তবে এমন পৈশাচিক আনন্দের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। তাই সন্তানদের জন্মদিন পালনের ব্যাপারে সব পিতামাতা ও অভিভাবককে সচেতন থাকতে হবে। পাশাপাশি এমন উদ্ভট জন্মদিন পালন বন্ধে প্রশাসনের সর্বোচ্চ হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

প্রভাষক, সমাজকর্ম বিভাগ

সাভার সরকারি কলেজ, সাভার, ঢাকা

উদ্ভট ধারার জন্মদিন পালন বন্ধ হোক

 মনিরুল হক রনি 
১৩ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও জন্মদিন পালনের রীতি প্রচলিত রয়েছে। তবে ইদানীংকালে উঠতি বয়সের যুবক-যবুতীদের মধ্যে ভিন্ন ধারার জন্মদিন পালন প্রচলিত এ নিয়মনীতিতে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে। জন্মদিন পালনের নামে তারা ‘বার্থডে বয় বা গার্ল’কে রশি দিয়ে গাছে বা খুঁটিতে বেঁধে দূর থেকে পচা ডিম ছুড়তে থাকে। তারপর ডিমসিক্ত গায়ে আটা, ময়দা কিংবা আবির মাখিয়ে ভীষণ তৃপ্তিবোধ করে। যার জন্মদিন সেও এটিকে ঠাট্টাচ্ছলে জন্মোৎসব পালনের উপযুক্ত উপায় হিসেবে মনে করে। কিন্তু এ ধরনের উচ্ছৃঙ্খল, উদ্ভট ও উন্মাদসুলভ উৎসব কখনো জন্মোৎসব হতে পারে না; বরং পচা ডিমের বিকট দুর্গন্ধ এবং এলোপাতাড়ি ডিম নিক্ষেপ বিশেষ করে তা যদি কারও চোখ বা শরীরের বিশেষ স্পর্শকাতর জায়গায় লাগে, তবে তা মারাত্মক হতে পারে।

ভিন্ন ধারার বিকৃত জন্মদিন পালন বাঙালি সংস্কৃতিতে তো নয়ই; বিশ্বের অন্য কোনো জায়গায় আছে কিনা সন্দেহ। উচ্ছৃঙ্খলভাবে জন্মদিন পালন করে সাময়িক আনন্দ পাওয়া গেলেও এটা যে কারও জন্য জীবন সংশয়ের কারণ হতে পারে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কোনো আনন্দ যদি কারও ক্ষতির কারণ হয়, তবে এমন পৈশাচিক আনন্দের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। তাই সন্তানদের জন্মদিন পালনের ব্যাপারে সব পিতামাতা ও অভিভাবককে সচেতন থাকতে হবে। পাশাপাশি এমন উদ্ভট জন্মদিন পালন বন্ধে প্রশাসনের সর্বোচ্চ হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

প্রভাষক, সমাজকর্ম বিভাগ

সাভার সরকারি কলেজ, সাভার, ঢাকা

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন