প্রিয় হাই স্যার স্বপদে থাকুন
jugantor
প্রিয় হাই স্যার স্বপদে থাকুন

  অঞ্জনা মালো ও শিপু রানী  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তিনি একজন সৎ, দক্ষ ও চৌকশ প্রশাসক। বর্তমান সময়ে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি পেশায় কর্মকর্তাদের সবার কাছে তিনি অতি প্রিয় মুখ। বলছি নার্সিং ও মিউওয়াইফারি অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যারের কথা।

তিনি সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য দক্ষ হাতে সামলে চলেছেন। কিন্তু হঠাৎ করেই তার বদলির আদেশ শুনে সারা দেশের নার্স, মিডওয়াইফ ও সংশ্লিষ্ট পেশাজীবীদের মধ্যে যাতনার উদ্রেক হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২৭ এপ্রিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর থেকে তার বদলি আদেশ জারি করা হয়েছে। আদেশে ৬ মের মধ্যে মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যারকে ডিএনএ ল্যাবরেটরি ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের পরিচালক পদে যোগদান করতে বলা হয়েছে। স্যারের বদলির খবর শোনার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে হাসপাতালগুলোয় তার বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে মুখর হয়েছেন নার্স ও মিডওয়াইফরা। সংশ্লিষ্ট অনেক সংগঠন থেকেও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্যারের বদলির আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে আবেদন জানানো হয়েছে।

করোনাকালে কোভিড হাসপাতালগুলোয় চাহিদা মোতাবেক প্রয়োজনীয় সংখ্যক নার্স নিয়োগ-বণ্টন ও সংকটকালে নার্সদের মনোবল অটুট রাখার মতো কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ফলে স্যারের বদলির খবর স্বাভাবিকভাবে সংশ্লিষ্টদের মধ্যে হতাশা তৈরি করেছে।

নার্স ও মিডওয়াইফদের মধ্যে আস্থা ও কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধির প্রতীক হাই স্যার। তিনি এই অধিদপ্তরে যোগদানের পর থেকে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি সেক্টরে অভাবনীয় উন্নয়ন করেছেন। বন্ধ করেছেন সব ধরনের অনিয়ম। দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়নে নার্স ও মিডওয়াইফদের নতুন নতুন পদ সৃষ্টি করেছেন। তার হাত ধরে এই সেক্টরের অনেক কাজ নতুন মাত্রা পেয়েছে।

স্বাস্থ্যসেবা গরিব মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হাই স্যারের নতুন নতুন আইডিয়া এখনো চলমান। ‘হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগীরা যেন সঠিক সেবাটা পায়’-তিনি নার্স ও মিডওয়াইফদের সব সময় একথা স্মরণ করিয়ে দিতেন। তিনি রোগীদের সঙ্গে সর্বদা ভালো ব্যবহারের কথা বলতেন। নার্স ও মিডওয়াইফদের বদলির ক্ষেত্রে কারও কুমন্ত্রণায় পা না দেওয়ার জন্য সতর্ক করতেন সর্বদা স্বচ্ছ এই পরিচালক। তার মতো অভিভাবক নার্সিং ও মিডওয়াইফারি সেক্টরে অনেক বেশি প্রয়োজন। তাই হাই স্যারের বদলির আদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে বহাল রাখার প্রতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

মিডওয়াইফ, তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভোলা

anjanabristi@gmail.com

প্রিয় হাই স্যার স্বপদে থাকুন

 অঞ্জনা মালো ও শিপু রানী 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তিনি একজন সৎ, দক্ষ ও চৌকশ প্রশাসক। বর্তমান সময়ে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি পেশায় কর্মকর্তাদের সবার কাছে তিনি অতি প্রিয় মুখ। বলছি নার্সিং ও মিউওয়াইফারি অধিদপ্তরের পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যারের কথা।

তিনি সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে নিজ দায়িত্ব ও কর্তব্য দক্ষ হাতে সামলে চলেছেন। কিন্তু হঠাৎ করেই তার বদলির আদেশ শুনে সারা দেশের নার্স, মিডওয়াইফ ও সংশ্লিষ্ট পেশাজীবীদের মধ্যে যাতনার উদ্রেক হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২৭ এপ্রিল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তর থেকে তার বদলি আদেশ জারি করা হয়েছে। আদেশে ৬ মের মধ্যে মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যারকে ডিএনএ ল্যাবরেটরি ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের পরিচালক পদে যোগদান করতে বলা হয়েছে। স্যারের বদলির খবর শোনার পর থেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে শুরু করে হাসপাতালগুলোয় তার বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে মুখর হয়েছেন নার্স ও মিডওয়াইফরা। সংশ্লিষ্ট অনেক সংগঠন থেকেও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে স্যারের বদলির আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে আবেদন জানানো হয়েছে।

করোনাকালে কোভিড হাসপাতালগুলোয় চাহিদা মোতাবেক প্রয়োজনীয় সংখ্যক নার্স নিয়োগ-বণ্টন ও সংকটকালে নার্সদের মনোবল অটুট রাখার মতো কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ফলে স্যারের বদলির খবর স্বাভাবিকভাবে সংশ্লিষ্টদের মধ্যে হতাশা তৈরি করেছে।

নার্স ও মিডওয়াইফদের মধ্যে আস্থা ও কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধির প্রতীক হাই স্যার। তিনি এই অধিদপ্তরে যোগদানের পর থেকে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি সেক্টরে অভাবনীয় উন্নয়ন করেছেন। বন্ধ করেছেন সব ধরনের অনিয়ম। দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উন্নয়নে নার্স ও মিডওয়াইফদের নতুন নতুন পদ সৃষ্টি করেছেন। তার হাত ধরে এই সেক্টরের অনেক কাজ নতুন মাত্রা পেয়েছে।

স্বাস্থ্যসেবা গরিব মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে হাই স্যারের নতুন নতুন আইডিয়া এখনো চলমান। ‘হাসপাতালে সেবা নিতে আসা রোগীরা যেন সঠিক সেবাটা পায়’-তিনি নার্স ও মিডওয়াইফদের সব সময় একথা স্মরণ করিয়ে দিতেন। তিনি রোগীদের সঙ্গে সর্বদা ভালো ব্যবহারের কথা বলতেন। নার্স ও মিডওয়াইফদের বদলির ক্ষেত্রে কারও কুমন্ত্রণায় পা না দেওয়ার জন্য সতর্ক করতেন সর্বদা স্বচ্ছ এই পরিচালক। তার মতো অভিভাবক নার্সিং ও মিডওয়াইফারি সেক্টরে অনেক বেশি প্রয়োজন। তাই হাই স্যারের বদলির আদেশ প্রত্যাহার করে স্বপদে বহাল রাখার প্রতি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে বিনীত অনুরোধ জানাচ্ছি।

মিডওয়াইফ, তজুমদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ভোলা

anjanabristi@gmail.com

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন