ঈদে বাড়ি গিয়ে পরিবারকে বিপদে ফেলছি না তো!
jugantor
ঈদে বাড়ি গিয়ে পরিবারকে বিপদে ফেলছি না তো!

  মো. আব্দুল্লাহ  

১২ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদ মানেই আনন্দ। এই আনন্দ পরিবারের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নেওয়ার মধ্যে রয়েছে প্রকৃত সুখ। জীবন-জীবিকার সন্ধানে অনেকেই পরিবার থেকে দূরে অবস্থান করে।

পরিবার কাছে না থাকার একটা বেদনা তাদের মনের মধ্যে রয়েই যায়। এ প্রেক্ষাপটে অনেকেই ইচ্ছা পোষণ করে, অন্তত প্রতি বছর ঈদে বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকবে। বাবা-মা, ছেলেমেয়ে, ভাইবোনদের নিয়ে একত্রে ঈদের আনন্দ উপভোগ করবে।

কিন্তু এবার ঈদের আনন্দ যেমন তেমন; করোনাভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণকে গুরুত্ব দেওয়া অতি জরুরি হয়ে পড়েছে। করোনা এমনই এক ভাইরাস-যে কোনো আবেগ বোঝে না; ভালোবাসা বোঝে না। করোনার কাছে কেউই আপন নয়। এ অবস্থায় ঈদ আনন্দের নামে বাড়ি গিয়ে পরিবারকে বিপদে ফেলছি কিনা, দেশ ও জাতির ক্ষতি করছি কিনা-একজন সচেতন নাগরিক হিসাবে তা ভাবতে হবে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে।

করোনার ভয়াবহতা এড়াতে দেশজুড়ে ‘লকডাউন’ চলছে। দেশবাসীর স্বার্থে ‘লকডাউন’ দেওয়া হলেও যে কোনো উপায়ে বাড়ি ফেরার জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পথে নেমে এসেছে। মানছে না ন্যূনতম নিয়ম।

কোনো সতর্কবার্তাই যেন তাদের কর্ণকুহরে প্রবেশ করছে না। অথচ এ নিদানকালে নিজের ভালো নিজেকেই বুঝতে হবে। সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে সর্বক্ষেত্রে। সাবধান হতে হবে-এবারের ঈদে বড়ি ফেরাটা যেন আমাদের জন্য বড় কোনো দুঃখ, শোক অথবা দুর্ঘটনার কারণ না হয়ে দাঁড়ায়।

শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ, ঢাকা কলেজ

ঈদে বাড়ি গিয়ে পরিবারকে বিপদে ফেলছি না তো!

 মো. আব্দুল্লাহ 
১২ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদ মানেই আনন্দ। এই আনন্দ পরিবারের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নেওয়ার মধ্যে রয়েছে প্রকৃত সুখ। জীবন-জীবিকার সন্ধানে অনেকেই পরিবার থেকে দূরে অবস্থান করে।

পরিবার কাছে না থাকার একটা বেদনা তাদের মনের মধ্যে রয়েই যায়। এ প্রেক্ষাপটে অনেকেই ইচ্ছা পোষণ করে, অন্তত প্রতি বছর ঈদে বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকবে। বাবা-মা, ছেলেমেয়ে, ভাইবোনদের নিয়ে একত্রে ঈদের আনন্দ উপভোগ করবে।

কিন্তু এবার ঈদের আনন্দ যেমন তেমন; করোনাভাইরাসের ভয়াবহ সংক্রমণকে গুরুত্ব দেওয়া অতি জরুরি হয়ে পড়েছে। করোনা এমনই এক ভাইরাস-যে কোনো আবেগ বোঝে না; ভালোবাসা বোঝে না। করোনার কাছে কেউই আপন নয়। এ অবস্থায় ঈদ আনন্দের নামে বাড়ি গিয়ে পরিবারকে বিপদে ফেলছি কিনা, দেশ ও জাতির ক্ষতি করছি কিনা-একজন সচেতন নাগরিক হিসাবে তা ভাবতে হবে অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে।

করোনার ভয়াবহতা এড়াতে দেশজুড়ে ‘লকডাউন’ চলছে। দেশবাসীর স্বার্থে ‘লকডাউন’ দেওয়া হলেও যে কোনো উপায়ে বাড়ি ফেরার জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পথে নেমে এসেছে। মানছে না ন্যূনতম নিয়ম।

কোনো সতর্কবার্তাই যেন তাদের কর্ণকুহরে প্রবেশ করছে না। অথচ এ নিদানকালে নিজের ভালো নিজেকেই বুঝতে হবে। সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে সর্বক্ষেত্রে। সাবধান হতে হবে-এবারের ঈদে বড়ি ফেরাটা যেন আমাদের জন্য বড় কোনো দুঃখ, শোক অথবা দুর্ঘটনার কারণ না হয়ে দাঁড়ায়।

শিক্ষার্থী, ইংরেজি বিভাগ, ঢাকা কলেজ

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন