মোটরসাইকেল চালকরা কবে সচেতন হবেন?
jugantor
মোটরসাইকেল চালকরা কবে সচেতন হবেন?

  মো. আবদুল্লাহ  

২৩ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সবচেয়ে নির্মম ও বিপজ্জনক দুর্ঘটনা হচ্ছে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিনিয়ত আমরা মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার খবর শুনতে পাই। এক্ষেত্রে তরুণ-যুবকরাই বেশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে উঠতি বয়সের ছেলেরা বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালানোর ফলে দুর্ঘটনা বেশি হচ্ছে। মোটরসাইকেলে হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক হলেও অনেকেই হেলমেটবিহীনভাবে মোটরসাইকেল চালাচ্ছে। রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় মোটরসাইকেল চালকদের অনেক অনিয়ম চোখে পড়ে। বেশিরভাগ চালক নির্ধারিত গতিসীমার তোয়াক্কা করেন না, ট্রাফিক আইনকানুনের ধার ধারেন না। ফলে দুর্ঘটনা ক্রমাগত বাড়ছে। কোনো কারণে সড়কে যানজট সৃষ্টি হলে অথবা ট্রাফিক সিগন্যালে মোটরসাইকেলের চালকরা থামতে চান না। কোনো রকমে একটু ফাঁকা জায়গা পেলেই সেখান দিয়ে মোটরসাইকেল চালানো শুরু করেন। কেউ কেউ আবার কানে হেডফোন গুঁজে মনের সুখে দিব্বি মোটরসাইকেল চালায়। আনন্দ-উল্লাস করতে গিয়ে অনেক তাজা প্রাণ অকালেই ঝরে যায়। মোটরসাইকেল হচ্ছে দু’চাকার গাড়ি, যা সামান্য ধাক্কায় পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বেশিরভাগ সময় দেখা যায়, সামান্য ধাক্কায় পড়ে গিয়ে বড় গাড়ির নিচে মোটরসাইকেল আরোহীরা চাপা পড়েন। তারপরও নেই কোনো সতর্কতা। আর কত প্রাণ গেলে মোটরসাইকেল চালকরা সতর্ক হবেন?

ঢাকা কলেজ, ইংরেজি বিভাগ

মোটরসাইকেল চালকরা কবে সচেতন হবেন?

 মো. আবদুল্লাহ 
২৩ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সবচেয়ে নির্মম ও বিপজ্জনক দুর্ঘটনা হচ্ছে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতিনিয়ত আমরা মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার খবর শুনতে পাই। এক্ষেত্রে তরুণ-যুবকরাই বেশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে উঠতি বয়সের ছেলেরা বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালানোর ফলে দুর্ঘটনা বেশি হচ্ছে। মোটরসাইকেলে হেলমেট পরা বাধ্যতামূলক হলেও অনেকেই হেলমেটবিহীনভাবে মোটরসাইকেল চালাচ্ছে। রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় মোটরসাইকেল চালকদের অনেক অনিয়ম চোখে পড়ে। বেশিরভাগ চালক নির্ধারিত গতিসীমার তোয়াক্কা করেন না, ট্রাফিক আইনকানুনের ধার ধারেন না। ফলে দুর্ঘটনা ক্রমাগত বাড়ছে। কোনো কারণে সড়কে যানজট সৃষ্টি হলে অথবা ট্রাফিক সিগন্যালে মোটরসাইকেলের চালকরা থামতে চান না। কোনো রকমে একটু ফাঁকা জায়গা পেলেই সেখান দিয়ে মোটরসাইকেল চালানো শুরু করেন। কেউ কেউ আবার কানে হেডফোন গুঁজে মনের সুখে দিব্বি মোটরসাইকেল চালায়। আনন্দ-উল্লাস করতে গিয়ে অনেক তাজা প্রাণ অকালেই ঝরে যায়। মোটরসাইকেল হচ্ছে দু’চাকার গাড়ি, যা সামান্য ধাক্কায় পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বেশিরভাগ সময় দেখা যায়, সামান্য ধাক্কায় পড়ে গিয়ে বড় গাড়ির নিচে মোটরসাইকেল আরোহীরা চাপা পড়েন। তারপরও নেই কোনো সতর্কতা। আর কত প্রাণ গেলে মোটরসাইকেল চালকরা সতর্ক হবেন?

ঢাকা কলেজ, ইংরেজি বিভাগ

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন