সচেতনতার বিকল্প নেই
jugantor
সচেতনতার বিকল্প নেই

  মো. খশরু  

০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আমাদের দেশে শহর ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের বেশ বড় অংশজুড়ে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থায় যথেষ্ট ত্রুটি রয়েছে। বিশেষ করে শহরের নির্মাণাধীন ভবনগুলো এবং পানি জমে থাকে এমন স্থানগুলোতে এ সমস্যা তীব্র হয়ে উঠছে।

এসব ভবনের সঠিক নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় ভবনের বিভিন্ন স্থানে পানি জমে তা দুর্গন্ধযুক্ত হয়ে পড়ে এবং এডিস মশার জন্ম হয়। অথচ ভবনসংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি সেদিকে নেই বললেই চলে।

অন্যদিকে সিটি করপোরেশনের অভিযান অব্যাহত থাকলেও ব্যক্তি সচেতনতা না থাকায় ডেঙ্গি আতঙ্ক অনেকটাই বেড়েছে। দেশের প্রতিটি অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হচ্ছে অনবরত। আর এ মৌসুমে গ্রামাঞ্চলে ভারি বর্ষণের কারণে পানিতে আবদ্ধ এলাকার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এতে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানির অভাবের শঙ্কা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে ডেঙ্গি আতঙ্ক। এসব আবদ্ধ পানিতে এডিস মশার বংশ বৃদ্ধিতে শিশুদের ক্ষেত্রেও স্বাস্থ্যঝুঁকি ব্যাপক আকার ধারণ করছে। ফলে অন্যান্য রোগের পাশাপাশি বাড়ছে ডেঙ্গির প্রকোপ।

তাছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের অধিকাংশই ডেঙ্গি সম্পর্কে সচেতন নয়। এমন কী তাদের অনেকে এ রোগ সম্পর্কে জানেনই না। করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমরা এখনো শতভাগ সফল হইনি, তবুও আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এর মধ্যে ডেঙ্গি আতঙ্ক নতুন করে দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই এমন পরিস্থিতিতে, নিজেকে ভালো রাখতে আমাদের ব্যক্তি পর্যায়ে স্বেচ্ছায় কিছু কাজ করতে হবে। বাড়ির আঙ্গিনাসহ আবদ্ধ স্থানে পানি জমলে তা তৎক্ষণাৎ পরিষ্কার করার ব্যবস্থা করতে হবে। এ ছাড়া ফুলের টব কিংবা গাছের গোড়াতে পানি জমে থাকলে এডিস মশার জন্ম হয়, তাই ফুলের টবসহ পানি আবদ্ধ হয় এমন জায়গা সর্বদা পরিষ্কার রাখতে হবে।

এর পাশাপাশি ডেঙ্গির ভয়াবহতা সম্পর্কে গণসচেতনতা বাড়াতে হবে। আর সেজন্য প্রয়োজন দেশের টিভি চ্যানেল, রেডিও এবং পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া। পাশাপাশি ব্যানার-ফেস্টুনের মাধ্যমে ডেঙ্গির ভয়াবহতা সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে। যদিও আমাদের দেশে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করে যাচ্ছে, তাদের আরও বেশি তৎপর হতে হবে। ডেঙ্গির ভয়াবহতা রোধ করতে স্থানীয় প্রশাসনকে কার্যকর সিদ্ধান্ত নিয়ে তা বাস্তবায়ন করতে হবে। তবে ডেঙ্গির ভয়াবহতা থেকে বাঁচতে ব্যক্তিগত সচেতনতার বিকল্প নেই। তাই, আসুন নিজে সচেতন হই; অন্যকে সচেতন হতে উদ্বুদ্ধ করি।

শিক্ষার্থী, ঢাকা কলেজ, ঢাকা

সচেতনতার বিকল্প নেই

 মো. খশরু 
০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আমাদের দেশে শহর ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের বেশ বড় অংশজুড়ে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থায় যথেষ্ট ত্রুটি রয়েছে। বিশেষ করে শহরের নির্মাণাধীন ভবনগুলো এবং পানি জমে থাকে এমন স্থানগুলোতে এ সমস্যা তীব্র হয়ে উঠছে।

এসব ভবনের সঠিক নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় ভবনের বিভিন্ন স্থানে পানি জমে তা দুর্গন্ধযুক্ত হয়ে পড়ে এবং এডিস মশার জন্ম হয়। অথচ ভবনসংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি সেদিকে নেই বললেই চলে।

অন্যদিকে সিটি করপোরেশনের অভিযান অব্যাহত থাকলেও ব্যক্তি সচেতনতা না থাকায় ডেঙ্গি আতঙ্ক অনেকটাই বেড়েছে। দেশের প্রতিটি অঞ্চলে বৃষ্টিপাত হচ্ছে অনবরত। আর এ মৌসুমে গ্রামাঞ্চলে ভারি বর্ষণের কারণে পানিতে আবদ্ধ এলাকার সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এতে নিরাপদ ও বিশুদ্ধ পানির অভাবের শঙ্কা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে ডেঙ্গি আতঙ্ক। এসব আবদ্ধ পানিতে এডিস মশার বংশ বৃদ্ধিতে শিশুদের ক্ষেত্রেও স্বাস্থ্যঝুঁকি ব্যাপক আকার ধারণ করছে। ফলে অন্যান্য রোগের পাশাপাশি বাড়ছে ডেঙ্গির প্রকোপ।

তাছাড়া প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের অধিকাংশই ডেঙ্গি সম্পর্কে সচেতন নয়। এমন কী তাদের অনেকে এ রোগ সম্পর্কে জানেনই না। করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমরা এখনো শতভাগ সফল হইনি, তবুও আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। এর মধ্যে ডেঙ্গি আতঙ্ক নতুন করে দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই এমন পরিস্থিতিতে, নিজেকে ভালো রাখতে আমাদের ব্যক্তি পর্যায়ে স্বেচ্ছায় কিছু কাজ করতে হবে। বাড়ির আঙ্গিনাসহ আবদ্ধ স্থানে পানি জমলে তা তৎক্ষণাৎ পরিষ্কার করার ব্যবস্থা করতে হবে। এ ছাড়া ফুলের টব কিংবা গাছের গোড়াতে পানি জমে থাকলে এডিস মশার জন্ম হয়, তাই ফুলের টবসহ পানি আবদ্ধ হয় এমন জায়গা সর্বদা পরিষ্কার রাখতে হবে।

এর পাশাপাশি ডেঙ্গির ভয়াবহতা সম্পর্কে গণসচেতনতা বাড়াতে হবে। আর সেজন্য প্রয়োজন দেশের টিভি চ্যানেল, রেডিও এবং পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া। পাশাপাশি ব্যানার-ফেস্টুনের মাধ্যমে ডেঙ্গির ভয়াবহতা সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে। যদিও আমাদের দেশে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করে যাচ্ছে, তাদের আরও বেশি তৎপর হতে হবে। ডেঙ্গির ভয়াবহতা রোধ করতে স্থানীয় প্রশাসনকে কার্যকর সিদ্ধান্ত নিয়ে তা বাস্তবায়ন করতে হবে। তবে ডেঙ্গির ভয়াবহতা থেকে বাঁচতে ব্যক্তিগত সচেতনতার বিকল্প নেই। তাই, আসুন নিজে সচেতন হই; অন্যকে সচেতন হতে উদ্বুদ্ধ করি।

শিক্ষার্থী, ঢাকা কলেজ, ঢাকা

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন