সড়ক দুর্ঘটনা কমছে না কেন?
jugantor
সড়ক দুর্ঘটনা কমছে না কেন?

  মো. হেলাল উদ্দিন  

০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বর্তমানে বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা সবচেয়ে আলোচিত ও মর্মস্পর্শী ঘটনা। সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়ে হারিয়ে যাচ্ছে হাজার মানুষ, হারিয়ে যাচ্ছে হাজারো স্বপ্ন। প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললেই পাওয়া যায় সড়ক দুর্ঘটনার সংবাদ। সড়ক দুর্ঘটনা আজ আমাদের নিরাপত্তা হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। ফলে অনেকে অকালে পঙ্গুত্ববরণ করছে। বিকলাঙ্গ হয়ে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে।

হচ্ছে পরিবার ও সমাজের বোঝা। আজকে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় মনে শঙ্কা জাগে, আবার ঘরে ফেরা হবে তো! প্রিয় মানুষগুলোর মুখ দেখতে পাওয়া যাবে তো! এরূপ নানা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দুশ্চিন্তা নিয়ে মানুষের দিন কাটছে। আমাদের যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত হচ্ছে; কিন্তু কমছে না সড়ক দুর্ঘটনা। সড়কপথ হয়ে উঠছে আরও বিপজ্জনক, দুর্ঘটনার সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে।

বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম একটি কারণ অতিরিক্ত গতিসীমা। একটি অতিরিক্ত গতিসম্পন্ন গাড়ি অন্য আরেকটি গতিসম্পন্ন গাড়িকে ওভারটেক করতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে। এ ছাড়া রয়েছে লাইসেন্সবিহীন অদক্ষ চালক, সচেতনতার অভাব, অন্যমনস্ক হয়ে গাড়ি চালানো, যান্ত্রিক ত্রুটিসম্পন্ন গাড়ি রাস্তায় নামানো, অপ্রশস্ত রাস্তা, ট্রাফিক আইন অমান্য করা ইত্যাদি।

দুর্ঘটনার কারণ থাকার পাশাপাশি রয়েছে এগুলো প্রতিরোধের উপায়ও। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে প্রয়োজন নির্দিষ্ট গতিসীমা বা নিয়ন্ত্রিত গতি, যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ চালক নিয়োগ, নিরাপদ ও প্রশস্ত রাস্তা, জনসচেতনতা, দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ ও জনসাধারণ যাতে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করে, এ ব্যাপারে তাদের উৎসাহিত করা। লাইসেন্স প্রদানে দুর্নীতি বন্ধ করা, চালকের বেতন ও কাজের সময় নির্দিষ্ট করা, বিআরটিএর সক্ষমতা বৃদ্ধি, পরিবহণ মালিক-শ্রমিক ও যাত্রী-পথচারীদের ক্ষেত্রেও ট্রাফিক আইন প্রয়োগ নিশ্চিত করা। সর্বোপরি, সড়ক আইন-২০১৮ কার্যকর করতে হবে।

শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

সড়ক দুর্ঘটনা কমছে না কেন?

 মো. হেলাল উদ্দিন 
০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বর্তমানে বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনা সবচেয়ে আলোচিত ও মর্মস্পর্শী ঘটনা। সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়ে হারিয়ে যাচ্ছে হাজার মানুষ, হারিয়ে যাচ্ছে হাজারো স্বপ্ন। প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললেই পাওয়া যায় সড়ক দুর্ঘটনার সংবাদ। সড়ক দুর্ঘটনা আজ আমাদের নিরাপত্তা হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিন কোথাও না কোথাও ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা। ফলে অনেকে অকালে পঙ্গুত্ববরণ করছে। বিকলাঙ্গ হয়ে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছে।

হচ্ছে পরিবার ও সমাজের বোঝা। আজকে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় মনে শঙ্কা জাগে, আবার ঘরে ফেরা হবে তো! প্রিয় মানুষগুলোর মুখ দেখতে পাওয়া যাবে তো! এরূপ নানা উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দুশ্চিন্তা নিয়ে মানুষের দিন কাটছে। আমাদের যোগাযোগব্যবস্থা উন্নত হচ্ছে; কিন্তু কমছে না সড়ক দুর্ঘটনা। সড়কপথ হয়ে উঠছে আরও বিপজ্জনক, দুর্ঘটনার সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে।

বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম একটি কারণ অতিরিক্ত গতিসীমা। একটি অতিরিক্ত গতিসম্পন্ন গাড়ি অন্য আরেকটি গতিসম্পন্ন গাড়িকে ওভারটেক করতে গিয়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে। এ ছাড়া রয়েছে লাইসেন্সবিহীন অদক্ষ চালক, সচেতনতার অভাব, অন্যমনস্ক হয়ে গাড়ি চালানো, যান্ত্রিক ত্রুটিসম্পন্ন গাড়ি রাস্তায় নামানো, অপ্রশস্ত রাস্তা, ট্রাফিক আইন অমান্য করা ইত্যাদি।

দুর্ঘটনার কারণ থাকার পাশাপাশি রয়েছে এগুলো প্রতিরোধের উপায়ও। দুর্ঘটনা প্রতিরোধে প্রয়োজন নির্দিষ্ট গতিসীমা বা নিয়ন্ত্রিত গতি, যথাযথ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ চালক নিয়োগ, নিরাপদ ও প্রশস্ত রাস্তা, জনসচেতনতা, দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ ও জনসাধারণ যাতে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করে, এ ব্যাপারে তাদের উৎসাহিত করা। লাইসেন্স প্রদানে দুর্নীতি বন্ধ করা, চালকের বেতন ও কাজের সময় নির্দিষ্ট করা, বিআরটিএর সক্ষমতা বৃদ্ধি, পরিবহণ মালিক-শ্রমিক ও যাত্রী-পথচারীদের ক্ষেত্রেও ট্রাফিক আইন প্রয়োগ নিশ্চিত করা। সর্বোপরি, সড়ক আইন-২০১৮ কার্যকর করতে হবে।

শিক্ষার্থী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন