উদ্যোগের নাম স্বপ্নযাত্রা
jugantor
উদ্যোগের নাম স্বপ্নযাত্রা

  মোহেনূর  

১৮ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্বাস্থ্য ও উন্নয়ন এক সূত্রে গাঁথা। সরকার স্বাস্থ্য খাতকে প্রাধান্য দিয়ে দারিদ্র্য দূরীকরণ, নারীর ক্ষমতায়ন, লিঙ্গ সমতা, শিক্ষা, মাতৃস্বাস্থ্যসেবা, শিশুমৃত্যু হ্রাস ও পরিবার পরিকল্পনাসহ অন্যান্য কর্মসূচি পরিচালনা করছে। সরকার গত ১০ বছরে প্রাথমিক স্বাস্থ্য, শিশুমৃত্যু, মাতৃমৃত্যু হ্রাসসহ বেশ কয়েকটি খাতে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন করেছে। ইতোমধ্যে ‘মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল’ বা এমডিজি অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাও (এসডিজি) অর্জন করবে বাংলাদেশ। তবে এ ক্ষেত্রে তৃণমূলের বিশাল জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করা জরুরি।

গ্রামীণ মানুষের দোরগোড়ায় প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দের পরিকল্পনা ও উদ্যোগে ‘স্বপ্নযাত্রা’ নামে আ্যাপসভিত্তিক অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করা হয়েছে, যার মাধ্যমে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের রোগীদের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে। লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসনের এ প্রয়াস বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই।

জেলা প্রশাসন, সদর ও রামগতি উপজেলা প্রশাসনের অর্থায়নে ইতোমধ্যে ৭টি আ্যম্বুলেন্স বিতরণ করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লক্ষ্মীপুর জেলার জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আহম্মদ কবীর, পরিবার-পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. আশফাকুর রহমান মামুন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সালাহউদ্দিন টিপু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন, উত্তর চরবংশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি জাকির হোসেন ভূঁইয়া আজাদ প্রমুখ। উল্লেখ্য, এই ৭টি অ্যাম্বুলেন্স ছাড়াও জেলার আরও ৩টি উপজেলায় অ্যাম্বুলেন্স ক্রয়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

কম খরচে দ্রুত অসুস্থ ব্যক্তিকে লক্ষ্মীপুরের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও নোয়াখালীর হাসপাতালে নেওয়া, সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরা এবং মৃত ব্যক্তির মরদেহ পরিবহণে ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাবেন স্থানীয় জনগণ। লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ জানান, লক্ষ্মীপুর জেলার গ্রামীণ অসহায় মানুষগুলোর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অ্যাপসভিত্তিক ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করা হয়েছে, যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে লক্ষ্মীপুরে এটি অনন্য ভূমিকা রাখবে।

গণমাধ্যমকর্মী

উদ্যোগের নাম স্বপ্নযাত্রা

 মোহেনূর 
১৮ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্বাস্থ্য ও উন্নয়ন এক সূত্রে গাঁথা। সরকার স্বাস্থ্য খাতকে প্রাধান্য দিয়ে দারিদ্র্য দূরীকরণ, নারীর ক্ষমতায়ন, লিঙ্গ সমতা, শিক্ষা, মাতৃস্বাস্থ্যসেবা, শিশুমৃত্যু হ্রাস ও পরিবার পরিকল্পনাসহ অন্যান্য কর্মসূচি পরিচালনা করছে। সরকার গত ১০ বছরে প্রাথমিক স্বাস্থ্য, শিশুমৃত্যু, মাতৃমৃত্যু হ্রাসসহ বেশ কয়েকটি খাতে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন করেছে। ইতোমধ্যে ‘মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল’ বা এমডিজি অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাও (এসডিজি) অর্জন করবে বাংলাদেশ। তবে এ ক্ষেত্রে তৃণমূলের বিশাল জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয়টি নিশ্চিত করা জরুরি।

গ্রামীণ মানুষের দোরগোড়ায় প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ‘আমার গ্রাম আমার শহর’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দের পরিকল্পনা ও উদ্যোগে ‘স্বপ্নযাত্রা’ নামে আ্যাপসভিত্তিক অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করা হয়েছে, যার মাধ্যমে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের রোগীদের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করা সম্ভব হচ্ছে। লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসনের এ প্রয়াস বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই।

জেলা প্রশাসন, সদর ও রামগতি উপজেলা প্রশাসনের অর্থায়নে ইতোমধ্যে ৭টি আ্যম্বুলেন্স বিতরণ করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লক্ষ্মীপুর জেলার জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আহম্মদ কবীর, পরিবার-পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডা. আশফাকুর রহমান মামুন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একেএম সালাহউদ্দিন টিপু, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন, উত্তর চরবংশী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম ও জেলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি জাকির হোসেন ভূঁইয়া আজাদ প্রমুখ। উল্লেখ্য, এই ৭টি অ্যাম্বুলেন্স ছাড়াও জেলার আরও ৩টি উপজেলায় অ্যাম্বুলেন্স ক্রয়ের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

কম খরচে দ্রুত অসুস্থ ব্যক্তিকে লক্ষ্মীপুরের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা ও নোয়াখালীর হাসপাতালে নেওয়া, সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরা এবং মৃত ব্যক্তির মরদেহ পরিবহণে ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্স সেবা পাবেন স্থানীয় জনগণ। লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক মো. আনোয়ার হোছাইন আকন্দ জানান, লক্ষ্মীপুর জেলার গ্রামীণ অসহায় মানুষগুলোর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অ্যাপসভিত্তিক ‘স্বপ্নযাত্রা’ অ্যাম্বুলেন্স সেবা চালু করা হয়েছে, যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে লক্ষ্মীপুরে এটি অনন্য ভূমিকা রাখবে।

গণমাধ্যমকর্মী

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন