নতুন বছরে নতুন বই পাবে তো শিক্ষার্থীরা?
jugantor
নতুন বছরে নতুন বই পাবে তো শিক্ষার্থীরা?

  সিফাত রাব্বানী  

০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশে ডলার সংকটের কারণে আমদানিনির্ভর অনেক পণ্যের পাশাপাশি প্রভাব পড়েছে মুদ্রণ শিল্পেও। সবচেয়ে বড় উদ্বেগের বিষয় নতুন বছরের বই ছাপানো নিয়ে। গণমাধ্যমে ইতোমধ্যে এসেছে-প্রেসগুলোর জন্য পর্যাপ্ত কাগজ নেই। জাতীয় পাঠ্যপুস্তক সমিতি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়টি নিয়ে আগে কেন ভাবেনি, বোধগম্য নয়। দেখা যাচ্ছে, যে প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা আছে নির্ধারিত সময়ে ৩ লট বই প্রিন্ট করার, তাকে দেওয়া হচ্ছে ৩০ লট। গত বছর একই সময়ে যে পরিমাণ বই ছাপানো সম্পন্ন হয়েছিল, এ বছর ঠিক একই সময়ে তার সমপরিমাণ নতুন বই ছাপানো যায়নি।

বলার অপেক্ষা রাখে না, পরিস্থিতি দেখে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা চিন্তিত-নতুন বছরের শুরুতেই নতুন বই হাতে পাওয়া নিয়ে। কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি-দ্রুত নতুন বই ছাপানোর কাজ সমাপ্ত করুন, যাতে বছরের শুরুতেই কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নতুন বই হাতে পায়। কোনোভাবেই যাতে শিক্ষার্থীরা হতাশ না হয়, এ ব্যাপারে সচেতন থাকা জরুরি।

শিক্ষার্থী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

নতুন বছরে নতুন বই পাবে তো শিক্ষার্থীরা?

 সিফাত রাব্বানী 
০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলাদেশে ডলার সংকটের কারণে আমদানিনির্ভর অনেক পণ্যের পাশাপাশি প্রভাব পড়েছে মুদ্রণ শিল্পেও। সবচেয়ে বড় উদ্বেগের বিষয় নতুন বছরের বই ছাপানো নিয়ে। গণমাধ্যমে ইতোমধ্যে এসেছে-প্রেসগুলোর জন্য পর্যাপ্ত কাগজ নেই। জাতীয় পাঠ্যপুস্তক সমিতি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় এ বিষয়টি নিয়ে আগে কেন ভাবেনি, বোধগম্য নয়। দেখা যাচ্ছে, যে প্রতিষ্ঠানের সক্ষমতা আছে নির্ধারিত সময়ে ৩ লট বই প্রিন্ট করার, তাকে দেওয়া হচ্ছে ৩০ লট। গত বছর একই সময়ে যে পরিমাণ বই ছাপানো সম্পন্ন হয়েছিল, এ বছর ঠিক একই সময়ে তার সমপরিমাণ নতুন বই ছাপানো যায়নি।

বলার অপেক্ষা রাখে না, পরিস্থিতি দেখে শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা চিন্তিত-নতুন বছরের শুরুতেই নতুন বই হাতে পাওয়া নিয়ে। কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি-দ্রুত নতুন বই ছাপানোর কাজ সমাপ্ত করুন, যাতে বছরের শুরুতেই কোমলমতি শিক্ষার্থীরা নতুন বই হাতে পায়। কোনোভাবেই যাতে শিক্ষার্থীরা হতাশ না হয়, এ ব্যাপারে সচেতন থাকা জরুরি।

শিক্ষার্থী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন