পথশিশুদের পাশে দাঁড়ান

  নিগার সুলতানা সুপ্তি ২৯ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

যদি আমরা সত্যিকারের শান্তি খুঁজে পেতে চাই এবং মিথ্যার বিরুদ্ধে সত্যের যুদ্ধ চালিয়ে যেতে চাই, তবে তা শুরু করতে হবে শিশুদের দ্বারা। শান্তিময় পৃথিবীর অন্বেষণ মানবসভ্যতার আদি লক্ষ্য এবং নিঃস্বার্থ ভালোবাসাই সেই লক্ষ্যপূরণের একমাত্র হাতিয়ার। সৃষ্টির জন্মলগ্ন থেকে শিশুরা নিঃস্বার্থ ভালোবাসার একমাত্র প্রতীক। তথাকথিত আধুনিক সভ্যতার জাঁতাকলে পিষ্ট নিষ্পাপ শিশুদের পরিচয় এখন বিভক্তিময়। আজ তাদের একটি অংশ সমাজে পথশিশু, ছিন্নমূল, টোকাই, পথকলি ইত্যাদি নামে পরিচিত।

রাজধানীসহ সারা দেশে লাখ লাখ শিশু রয়েছে, পথেই যাদের জন্ম, পথেই বেড়ে ওঠা আর পথেই বসবাস। তাদের অধিকাংশের আবাসস্থল হল রাস্তাঘাট, রেলস্টেশন, বাস টার্মিনাল, অফিস চত্বর, পার্ক অথবা খোলা আকাশের নিচে। জীবনের প্রতিটি অধ্যায়ে নানা ধরনের অবহেলা আর বঞ্চনার শিকার হতে হয় এসব শিশুকে। শৈশব পেরিয়ে কৈশোরে উত্তীর্ণ হওয়ার আগেই অনেকটা বাধ্য হয়ে তারা জড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন ধরনের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে। প্রশ্ন হল, সমাজের মূলধারা থেকে ছিটকে পড়া এসব শিশুর জন্য কী করা হচ্ছে? কোনো বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে কি তাদের জন্য?

আজকের শিশুরাই আগামী দিনের সম্পদ। তাদের মধ্যে সুপ্ত থাকে কবি, শিল্পী, সাহিত্যিক, বৈজ্ঞানিক, চিকিৎসক ইত্যাদি প্রতিভা। তাই পথশিশুদের সমাজের মূলস্রোতে ফিরিয়ে এনে তাদেরকে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় সম্পদে পরিণত করতে সবার আগে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে বাস্তবমুখী পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। পথশিশুদের পুনর্বাসনেরর জন্য সেবামূলক কর্মসূচি আরও বাড়াতে হবে। বিশেষ করে ড্রপ-ইন সেন্টার (ডিআইসি), উন্মুক্ত পথশিশু স্কুল, শেল্টার, মনোসামাজিক কাউন্সেলিং এবং কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র ইত্যাদি। পথশিশুদের স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দেয়া দুরূহ কাজ, তবে অসম্ভব নয়। এ জন্য দরকার সবার সহযোগিতা। সমাজের সর্বস্তরের মানুষের সামান্য সহযোগিতা পেলে ছিন্নমূল শিশুরা ফিরে পেতে পারে একটি সুন্দর ও স্বাভাবিক জীবন।

শিক্ষার্থী, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter