স্টিভ ব্যাননকে ট্রাম্পের ক্ষমা
jugantor
স্টিভ ব্যাননকে ট্রাম্পের ক্ষমা

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৩১:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

স্টিভ ব্যাননকে ক্ষমা করলেন ট্রাম্প

সাবেক প্রধান কৌশলী স্টিভ ব্যাননকে ক্ষমা করে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাওয়ার আগে তিনিসহ মোট ৭৩ জনকে ক্ষমা ও ৭০ জনের সাজা কমিয়ে দিয়েছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট।

বুধবার হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতির বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে।

অনেক ভাবনা-চিন্তার পর ব্যাননকে ক্ষমা করেছেন বলে ঘনিষ্ঠদের জানিয়েছেন তিনি। রাজনৈতিক প্রকল্পে জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়েছিল ব্যাননের বিরুদ্ধে। যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল আন্দোলনের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে তাকে।

রাজনৈতিক জ্ঞানের তীক্ষ্ণতার জন্য তার পরিচিতি রয়েছেন।

এর আগে বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প বলেন, আমরা তা-ই করেছি,, যা করতে এসেছিলাম— এবং প্রত্যাশার চেয়েও বেশি করেছি।

ইউটিউবে পোস্ট করা এক ভিডিওতে এই রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি এক কঠিন লড়াই করেছি; কঠিনতম লড়াই... কারণ সে জন্যই আপনারা আমাকে নির্বাচিত করেছিলেন।

গত নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের কাছে এখনও নিজের পরাজয় স্বীকার করে নেননি ট্রাম্প।

বুধবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার কথা রয়েছে ডেমোক্র্যাটদলীয় বিজয়ী জো বাইডেনের।

ট্রাম্পের মেয়াদের শেষ দুই সপ্তাহ ক্যাপিটল ভবনে প্রাণঘাতী দাঙ্গায় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে দ্বন্দ্বেই কেটে গেছে। টুইটার, ফেসবুকসহ সামাজিকমাধ্যমগুলোতে নিষিদ্ধ হয়ে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকতে হয়েছে তাকে।

নির্বাচনের ফল উল্টাতে উগ্র ট্রাম্প সমর্থকদের হামলায় ৬ জানুয়ারি এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

ভিডিওতে ট্রাম্প বলেন, রাজনৈতিক সহিংসতা হলো—আমরা আমেরিকান হিসেবে যা কিছু লালন করি, তার ওপর হামলা। এটি কখনও সহ্য করা হবে না।

ভিডিওতে উত্তরসূরি বাইডেনের নাম তিনি একবারেও মুখে নেননি।

কংগ্রেস ভবনে দাঙ্গায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব ছাড়ার পর সিনেটেও তাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

যদি দোষী সাব্যস্ত হন, তবে ভবিষ্যতে কোনো সরকারি অফিসের জন্য তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না।

স্টিভ ব্যাননকে ট্রাম্পের ক্ষমা

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
স্টিভ ব্যাননকে ক্ষমা করলেন ট্রাম্প
ছবি: সংগৃহীত

সাবেক প্রধান কৌশলী স্টিভ ব্যাননকে ক্ষমা করে দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হোয়াইট হাউস ছেড়ে যাওয়ার আগে তিনিসহ মোট ৭৩ জনকে ক্ষমা ও ৭০ জনের সাজা কমিয়ে দিয়েছেন বিদায়ী প্রেসিডেন্ট।

বুধবার হোয়াইট হাউসের এক বিবৃতির বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে।

অনেক ভাবনা-চিন্তার পর ব্যাননকে ক্ষমা করেছেন বলে ঘনিষ্ঠদের জানিয়েছেন তিনি। রাজনৈতিক প্রকল্পে জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়েছিল ব্যাননের বিরুদ্ধে। যুক্তরাষ্ট্রের রক্ষণশীল আন্দোলনের একজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে তাকে।

রাজনৈতিক জ্ঞানের তীক্ষ্ণতার জন্য তার পরিচিতি রয়েছেন। 

এর আগে বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প বলেন, আমরা তা-ই করেছি,, যা করতে এসেছিলাম— এবং প্রত্যাশার চেয়েও বেশি করেছি।

ইউটিউবে পোস্ট করা এক ভিডিওতে এই রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট বলেন, আমি এক কঠিন লড়াই করেছি; কঠিনতম লড়াই... কারণ সে জন্যই আপনারা আমাকে নির্বাচিত করেছিলেন।

গত নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের কাছে এখনও নিজের পরাজয় স্বীকার করে নেননি ট্রাম্প।

বুধবার প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার কথা রয়েছে ডেমোক্র্যাটদলীয় বিজয়ী জো বাইডেনের।
    
ট্রাম্পের মেয়াদের শেষ দুই সপ্তাহ ক্যাপিটল ভবনে প্রাণঘাতী দাঙ্গায় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে দ্বন্দ্বেই কেটে গেছে। টুইটার, ফেসবুকসহ সামাজিকমাধ্যমগুলোতে নিষিদ্ধ হয়ে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকতে হয়েছে তাকে।

নির্বাচনের ফল উল্টাতে উগ্র ট্রাম্প সমর্থকদের হামলায় ৬ জানুয়ারি এক পুলিশ কর্মকর্তাসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

ভিডিওতে ট্রাম্প বলেন, রাজনৈতিক সহিংসতা হলো—আমরা আমেরিকান হিসেবে যা কিছু লালন করি, তার ওপর হামলা। এটি কখনও সহ্য করা হবে না।

ভিডিওতে উত্তরসূরি বাইডেনের নাম তিনি একবারেও মুখে নেননি।

কংগ্রেস ভবনে দাঙ্গায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসিত হয়েছেন ট্রাম্প। প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব ছাড়ার পর সিনেটেও তাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

যদি দোষী সাব্যস্ত হন, তবে ভবিষ্যতে কোনো সরকারি অফিসের জন্য তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০