পেনশন হিসেবে কত টাকা পাবেন ট্রাম্প?
jugantor
পেনশন হিসেবে কত টাকা পাবেন ট্রাম্প?

  অনলাইন ডেস্ক  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৩৮:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ট্রাম্প

হোয়াইট হাউস থেকে একদিন আগে বিদায় নিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন জো বাইডেন। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদ হিসেবে বিদায় নিলেও সাবেক প্রেসিডেন্টদের মতোই সুযোগ সুবিধা পাবেন।

সিএনএন জানিয়েছে, ট্রাম্প পেনশন হিসেবে বাৎসরিক ২ লাখ ২১ হাজার ৪০০ ডলার পাবেন। ট্রাম্পকে ইমপিচমেন্টের বিষয়টি সিনেটে রয়েছে। সেটি কার্যকর হলে ট্রাম্প এ অর্থ পাবেন কিনা তা নিশ্চিত নয়। এর আগে বারাক ওবামা বাৎসরিক ২ লাখ ৭ হাজার ৮০০ ডলার পেনশন পেয়েছিলেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প অভিজাত এলাকায় অফিস পরিচালনার জন্য ভাড়া পাবেন। এছাড়া যাবতীয় খরচ বহন করবে সরকার। ওই অফিসে যেসব কর্মী কাজ করবেন, সরকার বহন করবে তাদের খরচও। আর বিভিন্ন ভ্রমণ ও টেলিফোন খরচ বাবদ ভাতা পাবেন সাবেক হওয়া এই প্রেসিডেন্ট। তবে এই অর্থের পরিমাণ বছরে সর্বোচ্চ ১০ লাখ ডলার।

তবে অফিস ভাড়া কত হবে তার কোনো সীমা নেই। সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, জর্জ ডব্লিউ বুশ এবং বারাক ওবামা বছরে ৫ লাখ ডলারের বেশি ভাড়া নিয়েছেন। তবে জিমি কার্টার বছরে শুধুমাত্র ১ লাখ ১৮ হাজার ডলার নিয়েছেন।

সাবেক প্রেসিডেন্টের পরিবারের সদস্যরা পাবেন সিক্রেট সার্ভিসের নিরাপত্তা। পাবেন স্বাস্থ্য বীমা। তবে যুক্তরাষ্ট্রে একজন প্রেসিডেন্ট ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় বার্ষিক ৪ লাখ ডলার বেতন পান। এ ছাড়া নানা সুযোগ সুবিধাও পান।

সাবেক প্রেসিডেন্টদের জন্য পেনশনের রীতি চালু হয় ১৯৫৮ সালে। প্রেসিডেন্ট হ্যারি ট্রুম্যান দায়িত্ব ছাড়ার পর এক সময় আর্থিক সংকটে পড়েছিলেন। তখন থেকেই এই রীতি চালু হয়। এখন প্রেসিডেন্ট যে পেনশন পান তা মন্ত্রিপরিষদ সচিবের বেতনের সমান।

পেনশন হিসেবে কত টাকা পাবেন ট্রাম্প?

 অনলাইন ডেস্ক 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ট্রাম্প
ফাইল ছবি

হোয়াইট হাউস থেকে একদিন আগে বিদায় নিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন জো বাইডেন। ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট পদ হিসেবে বিদায় নিলেও সাবেক প্রেসিডেন্টদের মতোই সুযোগ সুবিধা পাবেন। 

সিএনএন জানিয়েছে, ট্রাম্প পেনশন হিসেবে বাৎসরিক ২ লাখ ২১ হাজার ৪০০ ডলার পাবেন। ট্রাম্পকে ইমপিচমেন্টের বিষয়টি সিনেটে রয়েছে। সেটি কার্যকর হলে ট্রাম্প এ অর্থ পাবেন কিনা তা নিশ্চিত নয়।  এর আগে বারাক ওবামা বাৎসরিক ২ লাখ ৭ হাজার ৮০০ ডলার পেনশন পেয়েছিলেন। 

সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প অভিজাত এলাকায় অফিস পরিচালনার জন্য ভাড়া পাবেন। এছাড়া যাবতীয় খরচ বহন করবে সরকার। ওই অফিসে যেসব কর্মী কাজ করবেন, সরকার বহন করবে তাদের খরচও। আর বিভিন্ন ভ্রমণ ও টেলিফোন খরচ বাবদ ভাতা পাবেন সাবেক হওয়া এই প্রেসিডেন্ট। তবে এই অর্থের পরিমাণ বছরে সর্বোচ্চ ১০ লাখ ডলার। 

তবে অফিস ভাড়া কত হবে তার কোনো সীমা নেই। সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটন, জর্জ ডব্লিউ বুশ এবং বারাক ওবামা বছরে ৫ লাখ ডলারের বেশি ভাড়া নিয়েছেন। তবে জিমি কার্টার বছরে শুধুমাত্র ১ লাখ ১৮ হাজার ডলার নিয়েছেন। 

সাবেক প্রেসিডেন্টের পরিবারের সদস্যরা পাবেন সিক্রেট সার্ভিসের নিরাপত্তা। পাবেন স্বাস্থ্য বীমা। তবে যুক্তরাষ্ট্রে একজন প্রেসিডেন্ট ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় বার্ষিক ৪ লাখ ডলার বেতন পান। এ ছাড়া নানা সুযোগ সুবিধাও পান। 

সাবেক প্রেসিডেন্টদের জন্য পেনশনের রীতি চালু হয় ১৯৫৮ সালে। প্রেসিডেন্ট হ্যারি ট্রুম্যান দায়িত্ব ছাড়ার পর এক সময় আর্থিক সংকটে পড়েছিলেন। তখন থেকেই এই রীতি চালু হয়। এখন প্রেসিডেন্ট যে পেনশন পান তা মন্ত্রিপরিষদ সচিবের বেতনের সমান। 

 

ঘটনাপ্রবাহ : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন-২০২০