কালো বিড়াল রাস্তা ‘কাটলে’ সবাই দাঁড়িয়ে পড়ে কেন?

  অনলাইন ডেস্ক ২০ জুন ২০১৮, ১৯:৫৭ | অনলাইন সংস্করণ

কালো বিড়াল
ছবি: সংগৃহীত

কালো বিড়ালকে নিয়ে রয়েছে অনেক কল্পকাহিনী। অনেকেই মনে করেন কালো বিড়াল শয়তানের বেশ ধরে আসে। গভীর রাতে কালো বিড়াল দেখলে তো আর কথাই নেই। ভয়ে গা ছমছম করে। এই বুঝি আক্রমণ করল। আমাদের দেশেও প্রচলিত রয়েছে নানা ভৌতিক কাহিনী।

ইউরোপে বিড়ালকে অলৌকিক ও অশুভ প্রতীক হিসেবে ধরা হয়। ইউরোপের বিভিন্ন লেখকদের উপন্যাস, রূপকথা, ভৌতিক গল্প ও উপকথায় কালো বিড়ালকে অশুভশক্তির প্রতীক হিসেবে দেখানোর প্রচলন রয়েছে সেই কবে থেকে। শুধু ইউরোপেই নয়, গোটা বিশ্বজুড়েই কালো বিড়ালকে নিয়ে তৈরি হয়েছে অসংখ্য অলৌকিক গল্প-কাহিনী।

সাধারণত, এসব রূপকথার গল্প কাহিনীতে দেখা যায় কালো বিড়াল মানুষের রূপধারণ করে ডাইনি, শয়তান বা দানবের অবতারে হাজির হয়। বাংলা সাহিত্যে বিড়ালের এমন ভৌতিক প্রচলন শুরু হয় আরও কিছু পরে। বিশেষ করে বাংলা ভৌতিক গল্পে কালো বিড়ালকে অতৃপ্ত আত্মা হিসেবে দেখানো হয়।

কালো বিড়ালকে ‘অশুভ’ বলে ধরা হয়। কালো বিড়াল নিয়ে রহস্যের শেষ নেই। বিভিন্ন গল্পে শোনা যায়, অতীতের দিনে যখন গরুতে গাড়ি টানা হতো, তখন কালো বিড়াল রাস্তা পার করলে গরুদের মধ্যে অস্থিরতা লক্ষ করা যেত। সেই সময় গাড়ির গাড়োয়ান গরুদের শান্ত করতে কিছুক্ষণের জন্য গাড়ি থামিয়ে দিতেন। পরে এই রেওয়াজই কুসংস্কারে পরিণত হয়।

অতীতের সেই ট্র্যাডিশন এখনো রয়েছে। অনেক সময় গাড়ির সামনে দিয়ে কালো বিড়াল চলে গেলে গাড়ি থামিয়ে দেয়া হয়। অনেকে বেশ কিছুটা পিছিয়ে আসেন। কেউ আবার গাড়ির কাচে ক্রস চিহ্ন আঁকেন।

সমাজে এমন ধারণা প্রচলিত যে, কোনো শুভকাজে যাত্রা করার সময় যাত্রাপথে কালো বিড়ালের দেখা পেলে তা এক অশুভ ইঙ্গিত বহন করে। এই কুসংস্কার এতটাই মানুষের মনে প্রোথিত যে অনেকে গন্তব্যস্থলে না গিয়ে বাড়ি ফিরে যান, অথবা কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে আবার যাত্রা শুরু করেন। এতে নাকি দোষ ‘কাটা’ যায়। আবার কেউ কেউ কালো বিড়ালকে অতিলৌকিক জগতের প্রতিনিধি বলে মনে করেন।

তবে যুক্তিবাদীদের বক্তব্য, কুসংস্কার নয়। বিড়ালের রাস্তা কাটা এবং গাড়ি থামিয়ে দেয়ার মধ্যে যুক্তি রয়েছে সামাজিক। তাদের বক্তব্য, রাস্তায় গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার অথবা হেঁটে যাওয়ার সময় কোনো বিড়াল রাস্তা পার হলে, তখন গাড়ি বা মানুষ দাঁড়িয়ে পড়ে।

তার প্রকৃত কারণ হিসেবে ধরা হয় যে, সাধারণত, বিড়াল জাতীয় প্রাণীদের অন্য বড় আকৃতির পশুরা তাড়া করে। সেক্ষেত্রে বিড়ালকে দেখার পর একটু দাঁড়িয়ে গেলেই ভালো হয়। তাহলে বিপদের সম্ভাবনা কম থাকে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter