পানির সন্ধান মিলল কে২-১৮বি গ্রহে
jugantor
পানির সন্ধান মিলল কে২-১৮বি গ্রহে

  যুগান্তর ডেস্ক  

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৪:৫৮:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

পৃথিবী থেকে ১১১ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত কে২-১৮বি নামে একটি গ্রহে পানির অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

কয়েক বছর আগে গ্রহটির সন্ধান পান বিজ্ঞানীরা। এ ছাড়া কে২-১৮বি-এর তাপমাত্রা প্রাণী কিংবা অণুজীব টিকিয়ে রাখার জন্য যথেষ্ট বলেও মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। খবর ডেইলি সাবাহর।

আগে কখনই অন্য কোনো গ্রহের ক্ষেত্রে ঘটেনি। সম্প্রতি নেচার অ্যাস্ট্রোনমিতে প্রকাশিত প্রবন্ধে বলা হয়েছে, আগামী ১০ বছরের মধ্যে নিশ্চিত হওয়া সম্ভব দূরবর্তী সেই গ্রহে কোনো প্রাণের বসবাস রয়েছে কিনা।

তাই কে২-১৮বিকে দেয়া হচ্ছে পৃথিবীর পরই সবচেয়ে ‘বসবাসযোগ্য’ গ্রহের তকমা।

২০১৫ সালে নাসার কেপলার স্পেস টেলিস্কোপ প্রথম খুঁজে পায় কে২-১৮বি গ্রহটিকে। এটি পৃথিবীর চেয়ে দ্বিগুণ বড় ও ভর পৃথিবীর আট গুণ বেশি।

এটি যে নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে, সেটি সূর্যের চেয়ে অপেক্ষাকৃত কম উত্তপ্ত, আকারে অর্ধেক ও সচরাচর ‘লাল বামন’ নামে পরিচিত।

মাত্র ১৪ মাইল দূরত্বে অবস্থিত গ্রহটি ৩৩ দিনে একবার নিজ নক্ষত্রকে পরিভ্রমণ করে। কে২-১৮বি’তে পানি রয়েছে আয়তনের শতকরা ৫০ ভাগ জুড়ে।

গ্রহটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য এটির তাপমাত্রা।  এর আগে অনেক গ্রহে পানির অস্তিত্ব পাওয়া গেলেও সেসব গ্রহের তাপমাত্রা প্রাণের টিকে থাকার অনুকূলে ছিল না। তবে কে২-১৮বি-এর তাপমাত্রা খুব গরম বা ঠাণ্ডা নয়; ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বলে নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।  

পানির সন্ধান মিলল কে২-১৮বি গ্রহে

 যুগান্তর ডেস্ক 
১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পৃথিবী থেকে ১১১ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত কে২-১৮বি নামে একটি গ্রহে পানির অস্তিত্ব খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

কয়েক বছর আগে গ্রহটির সন্ধান পান বিজ্ঞানীরা। এ ছাড়া কে২-১৮বি-এর তাপমাত্রা প্রাণী কিংবা অণুজীব টিকিয়ে রাখার জন্য যথেষ্ট বলেও মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। খবর ডেইলি সাবাহর।

আগে কখনই অন্য কোনো গ্রহের ক্ষেত্রে ঘটেনি। সম্প্রতি নেচার অ্যাস্ট্রোনমিতে প্রকাশিত প্রবন্ধে বলা হয়েছে, আগামী ১০ বছরের মধ্যে নিশ্চিত হওয়া সম্ভব দূরবর্তী সেই গ্রহে কোনো প্রাণের বসবাস রয়েছে কিনা।

তাই কে২-১৮বিকে দেয়া হচ্ছে পৃথিবীর পরই সবচেয়ে ‘বসবাসযোগ্য’ গ্রহের তকমা।

২০১৫ সালে নাসার কেপলার স্পেস টেলিস্কোপ প্রথম খুঁজে পায় কে২-১৮বি গ্রহটিকে। এটি পৃথিবীর চেয়ে দ্বিগুণ বড় ও ভর পৃথিবীর আট গুণ বেশি।

এটি যে নক্ষত্রকে কেন্দ্র করে ঘুরছে, সেটি সূর্যের চেয়ে অপেক্ষাকৃত কম উত্তপ্ত, আকারে অর্ধেক ও সচরাচর ‘লাল বামন’ নামে পরিচিত।

মাত্র ১৪ মাইল দূরত্বে অবস্থিত গ্রহটি ৩৩ দিনে একবার নিজ নক্ষত্রকে পরিভ্রমণ করে। কে২-১৮বি’তে পানি রয়েছে আয়তনের শতকরা ৫০ ভাগ জুড়ে।

গ্রহটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য এটির তাপমাত্রা। এর আগে অনেক গ্রহে পানির অস্তিত্ব পাওয়া গেলেও সেসব গ্রহের তাপমাত্রা প্রাণের টিকে থাকার অনুকূলে ছিল না। তবে কে২-১৮বি-এর তাপমাত্রা খুব গরম বা ঠাণ্ডা নয়; ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস বলে নিশ্চিত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।