ইতিহাসের বিখ্যাত পাঁচ প্রাসাদ দেখুন ছবিতে

  আরিফুল ইসলাম ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৮:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

টপকাপি প্রাসাদ, তুরস্ক
তুরস্কর টপকাপি প্রাসাদ। ছবি: সংগৃহীত।

সারা বিশ্বের নানা দেশে রয়েছে ঐতিহাসিক সব প্রাসাদ। এগুলোর গঠনশৈলি যেমন বিস্ময়কর তেমনি দৃষ্টিনন্দন রূপ। এসব প্রাসাদের বয়সও কম নয়। ঐতিহাসিক গুরুত্বের কারণে নানা দেশের পর্যটকরা দেখতে আসেন প্রাসাদগুলো। ইউরোপের বিখ্যাত পাঁচ প্রাসাদ নিয়ে আজকের আয়োজন।

লুবোকা প্রাসাদদুর্গ, চেক প্রজাতন্ত্র

বোহেমিয়ার শোয়ারৎসেনবার্গের নৃপতিদের সাবেক বাসভবনটি আজ চেক প্রজাতন্ত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রাসাদগুলোর মধ্যে পড়ে। এখানে সপ্তদশ শতাব্দীর ওয়ালপেপারের যে সংগ্রহ আছে, তা সত্যিই দর্শনীয়।

টপকাপি প্রাসাদ, তুরস্ক

ইস্তাম্বুলের টপকাপি প্রাসাদ ছিল পঞ্চদশ শতাব্দীর মাঝামাঝি তুর্কি সম্রাটের বাসভবন। প্রাসাদের চারটি মূল চত্বর এবং অন্যান্য ছোটখাটো ভবন আছে, যেখানে প্রাসাদের প্রায় পাঁচ হাজার কর্মী বসবাস ও কাজ করতেন।

শ্যোনব্রুন প্রাসাদ, অস্ট্রিয়া

প্রায় ৩০০ বছর আগের কথা। অস্ট্রো-হাঙ্গেরীয় সাম্রাজ্যের সম্রাজ্ঞী মারিয়া টেরেজা ভিয়েনার শ্যোনব্রুন প্রাসাদকে ইউরোপের রাজকীয় ঐতিহ্যের কেন্দ্রবিন্দু করে তোলেন। প্রতিবছর পঁচিশ লাখের বেশি টুরিস্ট আসেন এই শ্যোনব্রুন প্রাসাদ দেখতে।

দোজের প্রাসাদ, ইতালি

ভেনিসের সাবেক প্রজাতন্ত্রের সর্বোচ্চ আধিকারিক ছিলেন ‘দোজে’ বা ডিউক। সান মার্কো চত্বরে তার প্রাসাদটি ছিল একাধারে বাসভবন, নৌ এবং বাণিজ্যশক্তি হিসেবে ভেনিসের প্রতিপত্তির প্রতীক। ভেনেশিয়ান গথিক শৈলীর প্রাসাদটি বারবার অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং বারবার তা সারানো হয়েছে। প্রাসাদটি বর্তমানে একটি মিউজিয়াম।

পেনা জাতীয় প্রাসাদ, পর্তুগাল

রোমান্টিসিজমের আমলের এ প্রাসাদটিতে নানা ধরনের স্থাপত্যশৈলির খেয়ালী সংমিশ্রণ। অনেকের তা দেখে ডিজনিল্যান্ডের কথা মনে পড়ে যায়। টুরিস্টরা কিন্তু সিন্ত্রা শহরের এ প্রাসাদটির প্রেমে পড়ে আছেন। চতুর্দশ শতাব্দী থেকেই পেনা প্রাসাদটি পর্তুগালের রাজপরিবারের গ্রীষ্মকালীন বাসভবন হিসেবে ব্যবহার করা হয়ে আসছে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×