মৃত ঘোষণার ৪৫ মিনিট পর নড়ে উঠলেন পর্বতারোহী
jugantor
মৃত ঘোষণার ৪৫ মিনিট পর নড়ে উঠলেন পর্বতারোহী

  অনলাইন ডেস্ক  

১৮ নভেম্বর ২০২০, ১৬:১০:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ছবি সংগৃহীত

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যাওয়ার ৪৫ মিনিট পর জেগে উঠলেন এক পর্বতারোহী! এমন অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। ওই পর্বতারোহীর নাম মাইকেল নাপিনস্কি।

আমেরিকার মাউন্ট রেনইয়ার ন্যাশনাল পার্কে একেবারে বরফে জমাট বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল নাপিনস্কিকে। তখনও বেঁচে ছিলেন তিনি। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে যায়। যদিও শেষ পর্যন্ত বেঁচে ফিরেছেন তিনি।

৪৫ বছরের নাপিনস্কি তার বন্ধুদের সঙ্গে মাউন্ট পর্বতে উঠছিলেন। মাঝপথে তিনি দলছুট হয়ে পড়েন। তার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, নির্দিষ্ট পয়েন্টে বন্ধুদের সঙ্গে আবার মিলিত হবেন। কিন্তু আবহাওয়া ভালো না থাকায় ক্রমে পরিস্থিতি এত খারাপ হয় যে দৃশ্যমানতা প্রায় শূন্যে পৌঁছে যায়।

সেদিন সন্ধ্যার মধ্যে নির্দিষ্ট পয়েন্টে পৌঁছতে পারেননি তিনি। তার পরেই তার বন্ধুর নাপিনস্কির নিখোঁজ হওয়ার খবর পাঠান। অনেক চেষ্টা করার পর হেলিকপ্টারের মাধ্যমে তাকে উদ্ধার করা হয়। সিয়াটলের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। হাসপাতালে পৌঁছলে দেখা যায়, নাপিনস্কির হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে গেছে।

তার পর চিকিৎসকরা সিপিআর দিতে শুরু করেন ও অতিরিক্ত অক্সিজেনের সাপোর্ট দেয়া হয়। পাম্প করে দেয়া হয় রক্তও যাতে অতিরিক্ত কার্বন-ডাই অক্সাইড বের করে আনা যায়। টানা ৪৫ মিনিট এই চিকিৎসা চলার পর হঠাৎ হৃদস্পন্দন ফিরে আসে তার। এর দুদিন পর জ্ঞান ফেরে নাপিনস্কির।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

মৃত ঘোষণার ৪৫ মিনিট পর নড়ে উঠলেন পর্বতারোহী

 অনলাইন ডেস্ক 
১৮ নভেম্বর ২০২০, ০৪:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ছবি সংগৃহীত
ছবি সংগৃহীত

হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যাওয়ার ৪৫ মিনিট পর জেগে উঠলেন এক পর্বতারোহী! এমন অবিশ্বাস্য ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে। ওই পর্বতারোহীর নাম মাইকেল নাপিনস্কি। 

আমেরিকার মাউন্ট রেনইয়ার ন্যাশনাল পার্কে একেবারে বরফে জমাট বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল নাপিনস্কিকে। তখনও বেঁচে ছিলেন তিনি। কিন্তু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে যায়। যদিও শেষ পর্যন্ত বেঁচে ফিরেছেন তিনি। 

৪৫ বছরের নাপিনস্কি তার বন্ধুদের সঙ্গে মাউন্ট পর্বতে উঠছিলেন। মাঝপথে তিনি দলছুট হয়ে পড়েন। তার পর তিনি সিদ্ধান্ত নেন, নির্দিষ্ট পয়েন্টে বন্ধুদের সঙ্গে আবার মিলিত হবেন। কিন্তু আবহাওয়া ভালো না থাকায় ক্রমে পরিস্থিতি এত খারাপ হয় যে দৃশ্যমানতা প্রায় শূন্যে পৌঁছে যায়।

সেদিন সন্ধ্যার মধ্যে নির্দিষ্ট পয়েন্টে পৌঁছতে পারেননি তিনি। তার পরেই তার বন্ধুর নাপিনস্কির নিখোঁজ হওয়ার খবর পাঠান। অনেক চেষ্টা করার পর হেলিকপ্টারের মাধ্যমে তাকে উদ্ধার করা হয়। সিয়াটলের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় তাকে। হাসপাতালে পৌঁছলে দেখা যায়, নাপিনস্কির হৃদযন্ত্র বন্ধ হয়ে গেছে। 

তার পর চিকিৎসকরা সিপিআর দিতে শুরু করেন ও অতিরিক্ত অক্সিজেনের সাপোর্ট দেয়া হয়। পাম্প করে দেয়া হয় রক্তও যাতে অতিরিক্ত কার্বন-ডাই অক্সাইড বের করে আনা যায়। টানা ৪৫ মিনিট এই চিকিৎসা চলার পর হঠাৎ হৃদস্পন্দন ফিরে আসে তার। এর দুদিন পর জ্ঞান ফেরে নাপিনস্কির।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা