বিদ্যুৎ-পানি-ইন্টারনেট নেই, তবুও বাড়ির দাম ৬ কোটি
jugantor
বিদ্যুৎ-পানি-ইন্টারনেট নেই, তবুও বাড়ির দাম ৬ কোটি

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০১:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

বাড়ি

বর্তমানে জটিল নাগরিক জীবনযাপনে অতিষ্ঠ হয়ে অনেকেই ভাবেন সব ছেড়ে শহর থেকে দূরে গিয়ে থাকতে পারলে মন্দ হতো না। কিন্তু যদি সত্যিই বিদ্যুৎ, পানি আর ইন্টারনেটের মতো নাগরিক সুবিধা ছাড়া কোনো বাড়িতে থাকতে বলা হয়, তাহলে অনেকেই রাজি নাও হতে পারেন। সম্প্রতি বিক্রির জন্য নিলামে তোলা হয়েছে এমনই এক বাড়ি। আর সেই বাড়ির দাম হাঁকা হয়েছে বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬ কোটি ৪১ লাখ টাকারও বেশি।

রোববার একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত ওই বাড়িতে নেই কোনো বিদ্যুৎ কিংবা ইন্টারনেট সংযোগ। এমনকি সুপেয় পানির সরবরাহও নেই ওই বাড়িতে। অবশ্য বাড়ির অদূরেই অবস্থিত সমুদ্রে রয়েছে নোনাপানির অফুরন্ত ভাণ্ডার।

যুক্তরাজ্যের ডেভন সাগরের তীরে ওই বাড়িটির অবস্থান। বাড়িটির মোট জায়গায় পরিমাণ ১৩৪৫ স্কয়ার ফুট। বাড়িটিতে দুটি বড় শয়নকক্ষ রয়েছে। রয়েছে একটি লাউঞ্জ, একটি ডাইনিং রুম, সামনে ও পেছনের বারান্দা, দুটি অতিরিক্ত শয়নকক্ষ, একটি বাথরুম এবং রান্নাঘর।

তবে বিদ্যুৎ না থাকলেও বাড়িটিতে রয়েছে ফায়ারপ্লেস, যা শীতের সময় বাড়িটির তাপমাত্রা সহনীয় রাখতে সাহায্য করে। রান্নার জন্য রয়েছে গ্যাসের চুলা। রয়েছে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের ব্যবস্থা।

আর গাড়ি থেকে নেমে মাত্র ১৫ মিনিট হাঁটলেই ওই বাড়িতে পৌঁছানো যাবে। বিদ্যুৎ, পানি কিংবা ইন্টারনেট না থাকলেও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে দেখতে বাড়ির বাসিন্দাদের সময় আরামেই কেটে যাবে বলে দাবি করেছেন বিক্রেতারা।

বিদ্যুৎ-পানি-ইন্টারনেট নেই, তবুও বাড়ির দাম ৬ কোটি

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাড়ি
ছবি : প্রতীকী

বর্তমানে জটিল নাগরিক জীবনযাপনে অতিষ্ঠ হয়ে অনেকেই ভাবেন সব ছেড়ে শহর থেকে দূরে গিয়ে থাকতে পারলে মন্দ হতো না। কিন্তু যদি সত্যিই বিদ্যুৎ, পানি আর ইন্টারনেটের মতো নাগরিক সুবিধা ছাড়া কোনো বাড়িতে থাকতে বলা হয়, তাহলে অনেকেই রাজি নাও হতে পারেন। সম্প্রতি বিক্রির জন্য নিলামে তোলা হয়েছে এমনই এক বাড়ি। আর সেই বাড়ির দাম হাঁকা হয়েছে বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬ কোটি ৪১ লাখ টাকারও বেশি।

রোববার একটি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাহাড়ের চূড়ায় অবস্থিত ওই বাড়িতে নেই কোনো বিদ্যুৎ কিংবা ইন্টারনেট সংযোগ। এমনকি সুপেয় পানির সরবরাহও নেই ওই বাড়িতে। অবশ্য বাড়ির অদূরেই অবস্থিত সমুদ্রে রয়েছে নোনাপানির অফুরন্ত ভাণ্ডার। 

যুক্তরাজ্যের ডেভন সাগরের তীরে ওই বাড়িটির অবস্থান। বাড়িটির মোট জায়গায় পরিমাণ ১৩৪৫ স্কয়ার ফুট। বাড়িটিতে দুটি বড় শয়নকক্ষ রয়েছে। রয়েছে একটি লাউঞ্জ, একটি ডাইনিং রুম, সামনে ও পেছনের বারান্দা, দুটি অতিরিক্ত শয়নকক্ষ, একটি বাথরুম এবং রান্নাঘর। 

তবে বিদ্যুৎ না থাকলেও বাড়িটিতে রয়েছে ফায়ারপ্লেস, যা শীতের সময় বাড়িটির তাপমাত্রা সহনীয় রাখতে সাহায্য করে। রান্নার জন্য রয়েছে গ্যাসের চুলা। রয়েছে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণের ব্যবস্থা।

আর গাড়ি থেকে নেমে মাত্র ১৫ মিনিট হাঁটলেই ওই বাড়িতে পৌঁছানো যাবে। বিদ্যুৎ, পানি কিংবা ইন্টারনেট না থাকলেও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখতে দেখতে বাড়ির বাসিন্দাদের সময় আরামেই কেটে যাবে বলে দাবি করেছেন বিক্রেতারা।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন