একা পুরুষদের প্রবেশ নিষেধ এই রেস্টুরেন্টে!
jugantor
একা পুরুষদের প্রবেশ নিষেধ এই রেস্টুরেন্টে!

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৩৭:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

YdhYd

লেডিস ফার্স্ট কথাটি শুনেছেন নিশ্চয়ই। পুরুষরা নানা কারণে এ কথা বলেই থাকেন। তবে এই রেস্টুরেন্টে খেতে গেলে জেন্টালম্যান মানে পুরুষদেরই লেডিজ ওনলি শর্ত মানতে হবে। মানে একা কোনো পুরুষ ঢুকতে পারবেন না এই রেস্টুরেন্টে।

তবে সঙ্গে কোনো নারী থাকলে তাকে অবশ্য ফেরাবে না রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এই আজব শর্তের জন্য নেটিজেনদের নজরে এসেছে এই রেস্টুরেন্ট।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের রাজস্থানের ওই রেস্টুরেন্টের খবর সামনে আনেন হর্ষিতা শর্মা নামের এক নেটিজেন।
টুইটারে ওই রেস্টুরেন্টে বসে থাকার ছবি পোস্ট করেছেন হর্ষিতা। তার মাথার উপরে থাকা এসিতে লেখা ছিল “এখানে নারীদের সঙ্গেই কেবল পুরুষদের প্রবেশের অনুমতি রয়েছে।”

ওই ছবি আপলোড করে ক্যাপশনে হর্ষিতা লিখেছেন, এই কারণেই আমাকে ডাল-রুটি খেতে এখানে আনা হয়েছে।

ওই ছবি ইতোমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নেটিজেনরা। কেউ রসিকতা করে হর্ষিতাকে লিখেছেন, আপনি সঙ্গে গেলে আমি সুস্বাদু খাবার খেতে পারব।

কেউ আবার ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, তাহলে ৩০ বছরের সিঙ্গেল পুরুষ হয়ে আমি কীভাবে এই রেস্টুরেন্টে যাব। এইরেস্টুরেন্টে পুরুষদের অপমান করছে।

এ ব্যাপারে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, নারীদের প্রতি সম্মান জানাতেই এই নির্দেশনাজারি করেছে তারা।

একা পুরুষদের প্রবেশ নিষেধ এই রেস্টুরেন্টে!

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৩৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
YdhYd
ছবি : প্রতীকী

লেডিস ফার্স্ট কথাটি শুনেছেন নিশ্চয়ই। পুরুষরা নানা কারণে এ কথা বলেই থাকেন। তবে এই রেস্টুরেন্টে খেতে গেলে জেন্টালম্যান মানে পুরুষদেরই লেডিজ ওনলি শর্ত মানতে হবে। মানে একা কোনো পুরুষ ঢুকতে পারবেন না এই রেস্টুরেন্টে।

তবে সঙ্গে কোনো নারী থাকলে তাকে অবশ্য ফেরাবে না রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি এই আজব শর্তের জন্য নেটিজেনদের নজরে এসেছে এই রেস্টুরেন্ট।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের রাজস্থানের ওই রেস্টুরেন্টের খবর সামনে আনেন হর্ষিতা শর্মা নামের এক নেটিজেন।
টুইটারে ওই রেস্টুরেন্টে বসে থাকার ছবি পোস্ট করেছেন  হর্ষিতা। তার মাথার উপরে থাকা এসিতে লেখা ছিল “এখানে নারীদের সঙ্গেই কেবল পুরুষদের প্রবেশের অনুমতি রয়েছে।”

ওই ছবি আপলোড করে ক্যাপশনে হর্ষিতা লিখেছেন, এই কারণেই আমাকে ডাল-রুটি খেতে এখানে আনা হয়েছে।

ওই ছবি ইতোমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে। তাতে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন নেটিজেনরা। কেউ রসিকতা করে হর্ষিতাকে লিখেছেন, আপনি সঙ্গে গেলে আমি সুস্বাদু খাবার খেতে পারব। 

কেউ আবার ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিক্রিয়া জানিয়ে লিখেছেন, তাহলে ৩০ বছরের সিঙ্গেল পুরুষ হয়ে আমি কীভাবে এই রেস্টুরেন্টে যাব। এই রেস্টুরেন্টে পুরুষদের অপমান করছে।

এ ব্যাপারে রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, নারীদের প্রতি সম্মান জানাতেই এই নির্দেশনা জারি করেছে তারা।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন