দিব্যি চলছে ১০ মাস আগে নদীতে তলিয়ে যাওয়া ফোন!
jugantor
দিব্যি চলছে ১০ মাস আগে নদীতে তলিয়ে যাওয়া ফোন!

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৮ জুন ২০২২, ০৪:২৫:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বিভিন্ন শনাক্তকরণ প্রযুক্তি থাকার পরও মোবাইল ফোন হারালে তা খুঁজে পাওয়ার আশা ছেড়ে দেন অনেকেই। তেমননি ফোন পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন এই যুবক। আর দেবেন নাই বা কেন? ফোনটি তো আর চুরি যায়নি, নদীতে তলিয়ে গেছে। তাই ১০ মাস পর যখন নদীতে তলিয়ে যাওয়া ফোনটি তিনি ফিরে পেলেন, তাও সচল অবস্থায় তখন নিজের ভাগ্যকে বিশ্বাস করা তার জন্য কঠিন ছিল বৈকি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের আগস্টে ব্রিটেনের গ্লুস্টারসায়ারে নিজের সাধের আইফোন হারিয়ে ফেলেন ওয়েইন ডেভিস। একটি ব্যাচেলর পার্টিতে গিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে নিজের ক্যানো বা ছোট নৌকা নিয়ে নদীতে যান তিনি। কিন্তু খরস্রোতা নদীর মধ্যে দিয়ে যাওয়ার সময়ই আচমকা তিনি বুঝতে পারেন, পিছনের পকেটে রাখা ফোনটা আর নেই! সেটা পড়ে গিয়েছে নদীতে।
ডেভিস যে সাধের ফোন ফিরে পাওয়ার আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

এর পর কেটে গেছে ১০ মাস। মিগুয়েল পাচেকো নামের এক ব্যক্তি সপরিবারে ক্যানো নিয়ে ওই নদীতেই বেড়াতে যান। সেই সময়ই ডেভিসের কাদামাখা ফোনটি তার হাতে আছে।

স্বাভাবিক ভাবেই কাদামাখা ফোনটি হাতে নিয়ে তার মনে হয়নি এটা চালু হতে পারে। তবে তাকে অবাক করে দিয়ে ফোনটি দিব্যি চালু হয়।

এ ব্যাপারে বিবিসিকে তিনি বলেন, আমি ভাবতে পারিনি সেটা আদৌ আর চালু করা যাবে। পানির গভীরে ডুবে ছিল ফোনটা।
কিন্তু ফোনটা চার্জে বসাতেই চমকে যান মিগুয়েল। দেখতে পান, দিব্যি চলছে ফোনটি! পরে সেটি অন করতেই দেখতে পান সেখানে তারিখ দেখাচ্ছে ১৩ আগস্ট ২০২১। ফোনের স্ক্রিনসেভারে রয়েছে এক দম্পতির ছবি।

এরপরই তিনি ফোনের ছবি শেয়ার করেন ফেসবুকে। সব মিলিয়ে ৪ হাজার বার শেয়ার হয় ওই পোস্ট। কিন্তু ডেভিসের চোখে তা পড়েনি। কারণ তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করেন না। পরে এক বন্ধু তাকে বিষয়টি জানায়।

অবশেষে নিজের আইফোন ফিরে পেয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েন ডেভিস। সেই সঙ্গে তিনি অভিভূত মিগুয়েলকে দেখেও। ভদ্রলোক ফোনটিকে তার মালিকের কাছে পৌঁছে দিতে যেভাবে চেষ্টা করে গিয়েছেন তার জন্য কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয় বলেই মনে করছেন ডেভিস।

আইফোন ১ মিটার পরিষ্কার পানির নিচে ৩০ মিনিট থাকলেও নষ্ট হয় না। কিন্তু এভাবে নদীর গভীরে ১০ মাস তলিয়ে থেকেও যেভাবে ফোনটি কর্মক্ষম রয়ে গিয়েছে তাকে ‘অলৌকিক’ মনে করছেন নেটিজেনরা।

দিব্যি চলছে ১০ মাস আগে নদীতে তলিয়ে যাওয়া ফোন!

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৮ জুন ২০২২, ০৪:২৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বিভিন্ন শনাক্তকরণ প্রযুক্তি থাকার পরও মোবাইল ফোন হারালে তা খুঁজে পাওয়ার আশা ছেড়ে দেন অনেকেই। তেমননি ফোন পাওয়ার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন এই যুবক। আর দেবেন নাই বা কেন? ফোনটি তো আর চুরি যায়নি, নদীতে তলিয়ে গেছে। তাই ১০ মাস পর যখন নদীতে তলিয়ে যাওয়া ফোনটি তিনি ফিরে পেলেন, তাও সচল অবস্থায় তখন নিজের ভাগ্যকে বিশ্বাস করা তার জন্য কঠিন ছিল বৈকি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের আগস্টে ব্রিটেনের গ্লুস্টারসায়ারে নিজের সাধের আইফোন হারিয়ে ফেলেন ওয়েইন ডেভিস। একটি ব্যাচেলর পার্টিতে গিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে নিজের ক্যানো বা ছোট নৌকা নিয়ে নদীতে যান তিনি। কিন্তু খরস্রোতা নদীর মধ্যে দিয়ে যাওয়ার সময়ই আচমকা তিনি বুঝতে পারেন, পিছনের পকেটে রাখা ফোনটা আর নেই! সেটা পড়ে গিয়েছে নদীতে।
ডেভিস যে সাধের ফোন ফিরে পাওয়ার আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। 

এর পর কেটে গেছে ১০ মাস। মিগুয়েল পাচেকো নামের এক ব্যক্তি সপরিবারে ক্যানো নিয়ে ওই নদীতেই বেড়াতে যান। সেই সময়ই ডেভিসের  কাদামাখা ফোনটি তার হাতে আছে।

স্বাভাবিক ভাবেই কাদামাখা ফোনটি হাতে নিয়ে তার মনে হয়নি এটা চালু হতে পারে। তবে তাকে অবাক করে দিয়ে ফোনটি দিব্যি চালু হয়। 

এ ব্যাপারে বিবিসিকে তিনি বলেন, আমি ভাবতে পারিনি সেটা আদৌ আর চালু করা যাবে। পানির গভীরে ডুবে ছিল ফোনটা।
কিন্তু ফোনটা চার্জে বসাতেই চমকে যান মিগুয়েল। দেখতে পান, দিব্যি চলছে ফোনটি! পরে সেটি অন করতেই দেখতে পান সেখানে তারিখ দেখাচ্ছে ১৩ আগস্ট ২০২১। ফোনের স্ক্রিনসেভারে রয়েছে এক দম্পতির ছবি।

এরপরই তিনি ফোনের ছবি শেয়ার করেন ফেসবুকে। সব মিলিয়ে ৪ হাজার বার শেয়ার হয় ওই পোস্ট। কিন্তু ডেভিসের চোখে তা পড়েনি। কারণ তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করেন না। পরে এক বন্ধু তাকে বিষয়টি জানায়।

অবশেষে নিজের আইফোন ফিরে পেয়ে আপ্লুত হয়ে পড়েন ডেভিস। সেই সঙ্গে তিনি অভিভূত মিগুয়েলকে দেখেও। ভদ্রলোক ফোনটিকে তার মালিকের কাছে পৌঁছে দিতে যেভাবে চেষ্টা করে গিয়েছেন তার জন্য কোনো প্রশংসাই যথেষ্ট নয় বলেই মনে করছেন ডেভিস। 

আইফোন ১ মিটার পরিষ্কার পানির নিচে ৩০ মিনিট থাকলেও নষ্ট হয় না। কিন্তু এভাবে নদীর গভীরে ১০ মাস তলিয়ে থেকেও যেভাবে ফোনটি কর্মক্ষম রয়ে গিয়েছে তাকে ‘অলৌকিক’ মনে করছেন নেটিজেনরা। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন