‘বঙ্গবন্ধুর হত্যার পেছনে দেশি-বিদেশি পরাজিত শক্তি জড়িত ছিল’
jugantor
‘বঙ্গবন্ধুর হত্যার পেছনে দেশি-বিদেশি পরাজিত শক্তি জড়িত ছিল’

  জাবি প্রতিনিধি  

১৪ আগস্ট ২০২০, ২২:৫০:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু এ অঞ্চলে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির চর্চার পথিকৃৎ। বিরোধী চক্র ১৯৭১ সালের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে দেশি-বিদেশি পরাজিত শক্তি জড়িত ছিল।

শুক্রবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত ‘অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের রূপকার: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ শীর্ষক ভার্চুয়াল স্মারক বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ইতিহাসে এমন নির্মম হত্যাকাণ্ড নজিরবিহীন। এমনকি মৃত্যুর পরও খুনিরা তার সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করেছে। বিশ্ব-ইতিহাসে বিরল ও অনন্য গুণের অধিকারী বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে পরাজিত শক্তির ভাবধারায় চালাতে শুরু করে কিন্তু বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে।’

‘বঙ্গবন্ধুর অর্থনীতির দর্শন’ শীর্ষক অপর স্মারক বক্তৃতায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন বলেন, ‘শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু স্বাধীন বাংলাদেশে কৃষক-শ্রমিকবান্ধব অর্থনীতি গড়ে তুলেছিলেন। বঙ্গবন্ধু একই সঙ্গে কৃষি এবং শিল্প উন্নয়নেরও পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। আর এ কারণেই তিনি গণমানুষের নেতা হতে পেরেছেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, আদর্শ একটা দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে অর্জিত হয়। দেশ ও দেশের মানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসার আদর্শ তার উত্তরাধিকারীরা গ্রহণ করেছেন।

ভার্চুয়াল স্মারক বক্তৃতার অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি হিসেবে শনিবার বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব মসজিদে কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল এবং রাঙ্গামাটি মন্দিরে প্রার্থনা এবং দুপুরে দরিদ্র এবং দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হবে। প্রায় সাড়ে ৪০০ ব্যক্তির মাঝে এই ত্রাণ বিতরণ করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান।

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যার পেছনে দেশি-বিদেশি পরাজিত শক্তি জড়িত ছিল’

 জাবি প্রতিনিধি 
১৪ আগস্ট ২০২০, ১০:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেছেন, বঙ্গবন্ধু এ অঞ্চলে অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির চর্চার পথিকৃৎ। বিরোধী চক্র ১৯৭১ সালের পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে। এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে দেশি-বিদেশি পরাজিত শক্তি জড়িত ছিল।

শুক্রবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত ‘অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের রূপকার: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’ শীর্ষক ভার্চুয়াল স্মারক বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ইতিহাসে এমন নির্মম হত্যাকাণ্ড নজিরবিহীন। এমনকি মৃত্যুর পরও খুনিরা তার সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করেছে। বিশ্ব-ইতিহাসে বিরল ও অনন্য গুণের অধিকারী বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশকে পরাজিত শক্তির ভাবধারায় চালাতে শুরু করে কিন্তু বাংলাদেশ ঘুরে দাঁড়িয়েছে।’

‘বঙ্গবন্ধুর অর্থনীতির দর্শন’ শীর্ষক অপর স্মারক বক্তৃতায় বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাস উদ্দিন বলেন, ‘শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধু স্বাধীন বাংলাদেশে কৃষক-শ্রমিকবান্ধব অর্থনীতি গড়ে তুলেছিলেন। বঙ্গবন্ধু একই সঙ্গে কৃষি এবং শিল্প উন্নয়নেরও পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। আর এ কারণেই তিনি গণমানুষের নেতা হতে পেরেছেন।’

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম বলেন, আদর্শ একটা দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে অর্জিত হয়। দেশ ও দেশের মানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসার আদর্শ তার উত্তরাধিকারীরা গ্রহণ করেছেন।

ভার্চুয়াল স্মারক বক্তৃতার অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচি হিসেবে শনিবার বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব মসজিদে কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল এবং রাঙ্গামাটি মন্দিরে প্রার্থনা এবং দুপুরে দরিদ্র এবং দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হবে। প্রায় সাড়ে ৪০০ ব্যক্তির মাঝে এই ত্রাণ বিতরণ করা হবে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান।