ঢাবির শহীদুল্লাহ হলে শিক্ষার্থীদের প্রবেশ, অমর একুশের সামনে অবস্থান
jugantor
ঢাবির শহীদুল্লাহ হলে শিক্ষার্থীদের প্রবেশ, অমর একুশের সামনে অবস্থান

  ঢাবি প্রতিবেদক  

২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:৩৯:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

হল

হল খুলে দেওয়ার দাবিতে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে; তার প্রভাব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়েছে।

সোমবার সকালে হল খুলে দেওয়ার দাবিতে ঢাবির শহীদুল্লাহ হলে শিক্ষার্থীরা জড়ো হন। দুপুরের দিকে ২০-৩০ শিক্ষার্থী ওই হলের এক্সটেনশন শহীদ আতাউর রহমান ভবনের ২১১১ নম্বর রুমে গিয়ে ওঠেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী যুগান্তরকে জানান, দেশের সব কিছু স্বাভাবিক থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও সরকার উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই আবাসিক হলগুলো বন্ধ রেখেছেন। তাই আজ থেকে আমরা হলেই থাকব।

এ বিষয়ে জানতে হলের প্রভোস্ট সৈয়দ হুমায়ুন আখতারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এদিকে হল খুলে দেওয়ার দাবিতে অমর একুশে হলের সামনে অবস্থান নিয়েছেন অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী। যে কোনো সময় তারা হলের ভেতরে প্রবেশ করবেন বলে ঘটনাস্থল থেকে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জানিয়েছেন।

অমর একুশে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইসতিয়াক এম সৈয়দ যুগান্তরকে বলেন, শিক্ষার্থীরা হলে ঢুকেছিল, এখন বের হয়ে গেছে। ওরা যদি হলে প্রবেশ করে, সে ক্ষেত্রে পরিস্থিতি বুঝে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমাদের হল তো বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে না। অন্য হলে যা হবে, এখানেও তাই হবে।

ঢাবির শহীদুল্লাহ হলে শিক্ষার্থীদের প্রবেশ, অমর একুশের সামনে অবস্থান

 ঢাবি প্রতিবেদক 
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০১:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
হল
ছবি-যুগান্তর

হল খুলে দেওয়ার দাবিতে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে; তার প্রভাব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়েছে। 

সোমবার সকালে হল খুলে দেওয়ার দাবিতে ঢাবির শহীদুল্লাহ হলে শিক্ষার্থীরা জড়ো হন। দুপুরের দিকে ২০-৩০ শিক্ষার্থী ওই হলের এক্সটেনশন শহীদ আতাউর রহমান ভবনের ২১১১ নম্বর রুমে গিয়ে ওঠেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী যুগান্তরকে জানান, দেশের সব কিছু স্বাভাবিক থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও সরকার উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবেই আবাসিক হলগুলো বন্ধ রেখেছেন। তাই আজ থেকে আমরা হলেই থাকব। 

এ বিষয়ে জানতে হলের প্রভোস্ট সৈয়দ হুমায়ুন আখতারকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। 

এদিকে হল খুলে দেওয়ার দাবিতে অমর একুশে হলের সামনে অবস্থান নিয়েছেন অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী। যে কোনো সময় তারা হলের ভেতরে প্রবেশ করবেন বলে ঘটনাস্থল থেকে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক জানিয়েছেন।  

অমর একুশে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ইসতিয়াক এম সৈয়দ যুগান্তরকে বলেন, শিক্ষার্থীরা হলে ঢুকেছিল, এখন বের হয়ে গেছে। ওরা যদি হলে প্রবেশ করে, সে ক্ষেত্রে পরিস্থিতি বুঝে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। আমাদের হল তো বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে না। অন্য হলে যা হবে, এখানেও তাই হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন