‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কিসের ভয়?’
jugantor
‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কিসের ভয়?’

  ইবি প্রতিনিধি  

২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৪:৪৩:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কিসের ভয়?’

‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কীসের ভয়?’, ‘বসার কথা পরীক্ষার হলে, বসতে হলো রাজপথে’, ‘খুলছে সিনেমা হল, বন্ধ কেন পরীক্ষার হল’, ‘পরীক্ষা নিয়ে টালবাহানা, চলবে না চলবে না’– এ রকম বিভিন্ন স্লোগানে আন্দোলন করছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীরা।

স্থগিত সব পরীক্ষা পুনরায় চালুর দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রশাসন ভবনের সামনে গিয়ে মানববন্ধনে মিলিত হয়। পরে প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে তারা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কছে দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, অনেক বিভাগের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। অনেক বিভাগের রুটিন দিয়েছে। তাই আমরা ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন মেস বাসায় ধার দেনা করে ভাড়া নিয়ে থাকছি। ফলে আমরা আর্থিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছি। ডেকে এনে আমাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে না।

‘এ কেমন প্রহসন? হল বন্ধ থাকায় আমরা নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ে মেসে থাকছি। সব কিছুই স্বাভাবিক, শুধু পরীক্ষাই স্থগিত। ৭ কলেজের পরীক্ষা চললে আমাদের হবে না কেনো? আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে।’

‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কিসের ভয়?’

 ইবি প্রতিনিধি 
২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কিসের ভয়?’
ছবি: যুগান্তর

‘সব চলে সব হয়, পরীক্ষা নিতে কীসের ভয়?’, ‘বসার কথা পরীক্ষার হলে, বসতে হলো রাজপথে’, ‘খুলছে সিনেমা হল, বন্ধ কেন পরীক্ষার হল’, ‘পরীক্ষা নিয়ে টালবাহানা, চলবে না চলবে না’– এ রকম বিভিন্ন স্লোগানে আন্দোলন করছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) শিক্ষার্থীরা।

স্থগিত সব পরীক্ষা পুনরায় চালুর দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষার্থীরা। মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব ম্যুরালের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়।

মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রশাসন ভবনের সামনে গিয়ে মানববন্ধনে মিলিত হয়। পরে প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে পরীক্ষা গ্রহণের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকে তারা। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কছে দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি প্রদান করে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, অনেক বিভাগের পরীক্ষা শুরু হয়েছিল। অনেক বিভাগের রুটিন দিয়েছে। তাই আমরা ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন মেস বাসায় ধার দেনা করে ভাড়া নিয়ে থাকছি। ফলে আমরা আর্থিক ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হচ্ছি। ডেকে এনে আমাদের পরীক্ষা নেওয়া হবে না।

‘এ কেমন প্রহসন? হল বন্ধ থাকায় আমরা নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ে মেসে থাকছি। সব কিছুই স্বাভাবিক, শুধু পরীক্ষাই স্থগিত। ৭ কলেজের পরীক্ষা চললে আমাদের হবে না কেনো? আমাদের দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন