ঢাবির নতুন প্রোভিসি অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল
jugantor
ঢাবির নতুন প্রোভিসি অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৫ জুন ২০২০, ১৭:২৮:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রোভিসি (শিক্ষা) হিসেবে চার বছরের জন্য নিয়োগ পেয়েছেন অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর এর অনুমোদনক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩ এর ১৩ (১) ধারা অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড ইনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন এবং দুর্যোগবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালকে উপ-উপাচার্যের শূন্য পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে জানিয়ে প্রজ্ঞাপনে আরও উল্লেখ করা হয়, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে যে কোন সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।

ঢাবির নতুন প্রোভিসি অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৫ জুন ২০২০, ০৫:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। ফাইল ছবি
অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন প্রোভিসি (শিক্ষা) হিসেবে চার বছরের জন্য নিয়োগ পেয়েছেন অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল। বৃহস্পতিবার শিক্ষামন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। 

রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব নীলিমা আফরোজ স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়,  মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর এর অনুমোদনক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আদেশ, ১৯৭৩ এর ১৩ (১) ধারা অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) এর মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্থ অ্যান্ড ইনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অনুষদের ডিন এবং দুর্যোগবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামালকে উপ-উপাচার্যের শূন্য পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। 

জনস্বার্থে জারিকৃত এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে জানিয়ে প্রজ্ঞাপনে আরও উল্লেখ করা হয়, মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও চ্যান্সেলর প্রয়োজন মনে করলে যে কোন সময় এ নিয়োগ বাতিল করতে পারবেন।