আলেশামার্টের প্রতারণার শিকার গ্রাহকদের মানববন্ধন, হুঁশিয়ারি
jugantor
আলেশামার্টের প্রতারণার শিকার গ্রাহকদের মানববন্ধন, হুঁশিয়ারি

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১০ জুন ২০২২, ২০:০৯:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আলেশামার্টের চেয়ারম্যান মনজুর আলম শিকদারের প্রতারণা ও তার বিদেশ যাওয়া নিষিদ্ধসহ বকেয়া টাকা পরিশোধের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ চেয়ে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এসব দাবি করেন তারা।

ভুক্তভোগী গ্রাহকরা বলেন, আলেশামার্ট কোম্পানিটি ২০২১ সালের জানুয়ারিতে বাজারে আসে এবং নিয়মিত প্রচারণার মাধ্যমে গ্রাহকদের নজরে আসে। আলেশামার্ট গত বছরের জুন মাসে একটি ক্যাম্পেইন শুরু করে যেখানে বাইকের ওপর ৩৫ ভাগ ছাড় দিয়ে ৪৫ দিনের মধ্যে বাইক পরিশোধ করার কথা জানায়। ওই ক্যাম্পেইনে ১ মাসের মধ্যে ৪৬ হাজার বাইকের অর্ডার পড়ে।

বক্তারা বলেন, আমরা আলেশামার্টের ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা আপনাদের স্মরণাপন্ন হয়েছি। গত বছরের জুন মাসের ক্যাম্পেইনের মূল টাকার একটি টাকাও আমরা পাইনি। এরপর আগস্ট মাসে ব্যাংক ডিপোজিট নামে বাইকের ৩৩ ভাগ ছাড়ের ওপর আরেকটি ক্যাম্পেইন চালু করে। সেটারও একটি টাকা আলেশামার্ট গ্রাহকদের পরিশোধ করেনি। বিপুল পরিমাণ টাকা সংগ্রহ করে হাতিয়ে নেয় ১৫ হাজার গ্রাহকের আনুমানিক ৪৬০ কোটির কাছাকাছি টাকা।

গ্রাহকরা বারবার হয়রানি শিকার হচ্ছেন জানিয়ে মানববন্ধনে ভুক্তভোগীরা বলেন, গত বছরের জুন ও আগস্টে ব্যাংক ডিপোজিটের টাকা গ্রাহকদের দেবে বলে সময় পার করছে আলেশামার্ট। আজকে তাদের অফিস বন্ধ। আলেশামার্টের চেয়ারম্যান বারবার ফেসবুক লাইভে এসে টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে একটি টাকাও পরিশোধ করেননি। অথচ ই-কমার্সে অর্ডারকারী ৯০ ভাগ গ্রাহক ছাত্রজনতা।’

এক বছর অগ্রীম টাকা জমা দিয়ে পণ্য ও রিফান্ড কোনোটাই না পেয়ে আলেশামার্টের ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা আজ মানববন্ধন করেন। এতে বক্তারা আরও বলেন, অনতিবিলম্বে এ মাসের মধ্যে আমরা আমাদের মূল টাকা ফেরত চাই। আলেশামার্টের চেয়ারম্যানের বিদেশ গমন নিষিদ্ধসহ বকেয়া টাকা পরিশোধে কার্যকর পদক্ষেপের জন্য সরকারকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান তারা।

এ সময় আলেশামার্ট টাকা পরিশোধ না করলে পাওনা টাকা আদায়ে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচির দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- ভুক্তভোগী গ্রাহক আশরাফুল আলম আশরাফ, হাসনাইন ফারাবী, আল-আমিন হোসেন, সোহেল চৌধুরী প্রমুখ।

আলেশামার্টের প্রতারণার শিকার গ্রাহকদের মানববন্ধন, হুঁশিয়ারি

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১০ জুন ২০২২, ০৮:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আলেশামার্টের চেয়ারম্যান মনজুর আলম শিকদারের প্রতারণা ও তার বিদেশ যাওয়া নিষিদ্ধসহ বকেয়া টাকা পরিশোধের জন্য কার্যকর পদক্ষেপ চেয়ে মানববন্ধন করেছেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এসব দাবি করেন তারা।

ভুক্তভোগী গ্রাহকরা বলেন, আলেশামার্ট কোম্পানিটি ২০২১ সালের জানুয়ারিতে বাজারে আসে এবং নিয়মিত প্রচারণার মাধ্যমে গ্রাহকদের নজরে আসে। আলেশামার্ট গত বছরের জুন মাসে একটি ক্যাম্পেইন শুরু করে যেখানে বাইকের ওপর ৩৫ ভাগ ছাড় দিয়ে ৪৫ দিনের মধ্যে বাইক পরিশোধ করার কথা জানায়। ওই ক্যাম্পেইনে ১ মাসের মধ্যে ৪৬ হাজার বাইকের অর্ডার পড়ে।

বক্তারা বলেন, আমরা আলেশামার্টের ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা আপনাদের স্মরণাপন্ন হয়েছি। গত বছরের জুন মাসের ক্যাম্পেইনের মূল টাকার একটি টাকাও আমরা পাইনি। এরপর আগস্ট মাসে ব্যাংক ডিপোজিট নামে বাইকের ৩৩ ভাগ ছাড়ের ওপর আরেকটি ক্যাম্পেইন চালু করে। সেটারও একটি টাকা আলেশামার্ট গ্রাহকদের পরিশোধ করেনি। বিপুল পরিমাণ টাকা সংগ্রহ করে হাতিয়ে নেয় ১৫ হাজার গ্রাহকের আনুমানিক ৪৬০ কোটির কাছাকাছি টাকা। 

গ্রাহকরা বারবার হয়রানি শিকার হচ্ছেন জানিয়ে মানববন্ধনে ভুক্তভোগীরা বলেন, গত বছরের জুন ও আগস্টে ব্যাংক ডিপোজিটের টাকা গ্রাহকদের দেবে বলে সময় পার করছে আলেশামার্ট। আজকে তাদের অফিস বন্ধ। আলেশামার্টের চেয়ারম্যান বারবার ফেসবুক লাইভে এসে টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে একটি টাকাও পরিশোধ করেননি। অথচ ই-কমার্সে অর্ডারকারী ৯০ ভাগ গ্রাহক ছাত্রজনতা।’

এক বছর অগ্রীম টাকা জমা দিয়ে পণ্য ও রিফান্ড কোনোটাই না পেয়ে আলেশামার্টের ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা আজ মানববন্ধন করেন। এতে বক্তারা আরও বলেন, অনতিবিলম্বে এ মাসের মধ্যে আমরা আমাদের মূল টাকা ফেরত চাই। আলেশামার্টের চেয়ারম্যানের বিদেশ গমন নিষিদ্ধসহ বকেয়া টাকা পরিশোধে কার্যকর পদক্ষেপের জন্য সরকারকে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানান তারা।

এ সময় আলেশামার্ট টাকা পরিশোধ না করলে পাওনা টাকা আদায়ে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচির দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন ভুক্তভোগী গ্রাহকেরা। 

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন- ভুক্তভোগী গ্রাহক আশরাফুল আলম আশরাফ, হাসনাইন ফারাবী, আল-আমিন হোসেন, সোহেল চৌধুরী প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন