বড়লেখায় হাঁস খেতে গিয়ে ধরা পড়ল মেছোবাঘ
jugantor
বড়লেখায় হাঁস খেতে গিয়ে ধরা পড়ল মেছোবাঘ

  বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি  

০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১:০৭:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

খাঁচাবন্দী মেছোবাঘ
খাঁচাবন্দী মেছোবাঘ

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় লোকালয়ে হাঁস খেতে গিয়ে আটকা পড়েছিল একটি মেছোবাঘ। এটিকে আটকে রাখে স্থানীয়রা।

শনিবার রাতে আটকের পর রোববার দুপুরে স্থানীয় বন কর্মকর্তারা মেছোবাঘটিকে লাউয়া ছড়া ন্যাশনাল পার্কে পাঠিয়েছেন।

পাহাড়ের খাদ্যের অভাবে শীত মৌসুমে প্রায়ই মেছোবাঘসহ নানা বন্যপ্রাণী লোকালয়ে বেরিয়ে পড়ে।

বনবিভাগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে উপজেলার দাসেরবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণ লঘাটি গ্রামের রাসেন্দ কুমার দাসের হাঁসের ঘরে হাঁস খেতে ঢুকে পড়ে একটি মেছোবাঘ। দুইটি হাঁস খাওয়ার পর ঘরেই আটকার পড়ে মেছোবাঘটি।

রোববার ভোরে অন্যান্য হাঁস-মোরগের চিৎকারে বাড়ির লোকজন প্রথমে শিয়াল মনে করে। পরে বুঝতে পারেন সেটি মেছোবাঘ।

খবর পেয়ে বনবিভাগের বড়লেখা রেঞ্জের সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস দীর্ঘ চেষ্টা চালিয়ে মেছোবাঘটিকে খাঁচাবন্দী করেন।

রাসেন্দ কুমার দাস জানান, গত কয়েকদিন ধরে গ্রামের অনেকের হাঁস-মোরগ খোয়া যাচ্ছিল। কেউ বুঝতে পারেননি মেছোবাঘ এগুলো খাচ্ছিল। ধরার পড়ার পর সকলের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে উঠেছে।

সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস জানান, মেছোবাঘটি উদ্ধার করে রোববার বিকালে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের স্টাফ মিজানুর রহমানের নিকট তুলে দিয়েছেন। সন্ধ্যায় লাউয়াছড়া ন্যাশনাল পার্কে মেছোবাঘটিকে অবমুক্ত করা হয়েছে।

বড়লেখায় হাঁস খেতে গিয়ে ধরা পড়ল মেছোবাঘ

 বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি 
০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৯:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খাঁচাবন্দী মেছোবাঘ
খাঁচাবন্দী মেছোবাঘ

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় লোকালয়ে হাঁস খেতে গিয়ে আটকা পড়েছিল একটি মেছোবাঘ। এটিকে আটকে রাখে স্থানীয়রা।

শনিবার রাতে আটকের পর রোববার দুপুরে স্থানীয় বন কর্মকর্তারা মেছোবাঘটিকে লাউয়া ছড়া ন্যাশনাল পার্কে পাঠিয়েছেন।

পাহাড়ের খাদ্যের অভাবে শীত মৌসুমে প্রায়ই মেছোবাঘসহ নানা বন্যপ্রাণী লোকালয়ে বেরিয়ে পড়ে।

বনবিভাগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতে উপজেলার দাসেরবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণ লঘাটি গ্রামের রাসেন্দ কুমার দাসের হাঁসের ঘরে হাঁস খেতে ঢুকে পড়ে একটি মেছোবাঘ। দুইটি হাঁস খাওয়ার পর ঘরেই আটকার পড়ে মেছোবাঘটি।

রোববার ভোরে অন্যান্য হাঁস-মোরগের চিৎকারে বাড়ির লোকজন প্রথমে শিয়াল মনে করে। পরে বুঝতে পারেন সেটি মেছোবাঘ।

খবর পেয়ে বনবিভাগের বড়লেখা রেঞ্জের সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস দীর্ঘ চেষ্টা চালিয়ে মেছোবাঘটিকে খাঁচাবন্দী করেন।

রাসেন্দ কুমার দাস জানান, গত কয়েকদিন ধরে গ্রামের অনেকের হাঁস-মোরগ খোয়া যাচ্ছিল। কেউ বুঝতে পারেননি মেছোবাঘ এগুলো খাচ্ছিল। ধরার পড়ার পর সকলের কাছে বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে উঠেছে।

সহযোগী রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস জানান, মেছোবাঘটি উদ্ধার করে রোববার বিকালে বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের স্টাফ মিজানুর রহমানের নিকট তুলে দিয়েছেন। সন্ধ্যায় লাউয়াছড়া ন্যাশনাল পার্কে মেছোবাঘটিকে অবমুক্ত করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন