নির্যাতন সইতে না পেরে যমুনা নদী সাঁতরে থানায় গৃহবধূ!

  বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি ১৭ জানুয়ারি ২০২০, ২০:১৮ | অনলাইন সংস্করণ

কামরুন্নাহার রিনা
কামরুন্নাহার রিনা

রাত ১২টা। মাঘের রাতে মানুষ যখন লেপ-কম্বল মুড়িয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। তখন এক নারী ভিজা শরীর নিয়ে কাঁপতে কাঁপতে থানায় এসে হাজির।

থানার ওসি মনিরুজ্জামান এমন দৃশ্য দেখে হতবাক।

জানা গেল, ওই নারী স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে জীবন বাঁচাতে শীতের রাতে নদী সাঁতরে ছুটে এসেছেন থানায়।

দিনাজপুরের বিরামপুর থানার এ ঘটনার বর্ণনা শুনে অনেকের বিবেক নাড়া দিয়ে উঠেছে।

জানা গেছে, বিরামপুর উপজেলার বড় বাইলশিরা গ্রামের আবেদ আলীর মেয়ে কামরুন্নাহার রিনার সঙ্গে প্রস্তমপুর গ্রামের রায়হান কবীরের ৬ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ৪ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। রায়হান কবীর প্রায়ই স্ত্রী রিনাকে মারধর করত।

বৃহস্পতিবার লাঠি দিয়ে রিনাকে বেদম মারধর করলে স্বামীর বাড়ি থেকে রাত ১২টায় শাখা যমুনা নদী সাঁতরে পার হয়ে বিরামপুর থানায় এসে হাজির হয়।

থানার ওসি মনিরুজ্জামান তাৎক্ষণিক মহিলা পুলিশের নিকট থেকে শুকনো পোশাক ও কম্বল নিয়ে ওই নারীকে দিয়ে শীতের প্রকোপ থেকে রক্ষা করেন। রাতেই পুলিশ পাঠিয়ে স্বামী রায়হানকে আটক করে নিয়ে আসেন। পুলিশ ওই নারীকে হাসপাতালে পাঠিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন।

শুক্রবার বিকালে থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, রিনার সংসার ঠিক রাখার লক্ষ্যে বিষয়টি উভয়পক্ষ নিষ্পত্তির চেষ্টা করছে। তবে নির্যাতিতা রিনা লিখিত অভিযোগ দিলে তাৎক্ষণিকভাবে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×