বরগুনায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

  যুগান্তর রিপোর্ট, বরগুনা ১৯ জুন ২০২০, ১৯:১২:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

বরগুনা প্রেস ক্লাব নিয়ে সামাজিক যোগাযোগে কটূক্তি করায় মাহবুবুল আলম মান্নু নামে এক সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মো. সালেহ। মাহবুবুল আলম মান্নু আমাদের সময়ের বরগুনা জেলা প্রতিনিধি।

জানা গেছে, বরগুনার হোমিও ডাক্তার আবুল কালাম আজাদ কিছু হোমিও ওষুধ নিয়ে পিপিই পরে ৪ জুন বরগুনা প্রেস ক্লাবে হাজির হন। ডাক্তার বলেন, এই হোমিও ওষুধ খেলে করোনা আক্রান্ত হবে না। প্রেস ক্লাবের সভাপতি সঞ্জিব দাস ও সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মো. সালেহ ওই ডাক্তারকে বিশ্বাস করে তার ওষুধ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগে পোস্ট দেন।

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাদের স্ট্যাটাসে আরও উল্লেখ করেন, ডাক্তার আবুল কালাম আজাদের দোকানে করোনার ওষুধ পাওয়া যাবে। ওই স্ট্যাটাসে মাহবুবুল আলম মান্নু লিখেছেন, বরগুনা প্রেস ক্লাবের কর্ণধারদের কত টাকায় বুকিং করেছে ডাক্তার আজাদ, করোনার ওষুধ পাবলিসিটি করতে। এতে প্রেস ক্লাবের সদস্যরা রুষ্ট হয়ে ৫ জুন বরগুনা থানায় মান্নুর বিরুদ্ধে আবু জাফর মো. সালেহ বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

সালেহ যুগান্তরকে বলেন, বরগুনা প্রেস ক্লাব ঐতিহ্যবাহী আদি সংগঠন। একটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে মানহানিকর পোস্ট দেয়া ঠিক হয়নি মান্নুর।

মাহবুবুল আলম মান্নু যুগান্তরকে বলেন, হোমিও ওষুধটি নাকি জার্মানির। যদি এই ওষুধে করোনা ভালো হয়, তাহলে জার্মানে করোনায় এতলোক মারা গেল কেন। সরকার অনুমোদনবিহীন ওষুধ প্রেস ক্লাবের কর্তাব্যক্তিরা বিজ্ঞাপন দিয়েছেন। এটা আইনত অপরাধ। আমিও বিশেষ ক্ষমতা আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছি।

বরগুনা থানার ওসি তরিকুল ইসলাম অরুণ যুগান্তরকে বলেন, মামলাটি বুধবার রাতে রেকর্ড করা হয়েছে।

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত