ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতির নেতৃত্বে গৌরীপুরে রাস্তা মেরামতে নেতাকর্মীরা
jugantor
ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতির নেতৃত্বে গৌরীপুরে রাস্তা মেরামতে নেতাকর্মীরা

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১২ জুলাই ২০২০, ২১:৪১:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাঙা রাস্তা যানবাহন চলাচলে চরম দুর্ভোগ আর শতাধিক পরিবারের জনজীবন অচল অবস্থা। এ পরিস্থিতি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে এলাকায়। দুর্ভোগের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হয়।

খবর পেয়ে শুক্রবার বিকাল থেকে শনিবার পর্যন্ত ভাঙা রাস্তার পানি সেচে মেরামত কাজ শুরু করে ছাত্রলীগ। এ কাজের নেতৃত্বে রয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

বোরবার বৃষ্টিতে ভিজেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এলাকাবাসীর দুর্ভোগ কমাতে মেরামত কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

স্কুল-কলেজ আর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও সেবা কার্যক্রমে পিছিয়ে নেই! ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্যোগে ধানাকাটা, ত্রাণ বিতরণ,অসুস্থ মানুষের সেবা, ওষুধ পৌঁছে দেয়াসহ অসংখ্য মানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন ময়মনসিংহের গৌরীপুরে। সঞ্জিত চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে রমজানে প্রায় ১৫ হাজার পথচারী ও অসহায় মানুষের হাতে ইফতারসামগ্রী তুলে দিয়ে অনন্যা দৃষ্টান্ত স্থাপন করে ছাত্রলীগ।

জানা গেছে, মইলাকান্দা ইউনিয়নের শ্যামগঞ্জের সন্তান মো. মারিয়াম জামান খান সোহানের ফেসবুকে এলাকাবাসীর দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ভিপি। খবরটি চোখে পড়তে ছুটে যান ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

তিনি শনিবার যুগান্তরকে জানান, ছোট ভাইদের ফেসবুক স্ট্যাটাস দেখে গেছি। সেখানে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. মোফাজ্জল হোসেন খানও হাজির হন। মানুষের দুর্ভোগ ও ভাঙা রাস্তা মেরামত করতে তাৎক্ষণিক উদ্যোগে নেয়া হয়। খবর পেয়ে অর্ধশত ছাত্রলীগের নেতাকর্মী স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত কাজে অংশ নেন। মেরামত শেষ করতে আরও দুই-তিনদিন লাগবে। রাস্তায় বালি, ইটের খোয়া, পাথর ফেলা হচ্ছে। এরপর রোলার দিয়ে যানবাহন ও মানুষের চলাচলের উপযোগী করে তোলা হবে।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মানবিক কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোফাজ্জল হোসেন খান। তিনি বলেন, আমি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলাম, আজকের ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ছাত্রলীগ। ওরা আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিত, আমি আজ  গর্বিত।

ছাত্রলীগের এ জনসেবামূলক কাজে সহযোগিতা ও অংশগ্রহণে এগিয়ে আসেন মইলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মামুনুর রশীদ, ইউপি সদস্য মো. ফারুক হোসেন, গৌরীপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, সাবেক সহ-সভাপতি রানা সাহা, মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ভিপি মারিয়াম জামান খান সোহান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপ-মানব বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাকিন খান আলিফ, সহ-সম্পাদক শেখ আবদুল মোহাইমিন তনয়, জগন্নাথ হল ছাত্রলীগের উপ-সমাজসেবা সম্পাদক  কুমার তনয়, গৌরীপুর ছাত্রলীগ নেতা সাব্বির আহমেদ রাসিক, ১নং মইলাকান্দা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কর্মী এসএম উজ্জ্বল, আরিফ মিয়া, দ্বীপ, রাহাদ মিয়া, তুষার রহমান, মো. সোহাগ মিয়া, ফজলে রাব্বী প্রমুখ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লুঙ্গি পড়ে কোমর বেঁধে রাস্তা মেরামতের কাজ করছেন। ওদের কাজ দেখে এলাকাবাসীও এগিয়ে আসছেন। কথা হয় শ্যামগঞ্জের নুর নাহারের সঙ্গে। তিনি জানান, ওরা কাজ করছে আমরা ওদের সেবা করবো।

এছাড়াও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ভাঙা রাস্তা মেরামতের খবরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও এগিয়ে এসেছেন।

মইলাকান্দা গ্রামের আবদুল জব্বার জানান, ভাঙা রাস্তাটি মেরামত হলে শতাধিক পরিবার জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পাবেন। হাজার হাজার এলাকাবাসী ও যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবে।

ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতির নেতৃত্বে গৌরীপুরে রাস্তা মেরামতে নেতাকর্মীরা

 গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১২ জুলাই ২০২০, ০৯:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাঙা রাস্তা যানবাহন চলাচলে চরম দুর্ভোগ আর শতাধিক পরিবারের জনজীবন অচল অবস্থা। এ পরিস্থিতি ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার মইলাকান্দা ইউনিয়নের শ্যামগঞ্জ রেলওয়ে এলাকায়। দুর্ভোগের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হয়।

খবর পেয়ে শুক্রবার বিকাল থেকে শনিবার পর্যন্ত ভাঙা রাস্তার পানি সেচে মেরামত কাজ শুরু করে ছাত্রলীগ। এ কাজের নেতৃত্বে রয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

বোরবার বৃষ্টিতে ভিজেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এলাকাবাসীর দুর্ভোগ কমাতে মেরামত কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

স্কুল-কলেজ আর বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও সেবা কার্যক্রমে পিছিয়ে নেই! ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের উদ্যোগে ধানাকাটা, ত্রাণ বিতরণ,অসুস্থ মানুষের সেবা, ওষুধ পৌঁছে দেয়াসহ অসংখ্য মানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন ময়মনসিংহের গৌরীপুরে। সঞ্জিত চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে রমজানে প্রায় ১৫ হাজার পথচারী ও অসহায় মানুষের হাতে ইফতারসামগ্রী তুলে দিয়ে অনন্যা দৃষ্টান্ত স্থাপন করে ছাত্রলীগ।

জানা গেছে, মইলাকান্দা ইউনিয়নের শ্যামগঞ্জের সন্তান মো. মারিয়াম জামান খান সোহানের ফেসবুকে এলাকাবাসীর দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ভিপি। খবরটি চোখে পড়তে ছুটে যান ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতি সঞ্জিত চন্দ্র দাস।

তিনি শনিবার যুগান্তরকে জানান, ছোট ভাইদের ফেসবুক স্ট্যাটাস দেখে গেছি। সেখানে উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. মোফাজ্জল হোসেন খানও হাজির হন। মানুষের দুর্ভোগ ও ভাঙা রাস্তা মেরামত করতে তাৎক্ষণিক উদ্যোগে নেয়া হয়। খবর পেয়ে অর্ধশত ছাত্রলীগের নেতাকর্মী স্বেচ্ছাশ্রমে মেরামত কাজে অংশ নেন। মেরামত শেষ করতে আরও দুই-তিনদিন লাগবে। রাস্তায় বালি, ইটের খোয়া, পাথর ফেলা হচ্ছে। এরপর রোলার দিয়ে যানবাহন ও মানুষের চলাচলের উপযোগী করে তোলা হবে।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মানবিক কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোফাজ্জল হোসেন খান। তিনি বলেন, আমি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলাম, আজকের ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ছাত্রলীগ। ওরা আর্তমানবতার সেবায় নিবেদিত, আমি আজ গর্বিত।

ছাত্রলীগের এ জনসেবামূলক কাজে সহযোগিতা ও অংশগ্রহণে এগিয়ে আসেন মইলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা মামুনুর রশীদ, ইউপি সদস্য মো. ফারুক হোসেন, গৌরীপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি উত্তম সরকার, সাবেক সহ-সভাপতি রানা সাহা, মাস্টারদা সূর্যসেন হলের ভিপি মারিয়াম জামান খান সোহান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের উপ-মানব বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাকিন খান আলিফ, সহ-সম্পাদক শেখ আবদুল মোহাইমিন তনয়, জগন্নাথ হল ছাত্রলীগের উপ-সমাজসেবা সম্পাদক কুমার তনয়, গৌরীপুর ছাত্রলীগ নেতা সাব্বির আহমেদ রাসিক, ১নং মইলাকান্দা ইউনিয়ন ছাত্রলীগ কর্মী এসএম উজ্জ্বল, আরিফ মিয়া, দ্বীপ, রাহাদ মিয়া, তুষার রহমান, মো. সোহাগ মিয়া, ফজলে রাব্বী প্রমুখ।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা লুঙ্গি পড়ে কোমর বেঁধে রাস্তা মেরামতের কাজ করছেন। ওদের কাজ দেখে এলাকাবাসীও এগিয়ে আসছেন। কথা হয় শ্যামগঞ্জের নুর নাহারের সঙ্গে। তিনি জানান, ওরা কাজ করছে আমরা ওদের সেবা করবো।

এছাড়াও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ভাঙা রাস্তা মেরামতের খবরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও এগিয়ে এসেছেন।

মইলাকান্দা গ্রামের আবদুল জব্বার জানান, ভাঙা রাস্তাটি মেরামত হলে শতাধিক পরিবার জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পাবেন। হাজার হাজার এলাকাবাসী ও যানবাহন চলাচলে দুর্ভোগ থেকে মুক্তি পাবে।