যুবকের কাছ থেকে প্রেমিকাকে ছিনিয়ে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৫
jugantor
যুবকের কাছ থেকে প্রেমিকাকে ছিনিয়ে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৫

  গাইবান্ধা প্রতিনিধি  

২৭ জুলাই ২০২০, ২৩:১৭:৪৯  |  অনলাইন সংস্করণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় মহিমাগঞ্জ এলাকায় প্রেমিকের কাছ থেকে প্রেমিকা স্কুলছাত্রীকে ছিনিয়ে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাতে গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে প্রেমিকও রয়েছেন।

জানা গেছে, মহিমাগঞ্জ এলাকার দশম শ্রেণির ছাত্রীকে নিয়ে তার প্রেমিক পালিয়ে যাওয়ার সময় রোববার রাত ১২টার দিকে পার্শ্ববর্তী হরিরামপুর ইউনিয়নের নাওভাঙ্গা এলাকায় পৌঁছায়। ওই এলাকার মৃত নীল মাহমুদের ছেলে এনামুল হক (৩০), আজিম উদ্দিনের ছেলে রেজাউল (৩২), ভোলা মিয়ার ছেলে ধলু মিয়া (২৭), এজদুর রহমানের ছেলে সুমন মিয়া (২৩) এবং কাজি শাহারুলের ছেলে সাদ্দাম ওরফে সুজন কাজী প্রেমিকের কাছ থেকে ওই তরুণীকে ছিনিয়ে নেয়।

এরপর ধলু মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায় এবং সেখানে তারা প্রেমিককে মারপিট করে স্কুলছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরপর রাত সোয়া ৩টার দিকে ঘটনার শিকার ওই তরুণ-তরুণী গোবিন্দগঞ্জ থানায় এসে বিষয়টি পুলিশে অবহিত করেন। পরে গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই মামুনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম তাদের সঙ্গে নিয়ে প্রথমে ধর্ষক ধলু মিয়ার বাড়ি শনাক্ত করে ধলু মিয়াকে গ্রেফতার করে। এরপর তার দেয়া তথ্য অনুসারে সব ধর্ষককে ওই রাতেই গ্রেফতার করা হয়। এছাড়াও নাবালিকা প্রেমিকাকে নিয়ে পালানোর অভিযোগে প্রেমিককেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি একেএম মেহেদী হাসান জানান, এ বিষয়ে ঘটনার শিকার স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

যুবকের কাছ থেকে প্রেমিকাকে ছিনিয়ে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৫

 গাইবান্ধা প্রতিনিধি 
২৭ জুলাই ২০২০, ১১:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় মহিমাগঞ্জ এলাকায় প্রেমিকের কাছ থেকে প্রেমিকা স্কুলছাত্রীকে ছিনিয়ে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাতে গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে প্রেমিকও রয়েছেন।

জানা গেছে, মহিমাগঞ্জ এলাকার দশম শ্রেণির ছাত্রীকে নিয়ে তার প্রেমিক পালিয়ে যাওয়ার সময় রোববার রাত ১২টার দিকে পার্শ্ববর্তী হরিরামপুর ইউনিয়নের নাওভাঙ্গা এলাকায় পৌঁছায়। ওই এলাকার মৃত নীল মাহমুদের ছেলে এনামুল হক (৩০), আজিম উদ্দিনের ছেলে রেজাউল (৩২), ভোলা মিয়ার ছেলে ধলু মিয়া (২৭), এজদুর রহমানের ছেলে সুমন মিয়া (২৩) এবং কাজি শাহারুলের ছেলে সাদ্দাম ওরফে সুজন কাজী প্রেমিকের কাছ থেকে ওই তরুণীকে ছিনিয়ে নেয়।

এরপর ধলু মিয়ার বাড়িতে নিয়ে যায় এবং সেখানে তারা প্রেমিককে মারপিট করে স্কুলছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরপর রাত সোয়া ৩টার দিকে ঘটনার শিকার ওই তরুণ-তরুণী গোবিন্দগঞ্জ থানায় এসে বিষয়টি পুলিশে অবহিত করেন। পরে গোবিন্দগঞ্জ থানার এসআই মামুনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম তাদের সঙ্গে নিয়ে প্রথমে ধর্ষক ধলু মিয়ার বাড়ি শনাক্ত করে ধলু মিয়াকে গ্রেফতার করে। এরপর তার দেয়া তথ্য অনুসারে সব ধর্ষককে ওই রাতেই গ্রেফতার করা হয়। এছাড়াও নাবালিকা প্রেমিকাকে নিয়ে পালানোর অভিযোগে প্রেমিককেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি একেএম মেহেদী হাসান জানান, এ বিষয়ে ঘটনার শিকার স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন