কীর্তনখোলায় নিখোঁজ যুবলীগ নেতা উদ্ধার হয়নি তিন দিনেও
jugantor
কীর্তনখোলায় নিখোঁজ যুবলীগ নেতা উদ্ধার হয়নি তিন দিনেও

  বরিশাল ব্যুরো  

১৪ আগস্ট ২০২০, ২০:৩০:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে ট্রলার থেকে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন যুবলীগ নেতা ফয়েজ মাহমুদ। গত তিন দিনেও তার সন্ধান মেলেনি। এ ঘটনায় আইনি কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন বরিশাল সদর নৌথানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন।

তিনি বলেন, কেউ থানায় অভিযোগ করেননি। তাছাড়া নদীতে পড়ে যাওয়ার পেছনে কেউ জড়িত রয়েছেন- এমনটা প্রতীয়মাণ নয়।

ট্রলার থেকে ছিটকে পড়া ব্যক্তি ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফয়েজ মাহমুদ। তিনি উত্তর চরফ্যাশনের মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে।

বুধবার সকাল পৌনে ১০টায় নগরীর চরকাউয়া খেয়াঘাটের জহিরের ট্রলারে ওঠেন ফয়েজ মাহমুদ। নদী পার হয়ে চরকাউয়া এলাকার পন্টুনে ভেড়ানোর আগে দ্রুতগতিতে নৌযানটি ঘুরাতে যান জহির। তখন ছিটকে পড়েন ফয়েজ। তার সঙ্গে থাকা প্রেসক্রিপশন থেকে পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ-পুলিশ যৌথভাবে নদীতে ডুবুরি নামিয়ে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে। কিন্তু অভিযানে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের পর শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ফয়েজকে পাওয়া যায়নি। তবে স্বজনরা নিজস্ব উদ্যোগে কীর্তনখোলা নদীতে খুঁজছেন বলে জানিয়েছেন নৌ-থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন।

কীর্তনখোলায় নিখোঁজ যুবলীগ নেতা উদ্ধার হয়নি তিন দিনেও

 বরিশাল ব্যুরো 
১৪ আগস্ট ২০২০, ০৮:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের কীর্তনখোলা নদীতে ট্রলার থেকে পড়ে নিখোঁজ হয়েছেন যুবলীগ নেতা ফয়েজ মাহমুদ। গত তিন দিনেও তার সন্ধান মেলেনি। এ ঘটনায় আইনি কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন বরিশাল সদর নৌথানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন।

তিনি বলেন, কেউ থানায় অভিযোগ করেননি। তাছাড়া নদীতে পড়ে যাওয়ার পেছনে কেউ জড়িত রয়েছেন- এমনটা প্রতীয়মাণ নয়।

ট্রলার থেকে ছিটকে পড়া ব্যক্তি ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফয়েজ মাহমুদ। তিনি উত্তর চরফ্যাশনের মৃত সুলতান আহমেদের ছেলে।

বুধবার সকাল পৌনে ১০টায় নগরীর চরকাউয়া খেয়াঘাটের জহিরের ট্রলারে ওঠেন ফয়েজ মাহমুদ। নদী পার হয়ে চরকাউয়া এলাকার পন্টুনে ভেড়ানোর আগে দ্রুতগতিতে নৌযানটি ঘুরাতে যান জহির। তখন ছিটকে পড়েন ফয়েজ। তার সঙ্গে থাকা প্রেসক্রিপশন থেকে পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও নৌ-পুলিশ যৌথভাবে নদীতে ডুবুরি নামিয়ে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে। কিন্তু অভিযানে কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। নিখোঁজের পর শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত ফয়েজকে পাওয়া যায়নি। তবে স্বজনরা নিজস্ব উদ্যোগে কীর্তনখোলা নদীতে খুঁজছেন বলে জানিয়েছেন নৌ-থানার ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন