জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ২ তরুণীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২
jugantor
জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ২ তরুণীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

  পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি  

২০ আগস্ট ২০২০, ১৯:৪৫:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁওয়েরপীরগঞ্জে জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দুই তরুণীকে রাতভর গণধর্ষণ করায় ৫ জনের বিরুদ্ধে পীরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ দুইজনকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকালে পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার সেনুয়া গ্রামের আলতাফুর রহমান ভোলার ছেলে আটোবাইকচালক নয়নের (২১) সঙ্গে দেখা করতে আসে পার্শ্ববর্তী রানীশংকৈল উপজেলার ভোলাপাড়া গ্রামের দুই তরুণী। প্রথমে পীরগঞ্জ পৌরশহরের পূর্ব চৌরাস্তায় নয়নের সঙ্গে দেখা হয় তাদের।

এ সময় নয়ন ওই দুই তরুণীকে পরিচয় করে দেন ফরিদ, হিরণ ও সেলিম নামের তার ৩ বন্ধুর সঙ্গে। এরপর এক তরুণী তার মোবাইল ফোনের ব্যাটারি কিনতে চাইলে নয়ন জানায় উপজেলার লোহাগাড়া বাজারে তার এক বন্ধুর দোকান আছে। সেখান থেকে কম দামে মোবাইল ফোনের ব্যাটারি কিনে দেয়ার কথা বলে কৌশলে বন্ধুদের সহায়তায় ওই দুই তরুণীকে উপজেলার লোহাগাড়া বাজারে নিয়ে যান।

সেখানে ব্যাটারির দাম বেশি চাওয়ায় নয়ন ও তার ওই ৩ বন্ধুসহ তাদের নিয়ে সবুজ নামক এক ব্যক্তির অটোবাইক যোগে ফের পীরগঞ্জ শহরে ফিরে আসেন। অবশেষে সন্ধ্যানাগাদ শহরের পূর্ব চৌরাস্তার রনি টেলিকমে মোবাইল ফোনের দোকানে ব্যাটারি কিনে দেন তাদের।

এরপর রাত হওয়ার অজুহাতে নয়ন, হিরণ, সেলিম ও ফরিদ ওই দুই তরুণীকে পুনরায় সবুজের অটোবাইকে করে নয়নের বাড়ি উপজেলার সেনুয়া গ্রামের দিকে রওনা হয়। পথিমধ্যে গাড়িতে তরুণীদের জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে নয়নের বাড়িতে না নিয়ে ভোমরাদহ ইউনিয়নের চিলাপাড়া গ্রামে সবুজের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে প্রথমে ৫ জন মিলে ওই দুই তরুণীকে গণধর্ষণ করে। পরে রাতে তাদের পার্শ্ববর্তী জনৈক নজিবুলের আখক্ষেতে ৫ জন মিলে আবারও গণধর্ষণ চালায়। পরে গভীর রাতে ভোমরাদহ গ্রামের মুসলিমা নামক এক নারীর বাড়িতে তাদের নিয়ে যায়। মুসলিমা তাদের বাড়িতে স্থান না দেয়ায় ভোররাতে পার্শ্ববর্তী রেললাইনে নিয়ে যায় তাদের।

এ সময় অজ্ঞাত ব্যক্তির টর্চলাইটের আলো দেখে তরুণীদের রেখে তারা সবাই পালিয়ে যায়। অবশেষে ওই দুই তরুণী বাড়ি ফিরে ঘটনাটি পরিবারকে জানায়। এ ঘটনায় পরদিন পীরগঞ্জ থানায় ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ ২ আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় জানান, গণধর্ষণের শিকার ওই দুই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ২ তরুণীকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

 পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি 
২০ আগস্ট ২০২০, ০৭:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দুই তরুণীকে রাতভর গণধর্ষণ করায় ৫ জনের বিরুদ্ধে পীরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ দুইজনকে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে।

পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকালে পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার সেনুয়া গ্রামের আলতাফুর রহমান ভোলার ছেলে আটোবাইকচালক নয়নের (২১) সঙ্গে দেখা করতে আসে পার্শ্ববর্তী রানীশংকৈল উপজেলার ভোলাপাড়া গ্রামের দুই তরুণী। প্রথমে পীরগঞ্জ পৌরশহরের পূর্ব চৌরাস্তায় নয়নের সঙ্গে দেখা হয় তাদের।

এ সময় নয়ন ওই দুই তরুণীকে পরিচয় করে দেন ফরিদ, হিরণ ও সেলিম নামের তার ৩ বন্ধুর সঙ্গে। এরপর এক তরুণী তার মোবাইল ফোনের ব্যাটারি কিনতে চাইলে নয়ন জানায় উপজেলার লোহাগাড়া বাজারে তার এক বন্ধুর দোকান আছে। সেখান থেকে কম দামে মোবাইল ফোনের ব্যাটারি কিনে দেয়ার কথা বলে কৌশলে বন্ধুদের সহায়তায় ওই দুই তরুণীকে উপজেলার লোহাগাড়া বাজারে নিয়ে যান।

সেখানে ব্যাটারির দাম বেশি চাওয়ায় নয়ন ও তার ওই ৩ বন্ধুসহ তাদের নিয়ে সবুজ নামক এক ব্যক্তির অটোবাইক যোগে ফের পীরগঞ্জ শহরে ফিরে আসেন। অবশেষে সন্ধ্যানাগাদ শহরের পূর্ব চৌরাস্তার রনি টেলিকমে মোবাইল ফোনের দোকানে ব্যাটারি কিনে দেন তাদের।

এরপর রাত হওয়ার অজুহাতে নয়ন, হিরণ, সেলিম ও ফরিদ ওই দুই তরুণীকে পুনরায় সবুজের অটোবাইকে করে নয়নের বাড়ি উপজেলার সেনুয়া গ্রামের দিকে রওনা হয়। পথিমধ্যে গাড়িতে তরুণীদের জুসের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে নয়নের বাড়িতে না নিয়ে ভোমরাদহ ইউনিয়নের চিলাপাড়া গ্রামে সবুজের বাড়িতে নিয়ে যান। সেখানে প্রথমে ৫ জন মিলে ওই দুই তরুণীকে গণধর্ষণ করে। পরে রাতে তাদের পার্শ্ববর্তী জনৈক নজিবুলের আখক্ষেতে ৫ জন মিলে আবারও গণধর্ষণ চালায়। পরে গভীর রাতে ভোমরাদহ গ্রামের মুসলিমা নামক এক নারীর বাড়িতে তাদের নিয়ে যায়। মুসলিমা তাদের বাড়িতে স্থান না দেয়ায় ভোররাতে পার্শ্ববর্তী রেললাইনে নিয়ে যায় তাদের।

এ সময় অজ্ঞাত ব্যক্তির টর্চলাইটের আলো দেখে তরুণীদের রেখে তারা সবাই পালিয়ে যায়। অবশেষে ওই দুই তরুণী বাড়ি ফিরে ঘটনাটি পরিবারকে জানায়। এ ঘটনায় পরদিন পীরগঞ্জ থানায় ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। পুলিশ ২ আসামিকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে।

পীরগঞ্জ থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় জানান, গণধর্ষণের শিকার ওই দুই তরুণীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন