শিপ্রার মাদক মামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে তদন্ত কর্মকর্তা
jugantor
শিপ্রার মাদক মামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে তদন্ত কর্মকর্তা

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

২৩ আগস্ট ২০২০, ২১:১৭:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহার সহকর্মী শিপ্রা দেবনাথের বিরুদ্ধে রামু থানায় দায়ের করা মাদক মামলা তদন্তের জন্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন র‌্যাবের মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে র‌্যাবের তদন্ত দল হিমছড়ির নিলীমা রিসোর্ট পরিদর্শন করে। সেখানে সিনহা ও তার সহকর্মীদের ব্যবহৃত রুমটি ঘুরে দেখে দলটি।

পরিদর্শন শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-১৫ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিমান চন্দ্র কর্মকার সাংবাদিকদের বলেন, এই রিসোর্ট থেকে পুলিশের জব্দ করা আলামত ও ডিভাইসগুলোর পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ চলছে। মাদক মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই দিন যারা রিসোর্টে দায়িত্বরত ছিল তাদের ঘটনা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, গত ৩১ জুলাই সিনহাকে নিহতের পর এই রিসোর্টে অভিযান চালায় কক্সবাজারের রামু থানা পুলিশ। অভিযান চালিয়ে মদ উদ্ধার দেখিয়ে শিপ্রার নামে রামু থানায় মাদক মামলা করে থানা পুলিশ। প্রথমে মামলাটি থানা পুলিশের কাছে থাকলেও পরে আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্তভার পায় র‌্যাব। ওই আদেশের পর থেকে মামলা তদন্ত করে যাচ্ছে র‌্যাব।

৩১ জুলাই রাত ১০টার দিকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এপিবিএন চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে শিপ্রা দেবনাথের বিরুদ্ধে রামু থানায় মাদক মামলা দায়ের করা হয়।

সিনহা হত্যার ঘটনায় নিহতের বোন শাহরিয়ার শারমিন ফেরদৌস বাদী হয়ে ৫ আগস্ট টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন। এই মামলায় বর্তমানে ১৩ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। পাশাপাশি প্রত্যেককে আদালতের আদেশে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

শিপ্রার মাদক মামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে তদন্ত কর্মকর্তা

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
২৩ আগস্ট ২০২০, ০৯:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহার সহকর্মী শিপ্রা দেবনাথের বিরুদ্ধে রামু থানায় দায়ের করা মাদক মামলা তদন্তের জন্য ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন র‌্যাবের মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা।

রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে র‌্যাবের তদন্ত দল হিমছড়ির নিলীমা রিসোর্ট পরিদর্শন করে। সেখানে সিনহা ও তার সহকর্মীদের ব্যবহৃত রুমটি ঘুরে দেখে দলটি। 

পরিদর্শন শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা র‌্যাব-১৫ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিমান চন্দ্র কর্মকার সাংবাদিকদের বলেন, এই রিসোর্ট থেকে পুলিশের জব্দ করা আলামত ও ডিভাইসগুলোর পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ চলছে। মাদক মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। পাশাপাশি ওই দিন যারা রিসোর্টে দায়িত্বরত ছিল তাদের ঘটনা সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।   

তিনি বলেন, গত ৩১ জুলাই সিনহাকে নিহতের পর এই রিসোর্টে অভিযান চালায় কক্সবাজারের রামু থানা পুলিশ। অভিযান চালিয়ে মদ উদ্ধার দেখিয়ে শিপ্রার নামে রামু থানায় মাদক মামলা করে থানা পুলিশ। প্রথমে মামলাটি থানা পুলিশের কাছে থাকলেও পরে আদালতের নির্দেশে মামলার তদন্তভার পায় র‌্যাব। ওই আদেশের পর থেকে মামলা তদন্ত করে যাচ্ছে র‌্যাব।

৩১ জুলাই রাত ১০টার দিকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এপিবিএন চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এ ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে শিপ্রা দেবনাথের বিরুদ্ধে রামু থানায় মাদক মামলা দায়ের করা হয়।

সিনহা হত্যার ঘটনায় নিহতের বোন শাহরিয়ার শারমিন ফেরদৌস বাদী হয়ে ৫ আগস্ট টেকনাফের সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ পুলিশ সদস্যকে আসামি করে আদালতে মামলা করেন। এই মামলায় বর্তমানে ১৩ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। পাশাপাশি প্রত্যেককে আদালতের আদেশে ৭ দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : মেজর সিনহার মৃত্যু

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন