বাঁধ নির্মাণের দাবিতে সাতক্ষীরায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ঘেরাও
jugantor
বাঁধ নির্মাণের দাবিতে সাতক্ষীরায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ঘেরাও

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  

২৬ আগস্ট ২০২০, ২২:৫৭:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

উপকূলীয় মানুষকে বাঁধ ভাঙন, বন্যা ও জলাবদ্ধতার কবল থেকে মুক্ত করার দাবিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি ডিভিশনকে ঘেরাও করে সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটি। বুধবার সকালে বিপুলসংখ্যক নারীপুরুষ বিভিন্ন উপজেলা থেকে এসে এ ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশ নেন।

তারা জোর দাবি তোলেন- কোনো দুর্যোগ আঘাত করার আগেই ভাঙন মেরামতের কোনো উদ্যোগ না নেয়ায় প্রতি বছরই সাতক্ষীরার লাখ লাখ মানুষকে এই দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। অবিলম্বে রিংবাঁধ নির্মাণ করে দুর্যোগকবলিত মানুষকে রক্ষা এবং তাদের আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তার জোর দাবি জানিয়েছেন তারা।

আম্পানের পর তিন মাস পার হলেও এখন পর্যন্ত বাঁধ নির্মাণের কোনো কার্যকর ব্যবস্থা না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা। এরই মধ্যে কপোতাক্ষ ও খোলপেটুয়া নদীর জোয়ারের পানিতে শ্যামনগরের গাবুরা ও আশাশুনির প্রতাপনগর ও শ্রীউলা ইউনিয়নের ৪৩টি গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।

জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ ঘেরাও কর্মসূচিতে আরও অংশ নেন- প্রেস ক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ, আজাদ হোসেন বেলালসহ সমাজের গুরুত্বপূর্ণ লোকজন।

ঘণ্টাব্যাপী ঘেরাও কর্মসূচি শেষে তারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে স্মারকলিপি পেশ করেন। এতে তারা ৩০টি দাবি তুলে অবিলম্বে তা বাস্তবায়নের আহবান জানান।

বাঁধ নির্মাণের দাবিতে সাতক্ষীরায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ঘেরাও

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি 
২৬ আগস্ট ২০২০, ১০:৫৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

উপকূলীয় মানুষকে বাঁধ ভাঙন, বন্যা ও জলাবদ্ধতার কবল থেকে মুক্ত করার দাবিতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি ডিভিশনকে ঘেরাও করে সাতক্ষীরা জেলা নাগরিক কমিটি। বুধবার সকালে বিপুলসংখ্যক নারীপুরুষ বিভিন্ন উপজেলা থেকে এসে এ ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশ নেন।

তারা জোর দাবি তোলেন- কোনো দুর্যোগ আঘাত করার আগেই ভাঙন মেরামতের কোনো উদ্যোগ না নেয়ায় প্রতি বছরই সাতক্ষীরার লাখ লাখ মানুষকে এই দুর্ভোগের শিকার হতে হয়। অবিলম্বে রিংবাঁধ নির্মাণ করে দুর্যোগকবলিত মানুষকে রক্ষা এবং তাদের আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তার জোর দাবি জানিয়েছেন তারা।

আম্পানের পর তিন মাস পার হলেও এখন পর্যন্ত বাঁধ নির্মাণের কোনো কার্যকর ব্যবস্থা না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তারা। এরই মধ্যে কপোতাক্ষ ও খোলপেটুয়া নদীর জোয়ারের পানিতে শ্যামনগরের গাবুরা ও আশাশুনির প্রতাপনগর ও শ্রীউলা ইউনিয়নের ৪৩টি গ্রামের লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।

জেলা নাগরিক কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ ঘেরাও কর্মসূচিতে আরও অংশ নেন- প্রেস ক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ, আজাদ হোসেন বেলালসহ সমাজের গুরুত্বপূর্ণ লোকজন।

ঘণ্টাব্যাপী ঘেরাও কর্মসূচি শেষে তারা পানি উন্নয়ন বোর্ডের দুটি ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে স্মারকলিপি পেশ করেন। এতে তারা ৩০টি দাবি তুলে অবিলম্বে তা বাস্তবায়নের আহবান জানান।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন