নির্মাণের তিন বছরের মধ্যেই নদীগর্ভে স্কুল
jugantor
নির্মাণের তিন বছরের মধ্যেই নদীগর্ভে স্কুল

  বরিশাল ব্যুরো  

২৭ আগস্ট ২০২০, ১৮:১৫:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় নির্মাণের তিন বছরের মধ্যেই নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

বিদ্যালয়টি উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চরবগী চৌধুরীপাড়ায় অবস্থিত। বুধবার থেকে এটি নদীগর্ভে চলে যেতে শুরু করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বশিরুল হক। তিনি জানান, ২০১৭ সালের আগে বিদ্যালয়টির কার্যক্রম স্থানীয় উদ্যোগে কোনোরকম একটি টিনের ঘরে পরিচালনা করা হতো। ২০১৭ সালে নতুন নির্মাণ হওয়া দ্বিতল পাকা ভবনটি পেয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ গ্রামের মানুষ অনেক খুশি হয়েছিলেন।

তখন পাশের নদীটি অনেক দূরে ছিল। এরপর গত ২ বছরে অব্যাহত ভাঙনে বিদ্যালয় ভবনটির কাছাকাছি চলে আসে নদী। আর এবারের ভাঙনে ভবনটিকে গ্রাস করে নেয়। বুধবার বেলা ১১টায় শুরু হওয়া নদীর ভাঙনে ধীরে ধীরে বিদ্যালয় ভবনটি বিলীন হতে থাকে।

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে ভাঙন থেকে রোধ করার জন্য বিদ্যালয় সংলগ্ন নদীতে বালুর বস্তাও ফেলা হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হল না। চোখের সামনে বিদ্যালয় ভবন বিলীন হতে দেখা ছাড়া কারও কিছুই করার ছিল না।

কালাবদর, তেঁতুলিয়া, গণেশপুরা নদীর অব্যাহত ভাঙনে দিশেহারা বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের বাসিন্দারা।

নির্মাণের তিন বছরের মধ্যেই নদীগর্ভে স্কুল

 বরিশাল ব্যুরো 
২৭ আগস্ট ২০২০, ০৬:১৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় নির্মাণের তিন বছরের মধ্যেই নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

বিদ্যালয়টি উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চরবগী চৌধুরীপাড়ায় অবস্থিত। বুধবার থেকে এটি নদীগর্ভে চলে যেতে শুরু করে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য বশিরুল হক। তিনি জানান, ২০১৭ সালের আগে বিদ্যালয়টির কার্যক্রম স্থানীয় উদ্যোগে কোনোরকম একটি টিনের ঘরে পরিচালনা করা হতো। ২০১৭ সালে নতুন নির্মাণ হওয়া দ্বিতল পাকা ভবনটি পেয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ গ্রামের মানুষ অনেক খুশি হয়েছিলেন।

তখন পাশের নদীটি অনেক দূরে ছিল। এরপর গত ২ বছরে অব্যাহত ভাঙনে বিদ্যালয় ভবনটির কাছাকাছি চলে আসে নদী। আর এবারের ভাঙনে ভবনটিকে গ্রাস করে নেয়। বুধবার বেলা ১১টায় শুরু হওয়া নদীর ভাঙনে ধীরে ধীরে বিদ্যালয় ভবনটি বিলীন হতে থাকে। 

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে ভাঙন থেকে রোধ করার জন্য বিদ্যালয় সংলগ্ন নদীতে বালুর বস্তাও ফেলা হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হল না। চোখের সামনে বিদ্যালয় ভবন বিলীন হতে দেখা ছাড়া কারও কিছুই করার ছিল না। 

কালাবদর, তেঁতুলিয়া, গণেশপুরা নদীর অব্যাহত ভাঙনে দিশেহারা বরিশাল জেলার মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের বাসিন্দারা।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন