ভোলায় শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুলকে মরণোত্তর সম্মাননা
jugantor
ভোলায় শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুলকে মরণোত্তর সম্মাননা

  যুগান্তর রিপোর্ট, ভোলা  

৩০ আগস্ট ২০২০, ২০:৪৪:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোলা

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলামকে মরণোত্তর সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

শনিবার বিকালে ভোলা শহরের বাংলাস্কুলের হল রুমে জেলা বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম আয়োজিত শিক্ষক নেতা রফিকুল ইসলামের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় কমিটি এবং ভোলা জেলা কমিটির পক্ষ থেকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। তার পরিবারের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক গ্রহন করেন রফিকুল ইসলামের পিতা মো. আব্দুল বারেক।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাইদুল হাসান সেলিমের সভাপতিত্বে প্রয়াত অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন, জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মো. হারুনুর রশিদ, যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল জব্বার, জিএম শাওন, এনামুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল ইসলাম মাসুদ, প্রচার সম্পাদক মতিউর রহমান দুলাল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আব্দুর রহমান।

জেলা সহ-সভাপতি মো. হুমায়ুন কবির কামালের উপস্থাপনায় আরও বক্তব্য রাখেন ভোলা জেলা সভাপতি মো. আবু তাহের, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মো. মুসা কালিমুল্লাহ, বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, সদর উপজেলা সভাপতি অধ্যক্ষ রুহুল আমিন, প্রধান শিক্ষক মো. আমির হোসেন, জেলার সহ-সভাতি মাইনুল ইসলাম জুয়েল, প্রধান শিক্ষক তোফায়েল আহমেদ, বাকশিস নেতা অধ্যক্ষ মাকসুদুর রহমান প্রমুখ।

এর আগে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের কবর জেয়ারত করে তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত করেন।

এসময় বক্তারা বলেন, প্রয়াত শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম শিক্ষা জাতীয়করণসহ, বার্ষিক পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি, বৈশাখী ভাতা আদায়ে রাজপথ আন্দোলন করে গেছেন। শিক্ষকদের জন্য তিনি সব সময় নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করেছেন। শুধু তাই নয় তিনি শিক্ষকদের দাবিগুলো সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলে পৌঁছে দিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। যার কারণে সে সারা বাংলাদেশের শিক্ষকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। তার এসব কার্যক্রম শিক্ষক সমাজ আজীবন মনে রাখবে।

ভোলায় শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুলকে মরণোত্তর সম্মাননা

 যুগান্তর রিপোর্ট, ভোলা 
৩০ আগস্ট ২০২০, ০৮:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভোলা
ছবি: যুগান্তর

বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলামকে মরণোত্তর সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। 

শনিবার বিকালে ভোলা শহরের বাংলাস্কুলের হল রুমে জেলা বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরাম আয়োজিত শিক্ষক নেতা রফিকুল ইসলামের স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মোনাজাত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় কমিটি এবং ভোলা জেলা কমিটির পক্ষ থেকে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়। তার পরিবারের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক গ্রহন করেন রফিকুল ইসলামের পিতা মো. আব্দুল বারেক।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. সাইদুল হাসান সেলিমের সভাপতিত্বে প্রয়াত অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন, জেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মো. শফিকুল ইসলাম, বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মো. হারুনুর রশিদ, যুগ্ম মহাসচিব আব্দুল জব্বার, জিএম শাওন, এনামুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল ইসলাম মাসুদ, প্রচার সম্পাদক মতিউর রহমান দুলাল, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আব্দুর রহমান।

জেলা সহ-সভাপতি মো. হুমায়ুন কবির কামালের উপস্থাপনায় আরও বক্তব্য রাখেন ভোলা জেলা সভাপতি মো. আবু তাহের, সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক মো. মুসা কালিমুল্লাহ, বাংলাবাজার ফাতেমা খানম কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, সদর উপজেলা সভাপতি অধ্যক্ষ রুহুল আমিন, প্রধান শিক্ষক মো. আমির হোসেন, জেলার সহ-সভাতি মাইনুল ইসলাম জুয়েল, প্রধান শিক্ষক তোফায়েল আহমেদ, বাকশিস নেতা অধ্যক্ষ মাকসুদুর রহমান প্রমুখ।

এর আগে বাংলাদেশ বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলামের কবর জেয়ারত করে তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত করেন।

এসময় বক্তারা বলেন, প্রয়াত শিক্ষক নেতা অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম শিক্ষা জাতীয়করণসহ, বার্ষিক পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি, বৈশাখী ভাতা আদায়ে রাজপথ আন্দোলন করে গেছেন। শিক্ষকদের জন্য তিনি সব সময় নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করেছেন। শুধু তাই নয় তিনি শিক্ষকদের দাবিগুলো সরকারের ঊর্ধ্বতন মহলে পৌঁছে দিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। যার কারণে সে সারা বাংলাদেশের শিক্ষকদের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। তার এসব কার্যক্রম শিক্ষক সমাজ আজীবন মনে রাখবে।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন