সালিসে পিটিয়ে হত্যা: সাক্ষী সাংবাদিক ফারুকের বাড়িতে আগুন
jugantor
সালিসে পিটিয়ে হত্যা: সাক্ষী সাংবাদিক ফারুকের বাড়িতে আগুন

  মেঘনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৩:০৭:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

আগুন

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় সালিসে ওষুধ বিক্রেতা মহিউদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যা মামলার সাক্ষী হওয়ার জেরে দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক গোলাম আক্তার ফারুক স্বপনের (কবি ফারুক আফিনদী) বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে উপজেলার তুলাতুলি শিবনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মহিউদ্দিন হত্যা মামলার অন্যতম সাক্ষী ফারুকের বড় ভাই গোলাম ফকির আহমেদ। তাদের তিন ভাইয়ের কেউ বাড়িতে থাকেন না। শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে সন্ত্রাসীরা তাদের বসতঘরের চারদিকে ও রান্নাঘরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

আগুন দেখতে পেয়ে নিহত মহিউদ্দিনের ভাই ও ভাতিজারা এসে দ্রুতে আগুন নিভিয়ে ফেলতে সক্ষম হয়। এতে রান্নাঘরের আংশিক পুড়ে গেছে। বসতঘরের দরজায় লাগানো আগুন দ্রুত নেভানোর ফলে ঘরের কোনো ক্ষতি হয়নি।
একই বাড়ির শাহ আলমসহ মহিউদ্দিন হত্যার জামিনে থাকা আসামিরা রাতে সবাই ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে এ ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ করেন দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক গোলাম আক্তার ফারুক স্বপন।

উল্লেখ্য, গত ১২ নভেম্বর সালিসে মুজিবসেনা ঐক্যলীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানের নেতৃত্বে পিটিয়ে হত্যা করা হয় গোলাম মহিউদ্দিনকে। ওই মামলায় ১৩ আসামি জামিনে রয়েছে। তারা বাড়িতে এসে গত ৪ জানুয়ারি হত্যা মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দেয়।

এর আগে হত্যাকাণ্ডের ১৬ দিন পর ২৬ নভেম্বর সাংবাদিক ফারুকসহ বাদীপক্ষের ১৯ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে আসামিরা।

মহিউদ্দিন হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি মুজিবসেনা ঐক্যলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানের স্ত্রী শাহানাজ পারভীন বাদী হয়ে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩নং আমলী আদালতে ওই মামলার আবেদন করেন।

সালিসে পিটিয়ে হত্যা: সাক্ষী সাংবাদিক ফারুকের বাড়িতে আগুন

 মেঘনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০১:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আগুন
ফাইল ছবি

কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় সালিসে ওষুধ বিক্রেতা মহিউদ্দিনকে পিটিয়ে হত্যা মামলার সাক্ষী হওয়ার জেরে দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক গোলাম আক্তার ফারুক স্বপনের (কবি ফারুক আফিনদী) বাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে উপজেলার তুলাতুলি শিবনগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মহিউদ্দিন হত্যা মামলার অন্যতম সাক্ষী ফারুকের বড় ভাই গোলাম ফকির আহমেদ। তাদের তিন ভাইয়ের কেউ বাড়িতে থাকেন না।  শুক্রবার রাত পৌনে ১০টার দিকে সন্ত্রাসীরা তাদের বসতঘরের চারদিকে ও রান্নাঘরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

 আগুন দেখতে পেয়ে নিহত মহিউদ্দিনের ভাই ও ভাতিজারা এসে দ্রুতে আগুন নিভিয়ে ফেলতে সক্ষম হয়। এতে রান্নাঘরের আংশিক পুড়ে গেছে। বসতঘরের দরজায় লাগানো আগুন দ্রুত নেভানোর ফলে ঘরের কোনো ক্ষতি হয়নি।
একই বাড়ির শাহ আলমসহ মহিউদ্দিন হত্যার জামিনে থাকা আসামিরা রাতে সবাই ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে এ ঘটনা ঘটায় বলে অভিযোগ করেন দৈনিক জনতার সহ-সম্পাদক গোলাম আক্তার ফারুক স্বপন।

উল্লেখ্য, গত ১২ নভেম্বর সালিসে মুজিবসেনা ঐক্যলীগের সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানের নেতৃত্বে পিটিয়ে হত্যা করা হয় গোলাম মহিউদ্দিনকে। ওই মামলায় ১৩ আসামি জামিনে রয়েছে। তারা বাড়িতে এসে গত ৪ জানুয়ারি হত্যা মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দেয়।

এর আগে হত্যাকাণ্ডের ১৬ দিন পর ২৬ নভেম্বর সাংবাদিক ফারুকসহ বাদীপক্ষের ১৯ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে আসামিরা।

মহিউদ্দিন হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি মুজিবসেনা ঐক্যলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানের স্ত্রী শাহানাজ পারভীন বাদী হয়ে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ৩নং আমলী আদালতে ওই মামলার আবেদন করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন