মিছিলে বাধা দেয়ায় থানায় হামলা, ৬ পুলিশ আহত
jugantor
মিছিলে বাধা দেয়ায় থানায় হামলা, ৬ পুলিশ আহত

  ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি  

২৭ মার্চ ২০২১, ১৯:৫৩:০৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাঙ্গা থানা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে হেফাজতের মিছিলে পুলিশ বাধা দেওয়ায় থানার মধ্যে ঢুকে হামলা চালিয়ে প্রধান গেটসহ ২টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছেন নেতাকর্মীরা।

শনিবার দুপুর ২টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩৫ রাউন্ড গুলি ছুড়ে।

এ সময় ইটের আঘাতে এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন। এ ঘটনায় হেফাজতের ২ কর্মীকে পুলিশ আটক করেছে। আহত পুলিশ সদস্যদের ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- এসআই আজাদ ও সহিদুল্লাহ, এএসআই আজিজুর রহমান, কনস্টেবল জয়নাল, মতিয়ার ও শাহজালাল।

আটককৃতরা হলেন- ঈদগাহ মাদ্রাসার মোহতামিম মাওলানা তালহা (৫০) ও আকাশ (২২)।

পুলিশ জানায়, জোহরের নামাজের পর হেফাজতের শত শত নেতাকর্মী ভাঙ্গা মহাসড়কে জড়ো হতে থাকেন। পরে তারা ব্যানার নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে থানা অভিমুখে রওনা হন।

এ সময় পুলিশ তাদের মিছিলে বাধা দিলে বিক্ষুব্ধ মিছিলকারীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। তখন ইটের আঘাতে ২ এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন।

ভাঙ্গা থানার ওসি সৈয়দ লুৎফর রহমান জানান, হঠাৎ মিছিল নিয়ে হেফাজতের নেতাকর্মীরা থানায় ঢুকে হামলা ও ভাংচুর করে। এতে এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন। আসামিদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিমুদ্দিন জানান, আগেই আমি থানাকে সতর্ক থাকতে বলি- হেফাজতের নেতাকর্মীরা মিছিল করতে পারে। পরে হঠাৎ হেফাজদের নেতাকর্মীরা অতর্কিত থানায় হামলা চালায়। এতে ৬ পুলিশ আহত হন।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় তদন্তসাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মিছিলে বাধা দেয়ায় থানায় হামলা, ৬ পুলিশ আহত

 ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি 
২৭ মার্চ ২০২১, ০৭:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভাঙ্গা থানা
ভাঙ্গা থানা

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে হেফাজতের মিছিলে পুলিশ বাধা দেওয়ায় থানার মধ্যে ঢুকে হামলা চালিয়ে প্রধান গেটসহ ২টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছেন নেতাকর্মীরা।

শনিবার দুপুর ২টার দিকে ফরিদপুরের ভাঙ্গায় এ ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩৫ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। 

এ সময় ইটের আঘাতে এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন। এ ঘটনায় হেফাজতের ২ কর্মীকে পুলিশ আটক করেছে। আহত পুলিশ সদস্যদের ভাঙ্গা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- এসআই আজাদ ও সহিদুল্লাহ, এএসআই আজিজুর রহমান, কনস্টেবল জয়নাল, মতিয়ার ও শাহজালাল।

আটককৃতরা হলেন- ঈদগাহ মাদ্রাসার মোহতামিম মাওলানা তালহা (৫০) ও আকাশ (২২)।

পুলিশ জানায়, জোহরের নামাজের পর হেফাজতের শত শত নেতাকর্মী ভাঙ্গা মহাসড়কে জড়ো হতে থাকেন। পরে তারা ব্যানার নিয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে থানা অভিমুখে রওনা হন। 

এ সময় পুলিশ তাদের মিছিলে বাধা দিলে বিক্ষুব্ধ মিছিলকারীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৩৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। তখন ইটের আঘাতে ২ এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন। 

ভাঙ্গা থানার ওসি সৈয়দ লুৎফর রহমান জানান, হঠাৎ মিছিল নিয়ে হেফাজতের নেতাকর্মীরা থানায় ঢুকে হামলা ও ভাংচুর করে। এতে এসআইসহ ৬ পুলিশ আহত হন। আসামিদের শনাক্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ভাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আজিমুদ্দিন জানান, আগেই আমি থানাকে সতর্ক থাকতে বলি- হেফাজতের নেতাকর্মীরা মিছিল করতে পারে। পরে হঠাৎ হেফাজদের নেতাকর্মীরা অতর্কিত থানায় হামলা চালায়। এতে ৬ পুলিশ আহত হন।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. আলিমুজ্জামান জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। এ ঘটনায় তদন্তসাপেক্ষ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন