বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ, হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু
jugantor
বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ, হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

১১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:০৬:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

আলম মিয়া।

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত যুবকের নাম আলম মিয়া।

শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়। নিহত আলম মিয়া ভাটির জগতচর গ্রামের খুরশিদ মিয়ার ছেলে।

এর আগে গত ৯ ডিসেম্বর বিকালে উপজেলার ভাটির জগৎচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর বিকালে লক্ষ্মীপুরে একটি ওয়াজ মাহফিল থেকে ফেরার পথে রাস্তায় কয়েকজন বখাটে আলম মিয়ার মা-বোনদের দেখে নানা অশালীন অঙ্গভঙ্গি করতে থাকে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে আলম মিয়ার ওপর হামলা করে বখাটেরা। এ সময় লাঠি দিয়ে আলম মিয়ার মাথায় আঘাত করে তারা পালিয়ে যায়।

আলমকে উদ্ধার করে প্রথমে ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

এর আগে এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও হামলাকারীদের বিচার দাবিতে শুক্রবার মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন এলাকাবাসী।

কুলিয়ারচর থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা জানান, 'অভিযুক্তরা কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য নয়। আর এটা স্কুল-কলেজ থেকে আসা-যাওয়ার পথে কোনো ইভটিজিংয়ের ঘটনাও নয়। ওই দিন বিকাল সাড়ে ৪টায় আলম মিয়া তাঁর মা-বাবা ও বোনদের নিয়ে ওয়াজ শুনে বাড়ি যাওয়ার পথে বখাটেরা উত্ত্যক্ত করে। এরই জের ধরে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে বখাটেদের হাতে আলম গুরুতর আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় থানায় মামলা রুজু হয়েছে। শনিবার সকালে নিহতের ভগ্নিপতি সুজন এ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও দাবি করেন ওসি।

বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ, হামলায় আহত যুবকের মৃত্যু

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
১১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আলম মিয়া।
আলম মিয়া। ছবি: যুগান্তর

কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলায় বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। নিহত যুবকের নাম আলম মিয়া।

শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থেকে তার মৃত্যু হয়। নিহত আলম মিয়া ভাটির জগতচর গ্রামের খুরশিদ মিয়ার ছেলে।

এর আগে গত ৯ ডিসেম্বর বিকালে উপজেলার ভাটির জগৎচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর বিকালে লক্ষ্মীপুরে একটি ওয়াজ মাহফিল থেকে ফেরার পথে রাস্তায় কয়েকজন বখাটে আলম মিয়ার মা-বোনদের দেখে নানা অশালীন অঙ্গভঙ্গি করতে থাকে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে আলম মিয়ার ওপর হামলা করে বখাটেরা। এ সময় লাঠি দিয়ে আলম মিয়ার মাথায় আঘাত করে তারা পালিয়ে যায়।

আলমকে উদ্ধার করে প্রথমে ভাগলপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার সকালে তার মৃত্যু হয়।

এর আগে এ ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও হামলাকারীদের বিচার দাবিতে শুক্রবার  মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন এলাকাবাসী।   
 
কুলিয়ারচর থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা জানান, 'অভিযুক্তরা কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য নয়। আর এটা স্কুল-কলেজ থেকে আসা-যাওয়ার পথে কোনো ইভটিজিংয়ের ঘটনাও নয়। ওই দিন বিকাল সাড়ে ৪টায় আলম মিয়া তাঁর মা-বাবা ও বোনদের নিয়ে ওয়াজ শুনে বাড়ি যাওয়ার পথে বখাটেরা উত্ত্যক্ত করে। এরই জের ধরে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে বখাটেদের হাতে আলম গুরুতর আহত হন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায়  থানায় মামলা রুজু  হয়েছে। শনিবার সকালে নিহতের ভগ্নিপতি সুজন এ মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যাবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও দাবি করেন ওসি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন