গ্রাম পুলিশকে লাঠিপেটা, বাগমারায় আ’লীগ নেতা গ্রেফতার
jugantor
গ্রাম পুলিশকে লাঠিপেটা, বাগমারায় আ’লীগ নেতা গ্রেফতার

  রাজশাহী ব্যুরো  

০৫ এপ্রিল ২০২০, ২৩:১৩:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় গ্রাম পুলিশের তিন সদস্যকে লাঠিপেটার ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা আফজাল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বাঘাবাড়ি বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আফজাল উপজেলার বড়বিহানালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাঘাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা।

বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে দায়িত্বপালন করার সময় গত শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগ নেতা আফজালের লাঠিপেটার শিকার হন তিন গ্রাম পুলিশ সদস্য। প্রশাসনের নির্দেশে ওইদিন রাতে বাঘাবাড়ি বাজারের একটি চায়ের দোকান বন্ধ করতে বললে আফজাল গ্রাম পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে আফজাল ক্ষুব্ধ হয়ে গ্রাম পুলিশ সদস্য সাজিল হোসেন, আবুল কালাম ও আবদুল মজিদকে লাঠিপেটা করেন। এর ফলে তারা আহত হন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

এরপর বিষয়টি জেলা পুলিশের নজরে আসে। পুলিশ আওয়ামী লীগ নেতা আফজালকে গ্রেফতারে তৎপর হয়। এ ঘটনায় রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন দেব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহত গ্রাম পুলিশ সদস্যদের খোঁজ-খবর নেন।

ওসি জানান, গ্রাম পুলিশ সদস্য সাজিল হোসেন বাদী হয়ে আফজালের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সোমবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

গ্রাম পুলিশকে লাঠিপেটা, বাগমারায় আ’লীগ নেতা গ্রেফতার

 রাজশাহী ব্যুরো 
০৫ এপ্রিল ২০২০, ১১:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাগমারায় গ্রাম পুলিশের তিন সদস্যকে লাঠিপেটার ঘটনায় আওয়ামী লীগ নেতা আফজাল হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার বাঘাবাড়ি বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

আফজাল উপজেলার বড়বিহানালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাঘাবাড়ি গ্রামের বাসিন্দা।

বাগমারা থানার ওসি আতাউর রহমান জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে দায়িত্বপালন করার সময় গত শুক্রবার রাতে আওয়ামী লীগ নেতা আফজালের লাঠিপেটার শিকার হন তিন গ্রাম পুলিশ সদস্য। প্রশাসনের নির্দেশে ওইদিন রাতে বাঘাবাড়ি বাজারের একটি চায়ের দোকান বন্ধ করতে বললে আফজাল গ্রাম পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে আফজাল ক্ষুব্ধ হয়ে গ্রাম পুলিশ সদস্য সাজিল হোসেন, আবুল কালাম ও আবদুল মজিদকে লাঠিপেটা করেন। এর ফলে তারা আহত হন। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

এরপর বিষয়টি জেলা পুলিশের নজরে আসে। পুলিশ আওয়ামী লীগ নেতা আফজালকে গ্রেফতারে তৎপর হয়। এ ঘটনায় রাজশাহীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন দেব ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহত গ্রাম পুলিশ সদস্যদের খোঁজ-খবর নেন।

ওসি জানান, গ্রাম পুলিশ সদস্য সাজিল হোসেন বাদী হয়ে আফজালের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। এ মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সোমবার সকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস