শাকিবের প্রতি সেই অভিমান করা ভুল ছিল: পপি

  বিনোদন ডেস্ক ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৬:১৮:৪৭ | অনলাইন সংস্করণ

ঢাকাই ছবির বর্তমান সময়ের সেরা নায়ক শাকিবের প্রতি চাপা অভিমান থেকেই জায়েদ খানকে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সমর্থন করেছেন বলে জানিয়েছেন চিত্রনায়িকা পপি।

তবে শাকিবের প্রতি সেই অভিমান করাটা ভুল ছিল বলেও জানান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এ চিত্রনায়িকা।

বিষয়টি নিয়ে পপির সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি যুগান্তরকে জানান, ‌শাকিব এখন নিঃসন্দেহে দেশের শীর্ষ নায়ক। কিন্তু একসময় তার এ অবস্থান ছিল না। ধীরে ধীরে সে জনপ্রিয়তা পায়। জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর সে কাজ নিয়ে আরও ব্যস্ত হয়ে পড়ে। মান্না ভাই মারা যাওয়ার আগ পর্যন্ত সবকিছু মোটামুটি ঠিক ছিল। কিন্তু তিনি মারা যাওয়ার পর সিনেমায় শাকিবের একচেটিয়া আধিপত্য গড়ে ওঠে। তারমধ্যে অপুর সঙ্গে শাকিবের জুটি তৈরি হয়। সেসব ছবি ব্যবসায়িকভাবে লাভবানও হতে থাকে। একটা সময় আমরা যারা তার পাশে ছিলাম, তাদেরকে এড়িয়ে চলতে থাকে শাকিব। এ কারণেই আমাদের মধ্যে অভিমান তৈরি হয়। সেই অভিমান থেকে আমরা সবাই মিলে জায়েদকে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সাপোর্ট করি। তাকে পাশ করাই।

জায়েদ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে পপি আরও বলেন, ‌আমরাই জায়েদকে পাশ করিয়েছি। বলা যায়, সাধারন শিল্পীদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করেছি। কিন্তু পাশ করার পর জায়েদের মুখোশ খুলে যায়। আমরা বুঝতে পারি, অনেক বড় ভুল করে ফেলেছি। জায়েদ নেতৃত্বে আসার পর আমাদের শিল্পীদের কোন্দল শুরু হয়। বন্ধুত্বে চিড় ধরে। যেটা আাগে কোনোদিনই ছিল না। দু'একটা কোন্দল থাকলেও সেগুলো কখনোই প্রকাশ্যে আসেনি। কিন্তু জায়েদ শিল্পীদের সদস্যপদ বাতিল করে কোন্দলটাকে প্রকাশ্যে নিয়ে আসে।

এদিকে পপি বর্তমানে তার নিজ বাড়ি খুলনাতে অবস্থান করছেন। কিছুদিন আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। বর্তমানে সুস্থ আছেন বলে যুগান্তরকে জানিয়েছেন। শিগগিরই তিনি ঢাকা ফিরবেন। ফিরেই হাতে থাকা ছবিগুলোর শুটিং সিডিউল সাজাবেন।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত