আগে চিকিৎসক পরে অভিনেতা: ডা. এজাজ (ভিডিও)
jugantor
আগে চিকিৎসক পরে অভিনেতা: ডা. এজাজ (ভিডিও)

  শামীম হোসেন  

০৭ জুন ২০২২, ১৮:৪০:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ডা. এজাজুল ইসলামের নাম মনে হলেই চোখের পর্দায় ভেসে ওঠে হাসিখুশি সাবলীল এক গুণী অভিনেতার মুখ। অভিনেতার পাশাপাশি পেশায় তিনি একজন সুপরিচিত চিকিৎসক। আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল মানুষদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য তিনি ‘গরিবের ডাক্তার’ হিসেবেও পরিচিত। এবার নৈতিক দায়িত্বের জায়গা থেকে সহকর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সেই সুযোগ করে দিয়েছে অভিনয়শিল্পী সংঘ। প্রতি মাসের ১ তারিখে সহকর্মীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিয়ে থাকেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই গুণী অভিনেতা।

যুগান্তরকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডা. এজাজ বলেন, শুটিং সেটে বিভিন্ন সময় দেখি কেউ না কেউ অসুস্থ থাকেন। আমরা শিল্পীরা বসে সিদ্ধান্ত নিলাম যে, অস্বচ্ছল শিল্পীদের চিকিৎসার জন্য কিছু একটা করা উচিত। এভাবেই বিষয়টা আমাদের ভাবনায় আসে। এটা আমার একক কোনো উদ্যোগ নয়। এমন একটি মহৎ কাজের অংশ হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।

সমাজের বিত্তবানদের প্রতি ডা. এজাজের আহ্বান- দেশে অনেক শিল্পপতি রয়েছেন। কিন্তু গরিবদের স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা কজনইবা করতে পেরেছেন। আমাদের উচিত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। অস্বচ্ছল শিল্পীদের প্রতি আরও যত্নবান হওয়ার ব্যাপারে সরকারের প্রতি আমার বিশেষ অনুরোধ থাকবে।

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে তিনি বলেন, চেম্বার ঠিক রেখে আমি অভিনয় করি। আমি সবসময় তিনটি বিষয় নিয়ে ব্যস্ত থাকি- চেম্বার, অভিনয় ও সংসার। মাসে ১৮ দিন রাখি চেম্বারের জন্য। বাকি ১২ দিন করি শুটিং।

একজন অভিনেতার সবচেয়ে ভালো গুণ কী? ডা. এজাজের সহজ উত্তর, নিজের কাজের প্রতি দায়িত্বশীল হওয়া। এই একটি গুণের অভাবে অনেকেই ঝরে পড়েন।

চিকিৎসক নাকি অভিনেতা, আপনার কোন পরিচয়টা আগে? জবাবে তিনি বলেন, আমি আগে ডাক্তার। পরে অভিনেতা।

ডা. এজাজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে অবসর গ্রহণ করেন। বর্তমানে তার গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকায় নিজের চেম্বারে নিয়মিত রোগী দেখেন।

আগে চিকিৎসক পরে অভিনেতা: ডা. এজাজ (ভিডিও)

 শামীম হোসেন 
০৭ জুন ২০২২, ০৬:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ডা. এজাজুল ইসলামের নাম মনে হলেই চোখের পর্দায় ভেসে ওঠে হাসিখুশি সাবলীল এক গুণী অভিনেতার মুখ। অভিনেতার পাশাপাশি পেশায় তিনি একজন সুপরিচিত চিকিৎসক। আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল মানুষদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য তিনি ‘গরিবের ডাক্তার’ হিসেবেও পরিচিত। এবার নৈতিক দায়িত্বের জায়গা থেকে সহকর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। সেই সুযোগ করে দিয়েছে অভিনয়শিল্পী সংঘ। প্রতি মাসের ১ তারিখে সহকর্মীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিয়ে থাকেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই গুণী অভিনেতা।

যুগান্তরকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ডা. এজাজ বলেন, শুটিং সেটে বিভিন্ন সময় দেখি কেউ না কেউ অসুস্থ থাকেন। আমরা শিল্পীরা বসে সিদ্ধান্ত নিলাম যে, অস্বচ্ছল শিল্পীদের চিকিৎসার জন্য কিছু একটা করা উচিত। এভাবেই বিষয়টা আমাদের ভাবনায় আসে। এটা আমার একক কোনো উদ্যোগ নয়। এমন একটি মহৎ কাজের অংশ হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।

সমাজের বিত্তবানদের প্রতি ডা. এজাজের আহ্বান- দেশে অনেক শিল্পপতি রয়েছেন। কিন্তু গরিবদের স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা কজনইবা করতে পেরেছেন। আমাদের উচিত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। অস্বচ্ছল শিল্পীদের প্রতি আরও যত্নবান হওয়ার ব্যাপারে সরকারের প্রতি আমার বিশেষ অনুরোধ থাকবে।

বর্তমান ব্যস্ততা নিয়ে তিনি বলেন, চেম্বার ঠিক রেখে আমি অভিনয় করি। আমি সবসময় তিনটি বিষয় নিয়ে ব্যস্ত থাকি- চেম্বার, অভিনয় ও সংসার। মাসে ১৮ দিন রাখি চেম্বারের জন্য। বাকি ১২ দিন করি শুটিং।

একজন অভিনেতার সবচেয়ে ভালো গুণ কী? ডা. এজাজের সহজ উত্তর, নিজের কাজের প্রতি দায়িত্বশীল হওয়া। এই একটি গুণের অভাবে অনেকেই ঝরে পড়েন।

চিকিৎসক নাকি অভিনেতা, আপনার কোন পরিচয়টা আগে? জবাবে তিনি বলেন, আমি আগে ডাক্তার। পরে অভিনেতা।

ডা. এজাজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন শেষে অবসর গ্রহণ করেন। বর্তমানে তার গাজীপুর চৌরাস্তা এলাকায় নিজের চেম্বারে নিয়মিত রোগী দেখেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন